1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
ছবি: bdnews24.com

দুদকে এস কে সুর ও শাহ আলম

২৯ মার্চ ২০২২

পি কে হালদারের আড়াই হাজার কোটি টাকা ঋণ কেলেঙ্কারির ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) তলবে হাজির হয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী এবং নির্বাহী পরিচালক শাহ আলম৷

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%A6%E0%A7%81%E0%A6%A6%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%8F%E0%A6%B8-%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A7%81%E0%A6%B0-%E0%A6%93-%E0%A6%B6%E0%A6%BE%E0%A6%B9-%E0%A6%86%E0%A6%B2%E0%A6%AE/a-61288826

ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের খবর অনুযায়ী, তারা দুইজন মঙ্গলবার সকাল ১০টার আগেই রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে পৌঁছে নির্ধারিত উপস্থিতি খাতায় সই করেন৷
দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ আরিফ সাদেক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ‘‘সকাল ১০টা পর তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে, অনুসন্ধান কর্মকর্তা গুলশান আনোয়ার প্রধান তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করছেন ৷’’
ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড (আইএলএফএসএল) থেকে ‘অস্তিত্বহীন' প্রতিষ্ঠানের নামে আড়াই হাজার কোটি টাকা ঋণ কেলেঙ্কারির ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত ২৪ মার্চ দুদকের উপ পরিচালক ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা গুলশান আনোয়ার প্রধান তাদেরকে তলব করে নোটিসে পাঠান৷
এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক পি কে হালদারের নিয়ন্ত্রণাধীন আইএলএফএসএল থেকে 'কাগুজে' প্রতিষ্ঠানের নামে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ইতোমধ্যে ২২টি মামলা করেছে দুদক৷
এছাড়া এফএএস ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড থেকে 'কাগুজে' প্রতিষ্ঠানের নামে ঋণ দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আরও ১৩টি মামলা করেছে দুর্নীতি বিরোধী সংস্থাটি৷ এসব মামলায় পি কে হালদারকে প্রধান আসামি করা হয়েছে৷

তার দুই সহযোগী ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রাশেদুল হক ও পিপলস লিজিংয়ের সাবেক চেয়ারম্যান উজ্জ্বল কুমার নন্দী আদালতে যে  স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন, সেখানে এস কে সুর ও শাহ আলমের নাম আসে৷

পিপলস লিজিংয়ের অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত আমানতকারীরাও তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলে আসছেন৷ তাদের আবেদনে হাই কোর্ট গতবছর যে ২৫ জনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল, তাদের মধ্যে এস কে সুর চৌধুরীর নামও ছিল৷

অভিযোগ ওঠার পর গতবছর ৪ ফেব্রুয়ারি নির্বাহী পরিচালক মো. শাহ আলমকে বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়৷ তবে তিনি অন্য বিভাগের দায়িত্ব পালন করছিলেন৷

আরএস কে সুর চৌধুরী  ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে ডেপুটি গভর্নরের পদ থেকে অবসরে যাওয়ার পর বাংলাদেশ ব্যাংকের উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করেন৷ বর্তমানে তিনি অবসরে৷

এনবিআর গতবছর জুলাই মাসে সুর চৌধুরী ও তার স্ত্রী সুপর্ণা সুর চৌধুরীর সব ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজের নির্দেশ দেয়৷

এনএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)  ‘‘৷’’

 

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Bangladesch | Dhaka Karwan Market

৩৬ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা কি আইওয়াশ?

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান