দ্বৈত নাগরিকত্ব থাকা জঙ্গিদের নাগরিকত্ব বাতিল করবে জার্মানি | বিশ্ব | DW | 03.04.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

দ্বৈত নাগরিকত্ব থাকা জঙ্গিদের নাগরিকত্ব বাতিল করবে জার্মানি

দ্বৈত নাগরিকত্ব আছে এমন জার্মানরা বিদেশি জঙ্গি গোষ্ঠীতে যোগ দিলে তাদের নাগরিকত্ব বাতিল করতে পারবে জার্মান সরকার৷ বুধবার নতুন এই আইনের অনুমোদন দিয়েছে জার্মান মন্ত্রিসভা৷

‘‘যারা বিদেশে গেছে এবং সন্ত্রাসী জঙ্গি গোষ্ঠীর হয়ে সশস্ত্র যুদ্ধে অংশ নিয়েছে তারা জার্মানি এবং তার মূল্যবোধকেও বিসর্জন দিয়েছে৷ সন্ত্রাসী জঙ্গি কাঠামোয় তারা বিদেশি শক্তির সঙ্গে যুক্ত,'' বলে এক বিবৃতিতে এমন অভিমত দিয়েছে দেশটির সরকার৷

প্রাপ্তবয়স্ক ও আরো একটি নাগরিকত্ব রয়েছে এমন সন্ত্রাসী জঙ্গিদের ক্ষেত্রেই আইনটি প্রযোজ্য হবে৷ সংখ্যালঘুদের উপর এর কোনো প্রভাব পড়বে না৷ অতীতের ঘটনার ক্ষেত্রেও এটি অকার্যকর হবে৷ 

বর্তমানে ইরাকে মার্কিন সমর্থনপুষ্ট সিরীয় কুর্দি বাহিনী ও সরকারের হাতে আইএস-এ যোগ দেয়া অনেক জার্মান নাগরিক আটক রয়েছে৷ তাদের নাগরিকত্ব বাতিল হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই৷ যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্র সিরীয় কুর্দি বাহিনী আটককৃত কয়েক হাজার আইএস যোদ্ধাদের ফেরত নিতে বিভিন্ন দেশের উপর চাপ প্রয়োগ করে যাচ্ছে৷ এসব বিদেশি যোদ্ধাদের বিষয়ে কী ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হবে, তা নিয়ে ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে বিতর্ক রয়েছে৷

জার্মান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হিসাবে ২০০৩ সাল থেকে দেশটির প্রায় ১,০০০ নাগরিক সিরিয়া ও ইরাকের জিহাদি জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোতে যোগ দিয়েছে৷ তাদের এক তৃতীয়াংশ এরইমধ্যে জার্মানিতে ফিরে এসেছে৷ যাদের অনেককে বিচার অথবা পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার আওতায় আনা হয়েছে৷ বিলটি শুধু আইএস এর জন্য নয়, সব সন্ত্রাসী জঙ্গিদের জন্যই প্রযোজ্য হবে বলে ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র৷

‘‘আইন অনুযায়ী একটি সন্ত্রাসী জঙ্গি সংগঠন আধা সামরিক সশস্ত্র সংগঠন হিসেবে বিবেচিত হবে, যারা আন্তর্জাতিক আইনের বরখেলাপ ও নতুন রাষ্ট্রকাঠামো প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে একটি বিদেশি রাষ্ট্রের বিদ্যমান কাঠামো নির্মূল করার পরিকল্পনা করেছে,'' জানান এই মুখপাত্র৷ সে অনুযায়ী তুরস্কের সরকারের বিরুদ্ধে তিন যুগ ধরে লড়াইরত কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টিতে যোগ দেয়া জার্মান দ্বৈত নাগরিকরাও তাদের নাগরিকত্ব হারাবে৷ বিশ্বের প্রবাসী কুর্দি জনগোষ্ঠীর সবচেয়ে বড় অংশটিই জার্মানিতে বসবাস করে আসছে, যাদের অনেকেই কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির সাথে যুক্ত৷

গত বছর জার্মানির ক্ষমতাসীন জোট সরকারের রাজনৈতিক দলগুলো নাগরিকত্ব আইন সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দেয়৷ কিন্তু বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দেশটির স্বরাষ্ট্র ও আইন মন্ত্রীর মতদ্বন্দের কারণে এর অনুমোদনের প্রক্রিয়া ধীরগতিতে এগোয়৷ এই দেরি নিয়ে সরকারের সমালোচনাও হয়৷ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আশা নতুন আইন ভবিষ্যতের প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা হিসেবে কাজ করবে৷

প্রতিবেদন: চেজ ভিন্টার/এফএস

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন