দুর্নীতি তদন্তে আবারো ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিরা | বিশ্ব | DW | 01.12.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

দুর্নীতি তদন্তে আবারো ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিরা

পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির তদন্ত করতে আবারো ঢাকায় আসছে বিশ্বব্যাংকের তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল৷ গত চার দিন আগে দুদক চেয়ারম্যান বলেছেন, এই প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের প্রমাণ পাওয়া গেছে৷

বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধি দলের সফরকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন বিশেষজ্ঞরা৷

পদ্মা সেতু নির্মাণে দুর্নীতির তদন্ত পর্যবেক্ষণ করতে লুই গাব্রিয়েল ওকাম্পোর নেতৃত্বাধীন বিশ্বব্যাংকের তিন সদস্যের প্রতিনিধি দলের শনিবার ঢাকায় আসার কথা৷ আগামীকাল রবিবার দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসবে প্রতিনিধি দলটি৷ বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ের কর্মকর্তারা প্রতিনিধি দলের ঢাকায় আসার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন৷ তারা চার দিন ঢাকায় অবস্থান করে পদ্মা সেতু নির্মাণে দুর্নীতির বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন৷

তাদের প্রতিবেদনের ওপর পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্ব ব্যাংকের ১২০ কোটি ডলারের ঋণ দেয়ার বিষয়টি নির্ভর করছে৷ পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির তদন্ত পর্যবেক্ষণে গত অক্টোবরে তারা প্রথমবারের মত ঢাকা সফর করেন৷ সে সময় তারা দুদককে তদন্তের ব্যাপারে বেশ কিছু গাইডলাইনও দেন৷ গত ২৭শে নভেম্বর দুদক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান প্রকল্পে কাজ পাওয়ার জন্য ঘুষ লেনদেনের ‘ষড়যন্ত্রের' তথ্য পাওয়ার কথা জানান৷

দুদক চেয়ারম্যান তখন বলেছিলেন, বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধি দলের দ্বিতীয় সফরে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে৷ তাদের দ্বিতীয় সফরকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন বিশেষজ্ঞরা৷ ব্র্যাক বিজনেস স্কুলের পরিচালক মামুন রশীদ বলেন, বিশ্বব্যাংক বরাবরই বলেছে তারা দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের প্রমাণ পেয়েছে৷ তাই তাদেরকে আশ্বস্ত করতে হবে এই প্রকল্পে আর কোন দুর্নীতি হবে না৷

আর জাতিসংঘের সাবেক কর্মকর্তা এম রহমতউল্লাহ ও যোগাযোগ গবেষক এম রহমতউল্লাহ মনে করেন, ইতিবাচক সম্ভাবনা আছে বলেই বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধি দলটি দ্বিতীয় বারের মত ঢাকায় আসছে৷ যদি তাদের সিদ্ধান্ত নেতিবাচক হত তাহলে তারা আর এখানে আসত না৷

প্রসঙ্গত, পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে গত জুনে ১২০ কোটি ডলারের ঋণচুক্তি বাতিল করেছিল বিশ্বব্যাংক৷ পরে ‘শর্তসাপেক্ষে' এ প্রকল্পে ফেরার ঘোষণা দেয় বহুজাতিক ঋণদাতা সংস্থাটি৷ এরপরই তারা তদন্ত পর্যবেক্ষণে প্যানেল গঠন করে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন