দুর্নীতির অভিযোগে অস্ট্রিয়ার চ্যান্সেলরের পদত্যাগ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 10.10.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

দুর্নীতির অভিযোগে অস্ট্রিয়ার চ্যান্সেলরের পদত্যাগ

দুর্নীতির অভিযোগের মুখে পদত্যাগের ঘোষণা দিলেন অস্ট্রিয়ার চ্যান্সেলর সেবাস্টিয়ান কুয়র্ৎস৷ পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে তিনি জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলেকজান্ডার শালেনব্যার্গ চ্যান্সেলরের দায়িত্ব পালন করবেন৷

Regierungskrise in Österreich Sebastian Kurz (ÖVP)

সেবাস্টিয়ান কুয়র্ৎস৷

‘আমার কাছে নিজের চেয়ে দেশ অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ,’ টেলিভিশনে প্রচারিত এক ভাষণে বলেন তিনি৷

রাজধানী ভিয়েনায় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘‘আমাদের এখন যা দরকার তা হলো একটি স্থিতিশীল অবস্থা৷ আর তাই অচলাবস্থা কাটাতে আমি সরে যেতে চাই যেন কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা তৈরি না হয় এবং স্থিতাবস্থা বজায় থাকে৷’’

কুয়র্ৎসের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ 

ক্ষমতাসীন ওভিপি পিপলস পার্টির সঙ্গে যোগসূত্র আছে এমন বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানোর পর কুয়র্ৎস এবং আরো নয়জনের বিরুদ্ধে অনৈতিক লেনদেনের অভিযোগের তদন্ত চলছে৷

নিজ দল ওভিপি তাকে সমর্থন জানিয়ে আসলেও সরকার গঠনে তার সহযোগী গ্রিন এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে তার পদত্যাগ দাবি করেছে৷

২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে দেশটির চ্যান্সেলরের দায়িত্ব পালন করে আসছেন সেবাস্টিয়ান কুয়র্ৎস৷

এর আগে, ২০১৭ সালে তিনি রক্ষণশীল ওভিপি পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান হন এবং সে বছরের শেষ দিকে মাত্র ৩১ বছর বয়সে নির্বাচনে জয়ী হয়ে বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকার প্রধানদের একজনে পরিণত হন৷

কুয়র্ৎস এবং তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে ২০১৬ ও ২০১৮ সময়ে দেশটির অর্থমন্ত্রণালয়ের টাকা নির্বাচনের ‘অপিনিয়ন পুলে ব্যয়ের অভিযোগ ওঠে’৷

আর এ অভিযোগে কুয়র্ৎস, তার রাজনৈতিক সহযোগী এবং তিনটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে বলে জানা গেছে৷

তবে পদত্যাগের ঘোষণা দিতে গিয়ে কুয়র্ৎস তার বিরুদ্ধে আনা এসকল অভিযোগ ‘মিথ্যা’ বলে দাবি করেন৷ 

তিনি বলেন, ‘‘আমি নিশ্চিত যে এসকল অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণ করতে পারব৷’’

আরআর/এসএস

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন