দলের প্রধানের দায়িত্ব ছেড়ে দিচ্ছেন ম্যার্কেল | বিশ্ব | DW | 29.10.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

দলের প্রধানের দায়িত্ব ছেড়ে দিচ্ছেন ম্যার্কেল

জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল তাঁর দল ক্রিস্টিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ইউনিয়ন বা সিডিইউ'র প্রধানের দায়িত্ব ছেড়ে দিচ্ছেন৷

সোমবার প্রথমে বিষয়টি নিয়ে কানাঘুষা চললেও দুপুরের দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন স্বয়ং ম্যার্কেল৷ ১৮ বছর ধরে সিডিইউ প্রধানের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি৷ তবে চ্যান্সেলর হিসেবে এখনই তিনি দায়িত্ব ছাড়তে রাজি নন৷ বরং এ মেয়াদ শেষ করে তবেই অবসরে যাওয়ার কথা ভাবছেন৷ পরবর্তীতে চ্যান্সেলর মেয়াদেও আর লড়বেন না বলে জানিয়েছেন৷ বর্তমান মেয়াদ থাকবে ২০২১ সাল পর্যন্ত৷ 

সম্প্রতি বাভেরিয়া ও গতকাল হেসে নির্বাচনে দলের সমর্থনে বিরাট ধস নামার পরই এমন সিদ্ধান্ত নিলেন ম্যার্কেল৷

মার্চে চতুর্থ মেয়াদে সরকার গঠনের পর থেকেই সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল ম্যার্কেলের সিডিইউ, সহযোগী সিএসইউ ও সামাজিক গণতন্ত্রীদের মহাজোট৷ নানা বিষয়ে দলগুলোর অভ্যন্তরীণ মতপার্থক্য ভাঙ্গনের মতো সংকটও তৈরি করেছে৷ এরই মধ্যে বাভেরিয়া ও হেসে’তে জোটের ভরাডুবির কারণে রীতিমত দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে ম্যার্কেলের৷ 

সেজন্যই তিনি সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে বিশ্লেষকদের মত৷ 

আগামী ডিসেম্বরে দলীয় কংগ্রেসেই দায়িত্ব হস্তান্তরের সম্ভাবনা রয়েছে৷ সোমবার সাংবাদিকদের তিনি বলেন যে, এই দায়িত্ব হস্তান্তরের মধ্যে তিনি কোনো ‘ঝুঁকি’ দেখেন না৷ বরং অনেক সুযোগ তৈরি হচ্ছে বলে মনে করেন৷

ম্যার্কেলের উত্তরসূরী কে হবেন এ প্রশ্ন ঘুরছিল সকাল থেকেই৷ এ পদের জন্য বর্তমান স্বাস্থ্য মন্ত্রী ইয়েন্স স্পান ও দলের সাধারণ সম্পাদক আনেগ্রেট ক্রাম্প-কারেনবাওয়ার এরই মধ্যে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন ম্যার্কেল৷ 

‘‘এখন নতুন অধ্যায় শুরুর সময়,’’ বলেন ম্যার্কেল৷ পরবর্তীতে কে দলের হাল ধরবেন সে বিষয়েও কোনো প্রভাব বিস্তার করবেন না বলে জানিয়েছেন তিনি৷ 

‘‘এটা দলের ভেতরকার সুন্দর একটা পদ্ধতি৷ গত ১৮ বছরে কেউ প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করেননি,’’ বলেন সিডিইউ প্রধান৷ 

এর আগে সোমবার সকালে দলের নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে ম্যার্কেলের দলের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর খবর প্রকাশ করে জার্মান বার্তা সংস্থা ডিপিএ৷ তারা বলে যে, সকালেই সিদ্ধান্তের কথাদলকে জানিয়েছেন ম্যার্কেল৷দৈনিক ‘বিল্ড' পত্রিকা জানায়, ভবিষ্যতে ম্যার্কেল দলের প্রধানের দায়িত্বে আর লড়বেন না৷

চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের পূর্বসুরি সামাজিক গণতন্ত্রীপার্টির সাবেক প্রধান গেয়ারহার্ড শ্রোয়েডার এর আগে ২০০৪ সালে দলের প্রধানের দায়িত্ব থেকে ইস্তফা দেন৷ তবে চ্যান্সেলরের দায়িত্ব ছাড়েননি৷

ম্যার্কেল ২০০০ সাল থেকে সিডিইউ'র নেতৃত্বে আছেন৷ ২০০৫ সালে তিনি প্রথমবার চ্যান্সেলর নির্বাচিত হন৷

জেডএ/এসিবি (ডিপিএ, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন