দুবছরে সাড়ে চারশো ধর্ষণ, অ্যামেরিকায় উবারে সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন | বিশ্ব | DW | 06.12.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্র

দুবছরে সাড়ে চারশো ধর্ষণ, অ্যামেরিকায় উবারে সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন

লাগাতার সমালোচনার পর অ্যামেরিকায় উবার তাদের প্রথম সুরক্ষা রিপোর্ট প্রকাশ করল। দুবছরে উবারে সাড়ে চারশোরও বেশি ধর্ষণের কথা রিপোর্টে রয়েছে।

মার্কিন মুলুকে উবার কতটা নিরাপদ? এই প্রশ্নটা উঠেছে উবার তাদের প্রথম সুরক্ষা রিপোর্ট প্রকাশের পর। রিপোর্ট বলছে, অ্যামেরিকায় ২০১৭ ও ২০১৮ এই দুই বছরে সাড়ে চারশ ধর্ষণ ও প্রায় ছহাজার যৌন নিগ্রহের ঘটনা ঘটেছে। 

অ্যামেরিকায় এই সংস্থার গাড়ি প্রতিদিন প্রায় ৪০ লক্ষ বার ট্রিপ দেয়। উবার জানিয়েছে, ''এই সুরক্ষা রিপোর্ট জানার পুরো অধিকার সাধারণ লোকের আছে। কারণ, তাঁরা প্রতিদিন আমাদের ওপর ভরসা করেন।'' অবশ্যএই প্রথম সংস্থাটি তাদের সুরক্ষা রিপোর্ট প্রকাশ করল। সেটাও অবশ্য তাদের করতে হয়েছে চাপে পড়ে। কারণ, তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী সংস্থাগুলি বারবার এই রিপোর্ট প্রকাশের দাবি জানাচ্ছিল। উবারে চেপে নিগ্রহের মুখে পড়া যাত্রীদের নালিশের সংখ্যাও বাড়ছিল।

উবারের রিপোর্ট বলছে, ২০১৭-তে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ ছিল ২৯৩৬টি, পরের বছর তা বেড়ে হয়েছে ৩০৬৫।  তা সত্ত্বেও উবার দাবি করছে, জাতীয় ক্ষেত্রে যৌন নিগ্রহের হার বেড়েছে ১৬ শতাংশ হারে, তাঁদের ক্ষেত্রে সেই বৃদ্ধির হার কম।  

সংস্থার রিপোর্টে যৌন নিগ্রহকে পাঁচ ভাগে ভাগ করা হয়েছে, তার মধ্যে বিনা সম্মতিতে চুম্বন থেকে শুরু করে ধর্ষণ পর্যন্ত সবকিছুই আছে। দুবছরে ধর্ষণের ঘটনার অভিযোগ এসছে ৪৬৪ টি এবং ধর্যণের চেষ্টার অভিযোগ ছিল ৫৮৭ টি। আর প্রাণঘাতী শারীরিক নিগ্রহ হয়েছে ১৮ বার। পরিস্থিতি যথেষ্ট উদ্বেগজনক।

মোট ৭০টি দেশে গাড়ি পরিষেবা চালায়। শুধু অ্যামেরিকা নয়, বিভিন্ন দেশ থেকেই যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এসেছে। ২০১৭ সাল থেকে তারা 'ইন অ্যাপ এমার্জেন্সি বাটন' চালু করেছে।  ভারতে তো উবারের গাড়িতে লিখিতভাবে দেওয়া থাকে যে, ড্রাইভার মহিলাদের সম্মানরক্ষার শপথ নিয়েছে। ড্রাইভারদের পরিচিতিও ভালো করে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

জিএইচ/এসজি (রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন