‘দুই’- এর কাছেই হারলেন সাবরিনা! | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 12.04.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

‘দুই’- এর কাছেই হারলেন সাবরিনা!

‘দুই’ একটি সংখ্যা, এই সংখ্যাটা জড়িয়ে গেল সাবরিনার ভাগ্যে৷ ডয়চে ভেলের প্রতিযোগিতার ‘ইউজার প্রাইজ’ জয় করেননি সাবরিনা, কারণ দুই শতাংশ ভোট কম পান তিনি৷ আবার ‘জুরি অ্যাওয়ার্ডে’ও দ্বিতীয় সাবরিনা, বিচারকদের দুটি ভোট পাননি তিনি৷

default

ডয়চে ভেলের সেরা ব্লগ অনুসন্ধান প্রতিযোগিতার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অ্যাওয়ার্ড হচ্ছে ‘বেস্ট ব্লগ'৷ সবার আগ্রহ ছিল এবারকার সেরা ব্লগ হবে কোনটি৷ বাংলা ভাষার পক্ষে এই বিভাগে লড়াই করেন সাবরিনা সুলতানা৷ সোমবার জার্মানির বন শহরে বৈঠকে বিশ্বের বিভিন্ন ভাষার বিচারকরা সর্বোচ্চ সময় ব্যয় করেন সাবরিনার ব্লগটি সম্পর্কে জানতে৷ এই বিভাগে পরপর তিনবার বিচারকদের মধ্যে ভোটের আয়োজন করা হয়৷ চূড়ান্ত ভোটে সাবরিনার পক্ষে অবস্থান নেন পাঁচ ভাষার বিচারক৷ কিন্তু প্রতিপক্ষ টিউনিশিয়ার মেয়ে লিনার ব্লগটির পক্ষে অবস্থান ছিল সাত বিচারকের৷ ফলে হার মেনে নিতে হয় বাংলা ভাষাকে৷ শেষ পর্যন্ত ‘বেস্ট ব্লগ' ক্যাটাগরিতে ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড' জয় করে নেয় লিনার ‘এ টিউনিশিয়ান গার্ল'৷

লিনার এই মিশ্র ভাষার ব্লগের পক্ষে ফরাসি ভাষার বিচারক হিসেবে ছিলেন ক্লারা উলরিশ৷ এই ব্লগটি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘‘টিউনিশয়ার আরো অনেক ব্লগের মতো লিনার ব্লগও ইতিহাস সৃষ্টি করেছে৷ কারণ, বেন আলীর শাসনকালে টিউনিশয়ার ব্লগাররা প্রচণ্ড চাপ এবং কড়া নিয়ন্ত্রণের মধ্যে ছিল৷ মনের কথা লিখতে গিয়ে নির্যাতনের শিকার হতো ব্লগাররা৷ সেই অবস্থা থেকেও স্বনামে ব্লগ লিখেছেন লিনা৷ তিনি টিউনিশিয়ার রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে লিখেছেন, কড়া নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে লিখেছেন৷ সর্বশেষ গণআন্দোলনের সময় আন্দোলনের ছবিও তুলে ইন্টারনেটে প্রকাশ করেছেন লিনা৷

Flash-Galerie Blogger Sabrina Sultana

চট্টগ্রামের ব্লগার সাবরিনা সুলতানা

লিনার পক্ষে থাকলেও, সাবরিনাকে ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি ক্লারা৷ সাবরিনার উদ্দেশ্যে ভাঙা ভাঙা বাংলায় তিনি বলেন, ‘‘সাবরিনা, তোমার কাজ এবং বিরল এই ব্লগটির জন্য তোমাকে স্বাগত জানাই৷ আমি আশা করি, কোনো এক দিন তুমি ‘এ টিউনিশিয়ান গার্ল'এর লিনার সঙ্গে আলাপ করতে পারবে৷''

এবারের প্রতিযোগিতায় ছয়টি মিশ্র ভাষার ক্যাটেগরিতে ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড' প্রদান করা হয়৷ কিন্তু বাংলা ভাষার কোনো ব্লগই ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড' অর্জনে সক্ষম হয়নি৷ তবে, ‘ইউজার প্রাইজ' জয় করেছে তিনটি ব্লগ৷ বাংলা ভাষার বিচারক রেজওয়ানুল ইসলাম এই প্রসঙ্গে বলেন, বিশ্ববাসীর কাছে বাংলা ব্লগটা একটা নতুন বিষয়৷ কারণ, ওরা বাংলাদেশ সম্পর্কে তেমন একটা জানেনা, বাংলা ব্লগ সম্পর্কে জানেনা৷ তবে এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আমরা একটা জিনিস প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছে, সেটা হচ্ছে আমাদের বাংলাদেশেও মানসম্পন্ন ব্লগ আছে৷ আমাদের ব্লগাররাও সাহসিকতার সঙ্গে অনেক কিছু তুলে ধরতে পারছে৷ আমরা কোন অংশে পিছিয়ে নেই৷

এবারের ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড' জয়ী অন্যান্য ব্লগগুলো হচ্ছে মানবাধিকার বিভাগে ইংরেজি ভাষার ব্লগ ‘মাইগ্রেন্ট-রাইটস ডট অর্গ', বেস্ট ভিডিও চ্যানেল নির্বাচিত হয়েছে ফার্সি ভাষার ইউটিউব চ্যানেল ‘স্ট্যান্ডস উইথ ফিস্ট', টেকনোলজি ফর সোশ্যাল গুড বিভাগে রাশিয়ান ভাষার ‘রসপিল ডট ইনফো', বেস্ট সোশ্যাল অ্যাক্টিভিজম ক্যাম্পেইন বিভাগে আরবি ভাষার ‘উই আর খালিদ সাইদ' নামের ফেসবুক গ্রুপ এবং রিপোটার্স উইদআউট বডার্স বিভাগে জুডিথ টরিয়া'র স্প্যানিশ ভাষার ব্লগটি৷

জুরি অ্যাওয়ার্ডে জয়ী ব্লগের প্রতিনিধিদেরকে আগামী জুন মাসে জার্মানির বন শহরে অনুষ্ঠিতব্য গ্লোবাল মিডিয়া ফোরামে পুরস্কার প্রদান করা হবে৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন