‘দলীয় হলেও যোগ্য লোককে নিয়োগ দিলে সমস্যা কমবে’ | আলাপ | DW | 27.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সাক্ষাৎকার

‘দলীয় হলেও যোগ্য লোককে নিয়োগ দিলে সমস্যা কমবে’

বাংলাদেশের প্রতিটি সেক্টরে দায়িত্বশীল পদে দলীয় লোক বসানো হয়৷ এটা কতটা যৌক্তিক?

সাবেক মন্ত্রীপরিষদ সচিব ও পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. সা’দত হুসাইন মনে করেন, রাজনৈতিক সরকারের নিয়োগে দলীয় আনুগত্য থাকবে, তবে তার মধ্যে যোগ্য লোককে নিয়োগ দিলে সমস্যা কমবে৷

ডয়চে ভেলে : বর্তমানে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে যে অস্থিরতা চলছে তার পিছনে মূল কারণ কি দলীয় উপাচার্য নিয়োগ?

ড. সা’দত হুসাইন : পলিটিক্যাল গভর্নমেন্টে নিয়োগে দলীয় সংশ্লিষ্টতা থাকবে৷ টোটালি নন পলিটিক্যাল সিদ্ধান্ত হবে এটা আশা করা যায় না৷ কিন্তু আমরা যেটা আশা করি, দলের মধ্যে শিক্ষা-দীক্ষা, আচরণ এবং সর্বোপরি ট্র্যাক রেকর্ড- এই তিনটা জিনিস নিয়ে যাকে উপযুক্ত মনে হয় তাকে নিয়োগ দিতে হবে৷ আমাদের দেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা অ্যালাউড৷ ৭৩-এর অ্যাক্ট অনুযায়ী তো আমাদের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চলে, সেখানেই বলা আছে যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা রাজনৈতিক সংশ্লিষ্ট হতে পারবেন৷ এখন কথা হচ্ছে, যারা নিয়োগ পাচ্ছেন, তারা যে গ্রহণযোগ্য মানুষ, তা নয়৷ তাবেদারি, মোসাহেবি করে অনেকে নিয়োগ পাচ্ছেন৷ যিনি নিয়োগ পাচ্ছেন তিনিও দলের লোক৷ কিন্তু দলের মধ্যেই হয়ত তার চেয়ে অধিক যোগ্য লোক আছেন৷ সেই লোকগুলো হয়ত এই ধরনের তাবেদারি করে না৷ ফলে তারা নিয়োগ পান না৷ ফলে যারা নিয়োগ পাচ্ছেন, তারা বিভিন্ন জায়গায় সমস্যার সৃষ্টি করছেন৷

শুধু বিশ্ববিদ্যালয় নয়, বিভিন্ন জায়গায় দক্ষ লোকের পরিবর্তে দলীয় লোক বসানোর প্রবণতা  দেখা যায় কেন?

এটা আমাদের এখানে বলেন আর ভারতে বলেন, একটা রাজনৈতিক দল ক্ষমতায় এলে নেতাদের পছন্দের লোকই নিয়োগ পাবে৷ হয়ত সেখানে হালকা দলীয় আনুগত্যের বিষয়টি ফ্যাক্টর হিসেবে আসে৷ যেসব সরকার সুশাসনে বিশ্বাস করে, অর্গ্যানাইজেশন ভালোভাবে চালাতে চায়, তারা দলের মধ্যে সবচেয়ে উপযুক্ত ব্যক্তিকে সিলেক্ট করে৷ আর যারা পুরোটাই দলীয়করণে বিশ্বাস করে, তারা দলকানা টাইপের লোকদের নিয়োগ দেয়৷ এদের কারণে মূলত সমস্যাগুলোর সৃষ্টি হয়৷

এই কাজটা যে শুধু বর্তমান সরকারের আমলে হচ্ছে তা নয়, অতীতেও আমরা এমন অবস্থা দেখেছি...

অডিও শুনুন 07:20

রাজনৈতিক সরকার ক্ষমতায় এলে রাজনৈতিক লোকই নিয়োগ পান: ড. সা’দত হুসাইন

আমি কিন্তু একবারও বলিনি এটা বর্তমান সরকারের আমলে হয়৷ রাজনৈতিক সরকার ক্ষমতায় এলে রাজনৈতিক লোকই নিয়োগ পান৷ আর্মি সরকার এলে তাদের পছন্দের লোকজনই আসে৷ যার হাতে ক্ষমতা, সে-ই পছন্দের লোক নিয়োগ দেন৷ আর রাজনৈতিক সরকারের লোকজন তো বেশি৷ আজকাল সব জায়গাতে পালিটিক্যাল গ্রুপ আছে৷ তাদেরই নিয়োগ হয়৷

দলীয় লোক বসানোর কি কোনো ভালো দিক আছে?

রাজনৈতিক সরকারের দলীয় লোক বসানোর একটা চাপ থাকবে৷ বিভিন্ন পেশায় যারা দল করে তাদের মূল উদ্দেশ্য কী? তাদের পছন্দের সরকার যখন আসবে, তখন তারা চাকরি পাবে, এই তো৷ তাদের তো দেশ উদ্ধারের দায়িত্ব না৷ সুবিধা পাওয়ার জন্যই তো সে দল করে৷

দলীয় হলেই মেধাবী নন, এমনটি  যে ভাবা হয় এর কারণ কী?

এটা ভুল ধারণা৷ আমি যেসব জায়গায় দায়িত্ব পালন করেছি, সেখানে দেখেছি, দলীয়ভাবে নিয়োগ পেয়েছেন কিন্তু তারা গ্রহণযোগ্য ও মানসম্পন্নভাবেই কাজ করেছে৷ তারা দলকানা হিসেবে কাজ করেনি৷

অনেক সময় আমরা দেখি, ভালো লোক এসব পদে আসতে চান না৷ এর কারণ কী?

আছেন, এমন লোকও আছেন৷ যারা নীতিবান, তারা এসব দায়িত্ব নিতে চান না৷ তবে এই সংখ্যাটা খুব বেশি না৷ কারণ, আপনার দল করার মৌলিক বিষয়টা হচ্ছে আপনি দল করবেন আপনার পছন্দের সরকার যখন ক্ষমতায় আসবে, তখন আপনি কিছু সুযোগ সুবিধা পাবেন৷

এদের অনেকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্তের কথা শোনা যায়৷ কিন্তু কাউকে দায়ী করে কখনো শাস্তি হতে দেখি না৷ এর কারণ কী?

দলীয় লোকদের ব্যাপারে কিছু দুর্বলতা তো থাকেই৷ অ্যামেরিকান একজন ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, ‘‘আমি জানি সে বাস্টার্ড, কিন্তু সে আমাদের বাস্টার্ড৷'' দলীয় লোক হলে তো তাকে সহজে ধরবে না৷ একটা পর্যায়ে লিমিট ক্রস করে গেলে হয়ত তাকে ধরা হয়৷ বাংলাদেশে এমনটা আগেও হয়েছে৷

দলীয় নিয়োগের দুষ্টচক্র থেকে বের হয়ে আসতে কী কী পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে বলে মনে করেন?

 দলীয় সরকারের নিয়োগে পলিটিক্যাল ফ্যাক্টর থাকবে৷ পলিটিক্যাল টাচ থাকবে৷ অযোগ্য লোকের যেন নিয়োগ না হয়, সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে৷ নীতিনির্ধারকদেরও সতর্ক থাকতে হবে৷ সময় নিয়ে সতর্ক দৃষ্টিতে পর্যবেক্ষণ করে তার রেকর্ড ভালো করে দেখে নিয়োগ দিতে হবে৷ আমি মনে করি, পলিটিক্যাল টাচ থাকা অন্যায় কিছু না, তবে তার মধ্যে উপযুক্ত লোককে নিয়োগ দিতে হবে৷ 

ড. সা’দত হুসাইনের সাক্ষাৎকারটি নিয়ে আপনার মতামত জানান নীচের ঘরে৷ 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন