দুর্নীতির অভিযোগে হুইপ এমপিদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 22.06.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

দুর্নীতির অভিযোগে হুইপ এমপিদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

ঘুষ, দুর্নীতি, অর্থ আত্মসাৎ ও মুদ্রা পাচারের অভিযোগে জাতীয় সংসদের হুইপ শামসুল হক চৌধুরী এবং দুই সাংসদসহ ছয়জনকে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত৷

ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে দুদকের অন্যতম আইনজীবী মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর বলেন, "তাদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করা হয়েছিল৷ এ আদেশ পাওয়া গেছে৷''

ঘুষ, দুর্নীতি, অর্থ আত্মসাৎ, ক্যাসিনোর কারবার ও মুদ্রা পাচারের অভিযোগ অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে দুদকের আবেদনে ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এই আদেশ দেন৷

বিচারক গত ৮ জুন এ আদেশ দিলেও তার স্বাক্ষরিত লিখিত আদেশ আসে গত ১৩ জুন৷ ওইদিনই পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) পক্ষ থেকে বিমানবন্দর ইমিগ্রেশনকে নির্দেশনা পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷

যাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে তারা হলেন- জাতীয় সংসদের হুইপ চট্টগ্রামের পটিয়ার সাংসদ সামশুল হক চৌধুরী, ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম প্রধান সাজ্জাদুল ইসলাম, গণপূর্ত অধিদপ্তরের সাবেক অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত) মো. আব্দুল হাই এবং ঢাকার ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের কর্মচারী আবুল কালাম আজাদ৷ দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন তাদের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা চেয়ে গত ৭ জুন ওই আবেদন করেন৷

সেখানে বলা হয়, "সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সরকারি কর্মকর্তাদের শত শত কোটি টাকা ঘুষ দিয়ে বড় বড় ঠিকাদারী কাজ নিয়ে বিভিন্ন অনিয়মের মাধ্যমে সরকারি অর্থ আত্মসাৎ, ক্যাসিনো ব্যবসা করে শত শত কোটি টাকা অবৈধ প্রক্রিয়ায় অর্জনপূর্বক বিদেশে পাচার ও জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন সংক্রান্ত অভিযোগের অনুসন্ধান চলমান রয়েছে৷''

তারা যাতে দেশত্যাগ করতে না পারেন, সেজন্য নিষেধাজ্ঞা জারির বিষয়ে হাই কোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী অনুমতি চাওয়া হয় জজ আদালতের কাছে৷  দুদকের পক্ষে আবেদনের ওপর শুনানি করেন মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর৷

শুনানি শেষে আদালত পুলিশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয়৷

 

এনএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়