দিল্লির আদালতে গ্যাং-ওয়ার, মৃত তিন | বিশ্ব | DW | 24.09.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

দিল্লি

দিল্লির আদালতে গ্যাং-ওয়ার, মৃত তিন

দিল্লির রোহিনি আদালতের ভিতরে দুই দুষ্কৃতীদলের লড়াই। এক কুখ্যাত ডন সহ তিনজনের মৃত্যু।

ডাকাতি, খুন সহ একাধিক অপরাধে জড়িত দিল্লির কুখ্যাত ডন জিতেন্দর গোগি। শুক্রবার তাকে উত্তর দিল্লির রোহিনির আদালতে তোলা হয়। সেখানে আইনজীবীদের পোশাকে হাজির ছিল জিতেন্দরের বিরোধী গোষ্ঠীর দুষ্কৃতীরা। জিতেন্দরকে আদালতে তুলতেই তারা গুলি চালাতে শুরু করে এজলাসের ভিতরে। ঘটনাস্থলেই জিতেন্দরের মৃত্যু হয়। পাল্টা গুলি চালায় আদালতে উপস্থিত নিরাপত্তাকর্মীরা। তাদের গুলিতে বিরোধী গোষ্ঠীর দুই দুষ্কৃতী নিহত হয়েছে বলে প্রথামিক ভাবে পুলিশ জানিয়েছে। সব মিলিয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে বলে এখনো পর্যন্ত জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য, শুক্রবার জিতেন্দরকে তিহার জেল থেকে রোহিনির আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার বিচার চলছিল। দর্শকাসনে কিছু ব্যক্তি বসে ছিলেন। আচমকাই আইনজীবীদের পোশাক পরা কিছু ব্যক্তি জিতেন্দরকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে শুরু করে বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় জিতেন্দরের। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থল ঘিরে ফেলে স্পেশাল সেলের অফিসাররা। দুষ্কৃতীদের লক্ষ্য করে তারাও পাল্টা গুলি চালাতে শুরু করে। আদালত চত্বরে দৌড়াদৌড়ি শুরু হয়ে যায়। কারণ, ওই সময় আদালতের অন্য ঘরগুলিতেও বিচারের কাজ চলছিল। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, গুলির আওয়াজ পেতেই বিভিন্ন ঘর থেকে মানুষ প্রাণ বাঁচাতে বাইরের দিকে ছুটতে শুরু করেন। ততক্ষণে অবশ্য জিতেন্দরের ঘরটি ঘিরে ফেলেছে স্পেশাল ফোর্সের অফিসাররা। তাদের গুলিতে অন্ততপক্ষে দুই বিরোধীপক্ষের দুষ্কৃতীর মৃত্যু হয় বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে। আপাতত গোটা এলাকা ঘিরে রেখেছে পুলিশ।

গোটা ঘটনায় রোহিনি আদালতের নিরাপত্তার ঢিলেঢালা অবস্থা স্পষ্ট হয়ে গেছে। কীভাবে আদালতের ভিতরে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে দুষ্কৃতীরা ঢুকে পড়ল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কারণ, দিল্লির যে কোনো আদালতে ঢোকার জন্য একাধিক নিরাপত্তার বেষ্টনীর ভিতর দিয়ে যেতে হয়। তা হলে কী প্রশাসনের ভিতরের লোকই ওই দুষ্কৃতীদের অস্ত্র নিয়ে ঢুকতে সাহায্য করেছে? সমাজমাধ্যমে এ প্রশ্নও উঠতে শুরু করেছে। 

এসজি/জিএইচ (পিটিআই)