দিল্লি দুর্গাপূজার বাঙালি সুবাস আলাদা | বিশ্ব | DW | 13.10.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

দিল্লি দুর্গাপূজার বাঙালি সুবাস আলাদা

বাঙালিদের সেরা উৎসব দুর্গাপূজা ভারতের রাজধানী দিল্লি ও তার আশপাশের রাজ্যে যেভাবে ছড়িয়ে পড়ছে, যেভাবে জাঁকজমক বাড়ছে, নতুনত্ব বাড়ছে তাতে সন্দেহ নেই, দিল্লি পুজো এক জাতীয় উৎসবের চেহারা নিতে চলেছে৷

দিল্লিতে ছোটবড় সব মিলিয়ে প্রায় ৪০০র কাছাকাছি দুর্গাপুজো হয়

দিল্লিতে ছোটবড় সব মিলিয়ে প্রায় ৪০০র কাছাকাছি দুর্গাপুজো হয়

তবে দিল্লির পুজোয় আছে এক অনন্য বাঙালির প্রবাসী সুবাস৷

সব মিলিয়ে দিল্লি ও আশপাশ এলাকায় ছোটবড় মিলিয়ে প্রায় ৮০০-এর কাছাকাছি দুর্গা পুজো হয়৷ বাজেট মোটামুটি ৭-৮ লাখ থেকে ২ কোটি টাকা৷ তবে বাজারে মন্দার ছায়া পড়েছে এবার পুজোর বাজেটে৷ দিল্লির সব বারোয়ারি পুজোতে আছে এক ঘরোয়া আবহ৷ সারা বছরের অপেক্ষা শেষে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা বাঙালিদের মিলন মেলা৷ বেশ একটা আন্তরিকতার ছোঁয়া আছে৷ ছেলেবুড়ো, নবীন-প্রবীণ সবাই মিলে পাত পেড়ে একসঙ্গে বসে খাওয়া দাওয়া৷ খাওয়া দাওয়ায় থাকে খিচুড়ি থেকে বিরিয়ানি, লাবড়া (পাঁচমিশেলি তরকারি), চাটনি, পায়েস, দই-মিষ্টি৷ আর থাকে আমোদপ্রমোদ, হাসি-মজা, আড্ডা৷ সব মিলিয়ে চারটা দিন কীভাবে যে কেটে যায়, সেই আনন্দ অনুভূতিটা স্রেফ দিল্লির বঙ্গসন্তানরাই বোঝেন৷

দিল্লিতে থিম পুজোর পাশাপাশি আছে সাবেকিয়ানার ঐতিহ্য৷ বিশেষ করে পুরানো পুজোগুলিতে৷ যেমন নতুন দিল্লি কালিবাড়ির পুজো৷ একচালার প্রতিমা, মণ্ডপ সজ্জায় বাহুল্য নেই৷

Puja Künstler

দিল্লির প্রাচীনতম পুজো বলতে বোঝায় কাশ্মীরী গেটের পুজো

নতুন দিল্লি কালিবাড়ি পুজো সমিতির সেক্রেটারি স্বপন গাঙ্গুলি ডয়চে ভেলেকে জানালেন, এই পুজো শুরু হয় ১৯৩১ সালে৷ প্রথম বছর থেকে আজ ৮৩ বছর ধরে প্রতিমায় একই রকম সাবেকিয়ানা ধরে রাখা হয়েছে৷ তবে খাওয়াদাওয়া, আমোদ-প্রমোদের কমতি নেই৷ পুজোটা নতুন দিল্লি কালিবাড়ির বলে প্রচুর ভক্ত সমাগম হয়৷ পুজোর জন্য আলাদা বাজেট নেই, কালি মন্দির তহবিল থেকে ব্যয় বহন করা হয়৷

দিল্লির প্রাচীনতম পুজো বলতে বোঝায় কাশ্মীরী গেটের পুজো৷ এ বছর ১০৩ বছরে পড়লো৷ ১৯১০ সালে ইংরেজরা যখন ভারতের রাজধানী কলকাতা থেকে দিল্লিতে সরিয়ে আনে, তখন তার সঙ্গে আসেন সরকারি কর্মচারীরা৷ বাঙালি বাবু, করণিক, অফিসার এবং তাঁদের পরিবার পরিজন৷ তাঁরাই শুরু করে দিল্লির প্রথম দুর্গাপুজো, এমনটাই দাবি পুজো কমিটির৷ পুরানো পুজো বলতে এরপর আছে উত্তর দিল্লির তিমারপুরের পুজো৷ ১০০ বছর পূর্ণ হলো৷ শতবর্ষ পূর্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে পুজো কমিটি মণ্ডপ সজ্জায় রেখেছে রবীন্দ্রনাথের নোবেল পুরস্কার প্রাপ্তি এবং ভারতীয় সিনেমার শতবর্ষপূর্তির বিশেষ গ্যালারি৷ প্রতিমা সাবেকি ধাঁচের৷ আনা হয় গরুর গাড়িতে হাতে করে টেনে৷ এই পুজোর এটাই বিশেষত্ব৷ দিল্লির আরামবাগ পূজা সমিতির এবছর রজত জয়ন্তী৷ এবছরের পূজার থিম বৌদ্ধ ও হিন্দু ধর্মের মহামিলন, যা বহুকাল ধরে, বহু দেশ জুড়ে কালের যাত্রাপথে হাত ধরাধরি কোরে চলেছে৷ এই পূজার উদ্বোধন করেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি আবদুল কালাম৷

জাঁকজমক ও মণ্ডপসজ্জায় সব পুজোকে টেক্কা দেয় দিল্লির চিত্তরঞ্জন পার্কের পুজো৷ সাবেক পূর্ববাংলা থেকে আসা রিফিউজি কলোনি আজ দিল্লির অভিজাত কলোনিগুলির অন্যতম৷ গোটা পাঁচেক পুজো হয়৷ দিল্লির থিম পুজো প্যান্ডেলে বাংলার লোকশিল্পকলার প্রাধান্য চোখে পড়লো৷

Durga Puja in Kalkutta 2013

জাঁকজমক ও মণ্ডপসজ্জায় সব পুজোকে টেক্কা দেয় দিল্লির চিত্তরঞ্জন পার্কের পুজো

পূর্ব দিল্লির মাদার ডেয়ারি রোডে পূর্বাচল পূজা সমিতির দুর্গাপ্রতিমায় আছে লোকসংস্কৃতির ছোঁয়ায় গ্রাম বাংলার মুখ৷ দক্ষিণ দিল্লির দ্বারকার দক্ষিণায়নের পুজায় তুলে ধরা হয়েছে শান্তি ও মৈত্রীর বাণী৷ পুজো কমিটির মতে, দেবী দুর্গা মহিষাসুরকে বধ করে ত্রিলোকে ফিরিয়ে এনেছিলেন শান্তি৷ বর্তমান সহিংসতা ও হানাহানি ভরা বিশ্বে তেমনি আসবে শান্তি ও সম্প্রীতির পরিবেশ৷

দুর্গাপুজা ও উৎসব মরশুমে রাজধানীতে নিরাপত্তায় কোনো খামতি রাখা হয়নি৷ সিসিটিভি থেকে মেটাল ডিটেক্টর, পুলিশ, গোয়েন্দা পুলিশ, টহলদার পুলিশ কোনো কিছু বাদ নেই৷ সর্বজনীন দুর্গা পুজো এখন ছড়িয়ে পড়েছে দিল্লির বাইরে জাতীয় রাজধানী এলাকায়৷ যেমন উত্তর প্রদেশের নয়ডা, গাজিয়াবাদ, গুরগাঁও অঞ্চলেও৷ এছাড়া ভারতের উত্তর-দক্ষিণ, পূর্ব-পশ্চিম প্রায় সব রাজ্যেই এখন দুর্গাপুজোর ধুম৷ এখানেই শেষ নয়, ছড়িয়ে পড়ছে ভারতের বাইরে৷ নেপাল, বাংলাদেশ ছাড়া জার্মানি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, নেদারল্যান্ডস, সিঙ্গাপুর এমনকি মধ্যপ্রাচ্যের অনাবাসিক হিন্দু বাঙালিরা মেতেছে শারদোৎসবে৷ তবে প্রতিবছরের মত এবারো দিল্লিতে প্রতিমা বিসর্জনে যমুনার জল দূষণ নিয়ে সকলেই চিন্তিত৷

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন