1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
হাঁটাচলা করা যে শরীরের জন্য ভালো৷
সবার সচল থাকা এবং সম্ভব হলে দ্রুত গতিতে হাঁটা উচিতছবি: Mohssen Assanimoghaddam/dpa/picture alliance
স্বাস্থ্যজার্মানি

দ্রুত হাঁটার অভ্যাস আয়ু বাড়াতে পারে

২৮ নভেম্বর ২০২২

হাঁটাচলা করা যে শরীরের জন্য ভালো, সেটা অনেকেরই জানা আছে৷ বিজ্ঞানীরা এবার মুভমেন্ট সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য বিশ্লেষণ করে দ্রুত হাঁটার আরও উপযোগিতা জানতে পেরেছেন৷ তাদের মতে দীর্ঘ আয়ুর জন্য সেটা অত্যন্ত জরুরি৷

https://p.dw.com/p/4KANT

দ্রুত হাঁটলে আয়ু বাড়ে

স্টুটগার্ট শহরের এক হাসপাতালের মুভমেন্ট ল্যাবে ব্যস্ততার পরিবেশ৷ মোবিলিটি গবেষক হিসেবে লার্স শ্ভিকার্ট রোগীদের সঞ্চালনের মাত্রা ও মান যতটা সম্ভব নিখুঁতভাবে পরিমাপ করতে চান৷ জুতোর মধ্যে প্রেসার সেন্সর পায়ের নীচে চাপ পরিমাপ করে৷ এভাবে ক্লাউস ব্রেনার নামের এক স্বেচ্ছাসেবীর হাঁটাচলা বিশ্লেষণ করা হচ্ছে৷ তিনি শুরু থেকেই এই গবেষণায় অংশ নিচ্ছেন৷

দ্রুত হাঁটলে আয়ু বাড়ে

লার্স শ্ভিকার্ট তার সারা শরীরে বেশ কয়েকটি সেন্সর ও রিফ্লেক্টর বসিয়েছেন৷ দৈনিক ব্যবহারের যোগ্য একটি মাত্র সেন্সরের মাধ্যমে এমন নিখুঁত পরিমাপ সম্ভব কিনা, গবেষক হিসেবে তিনি সেটা জানতে চান৷ বার্ধক্য বিষয়ক গবেষক ক্লেমেন্স বেকারও ভবিষ্যতে চিকিৎসাবিদ্যার ক্ষেত্রে মোবিলিটি বড় বিষয় হয়ে উঠবে বলে মনে করেন৷ প্রো. বেকার বলেন, ‘‘আমরা চাই, আগামী দুই-তিন বছরের মধ্যে প্রত্যেকটি নতুন ওষুধ অনুমোদনের ক্ষেত্রে মোবিলিটির উন্নতি অথবা অবনতির বিষয়টিও যেন বিবেচনা করা হয়৷ বর্তমানে আমরা সেটা জানি না৷'' 

সঞ্চালনের এমন প্যাটার্ন তথ্যের উৎস হয়ে উঠবে, এমনটা আশা করা হচ্ছে৷ কোনো রোগীর স্বাস্থ্যের অবস্থা, চিকিৎসার সাফল্য, ওষুধের কার্যকারিতার বিশ্লেষণ অথবা রোগের বিকাশের উপর নজর রাখার ক্ষেত্রে সেই সব তথ্য কাজে লাগবে৷ প্রো. ক্লেমেন্স বেকার বলেন, ‘‘আমরা হাঁটার গুণমান পরিমাপ করতে পারি৷ যেমন হাঁটার ছন্দে অনিয়ম থাকলে সেটিকে আমরা গেট ভেরিয়েবিলিটি বলি৷ অথবা কেউ যদি নিজের জয়েন্টের উপর চাপ এড়াতে খুঁড়িয়ে চলে, সেটা আর্থ্রোসিস বা ভাঙা হাড়ের লক্ষণ হতে পারে৷'' 

বিজ্ঞানীরা সত্যি একটি মাত্র সেন্সরের মাধ্যমে কোনো মানুষের জটিল সঞ্চালন পরিমাপ করতে সফল হয়েছেন৷ সেটির মাধ্যমে দিনের পর দিন ধরে কোনো রোগী বা ক্লাউস ব্রেনারের মতো স্বেচ্ছাসেবীর মুভমেন্ট ডেটা বিশ্লেষণ করা সম্ভব৷ ক্লাউস বলেন, ‘‘বয়স বাড়লে সঞ্চালন আসলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়৷ আমরা জানি, স্নায়বিক অর্থাৎ মস্তিষ্কের ক্রিয়ার উপর এর গভীর প্রভাব রয়েছে৷ তাছাড়া আরও স্বাচ্ছন্দ্য বোধ হয়৷ সব জগারই সেটা বলেন৷ এন্ডোরফিন হরমোনের কারণে মানুষ কিছু করলে আরও খুশি হয়৷ সে কারণে আমিও খুশিমনে এই পরীক্ষায় অংশ নিয়েছি৷''

ক্লেমেন্স বেকার ও লার্স শ্ভিকার্ট সারা সপ্তাহ ধরে সেন্সরের মাধ্যমে সংগৃহীত তথ্যের ভিত্তিতে একটা চিত্র পাচ্ছেন৷ সেই সেন্সর তিনটি স্পেশিয়াল অ্যাক্সিসের সবকটির সঞ্চালন নথিভুক্ত করেছে এবং মোশান কার্ভও সৃষ্টি করেছে৷ সেই লক্ষ্যে আলাদা করে তৈরি অ্যালগোরিদম সেই সব তথ্য ঘেঁটে হাঁটার সময় গতি, পরিমাণ, ভেরিয়েন্স, দৈর্ঘ্য ও সিমেট্রি সংক্রান্ত বিষয় তুলে ধরেছে৷ রোগী সারা দিনে আদৌ কতটা সঞ্চালন করেন, কোন সময়ে এবং কতক্ষণ হেঁটেছেন, সাইকেল চালিয়েছেন অথবা সিঁড়ি চড়েছেন, সে সব স্পষ্ট দেখা যায়৷ এমনকি সঞ্চালনের গুণমান অথবা চলার সময় প্রতিবন্ধকতাও নথিভুক্ত করা হয়৷

এক আন্তর্জাতিক কনসর্টিয়াম ‘মোবিলাইজ ডি' নামের প্রকল্পের আওতায় সে বিষয়ে গবেষণা চালাচ্ছে৷ সমাজে বয়স্ক মানুষের অনুপাত বেড়ে চলার পরিপ্রেক্ষিতে মোবিলিটি সংক্রান্ত তথ্য নতুন ওষুধ ও থেরাপি সৃষ্টির কাজে সহায়তা করতে পারবে৷ প্রো. ক্লেমেন্স বেকার বলেন, ‘‘আমরা জানি, যে সব মানুষ সেকেন্ডে এক দশমিক দুই মিটারের চেয়ে বেশি দ্রুতগতিতে হাঁটে, তাঁদের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা যথেষ্ট বেশি৷ যম তার সঙ্গে পাল্লা দিতে পারে না৷ আমরা জানি, যে সব মানুষ ধীরে চলে, সেকেন্ডে শূন্য দশমিক আট মিটার অতিক্রম করে, সে যমের পাল্লায় পড়তে পারে৷ অর্থাৎ এক অর্থে গতি এমনকি কোলেস্টরল বা রক্তচাপের মাত্রার থেকেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ৷ বিশাল পরিমাণ তথ্য তা স্পষ্ট দেখিয়ে দিচ্ছে৷ সে কারণে মুভমেন্ট ভীষণ জরুরি৷''

অর্থাৎ আমাদের সবার সচল থাকা উচিত এবং সম্ভব হলে এই দুই মানুষের মতো দ্রুত গতিতে হাঁটা উচিত৷

প্রতিবেদন: ফ্রাংক ভিটিশ/এসবি

স্কিপ নেক্সট সেকশন এই বিষয়ে আরো তথ্য
স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের এক জরিপে এই তথ্য উঠে এসেছে। বাংলাদেশ সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) তাদের পার্টনার হিসেবে বাংলাদেশে এই জরিপ পরিচালনা ও ফলাফল প্রকাশ করেছে।

ব্যবসা-বাণিজ্যের ঘাটে ঘাটে দুর্নীতি

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান