দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি উন্নতি করেছে, তবে... | বিশ্ব | DW | 31.05.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি উন্নতি করেছে, তবে...

বিশ্বের অর্ধেকের বেশি শিশু সংঘাত, দরিদ্রতা ও মেয়েদের বিরুদ্ধে বৈষম্য– এই তিন হুমকির যে কোনো একটির ঝুঁকিতে আছে৷ ফলে তারা ‘হঠাৎ শৈশব হারিয়ে যাওয়ার' হুমকিতে আছে বলে জানিয়েছে ‘সেভ দ্য চিলড্রেন’৷

শিশুদের নিয়ে কাজ করা সংস্থাটি বুধবার ‘মেনি ফেসেস অফ এক্সক্লুশন’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে৷ এতে ১৭৫টি দেশের তালিকা তৈরি করা হয়৷ শিশুশ্রম, শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হওয়া, বাল্যবিবাহ এবং অল্পবয়সে গর্ভবতী হওয়া– এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে দেশগুলোর ব়্যাংকিং করা হয়৷

তালিকায় বাংলাদেশ আছে ১৩০ নম্বরে৷ দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশের মধ্যে ভারত আছে ১১৩ নম্বরে, পাকিস্তান ১৪৯, শ্রীলঙ্কা ৬০, ভুটান ৯৮, মালদ্বীপ ৫২, নেপাল ১৩৮ ও আফগানিস্তান ১৬০ নম্বরে৷

তবে সেভ দ্য চিলড্রেন বাংলাদেশ জানিয়েছে, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি উন্নতি করেছে, কারণ, এখন আরও বেশি সংখ্যক শিশু স্কুলে যাচ্ছে৷ তবে শিশু, বিশেষ করে প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষার ব্যাপারে আরও কিছু করা সম্ভব বলে জানিয়েছে সংস্থাটি৷ তাদের হিসেবে, বাংলাদেশের ১৮ দশমিক ৪ শতাংশ শিশু এখনও স্কুল শিক্ষার বাইরে আছে৷ আর বাংলাদেশে শিশু শ্রমের হার ৪ দশমিক ৩ শতাংশ ও বাল্যবিয়ের হার ৪৪ দশমিক ২ শতাংশ বলে জানিয়েছে তারা৷ পাঁচ বছরের নীচে শিশু মৃত্যুর সংখ্যা প্রতি এক হাজারে ৩৪ দশমিক ২ জন৷

বিশ্ব পরিস্থিতি

প্রতিবেদন বলছে, তালিকার নীচের দিকে থাকা দেশগুলোর বেশিরভাগ মধ্য ও পশ্চিম আফ্রিকার৷ নাইজারের নাম আছে তালিকার একেবারে শেষে৷ তার আগে আছে মালি ও সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের নাম৷ ‘‘এসব দেশের শিশুদের শৈশব পুরোপুরি উপভোগ করার সম্ভাবনা কম,’’ বলছে প্রতিবেদন৷

এদিকে তালিকার উপর যৌথভাবে আছে সিঙ্গাপুর ও স্লোভেনিয়া৷ জার্মানি আছে ১২ নম্বরে, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার অবস্থান যথাক্রমে ৩৬ ও ৩৭-এ৷

১৭৫টি দেশের মধ্যে ৯৫টি দেশ তিনটি ঝুঁকির অন্তত একটিতে উন্নতি করেছে৷ আর ২০টি দেশের শিশুরা ঐ তিন হুমকির সবগুলোরই মুখোমুখি হচ্ছে৷

বিশ্বব্যাপী শিশুদের পরিস্থিতি উন্নয়নের লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহায়তা চেয়েছে সেভ দ্য চিলড্রেন৷ এক্ষেত্রে দেশগুলোকে এসডিজি (টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা) পূরণে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়েছে৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, সেভ দ্য চিলড্রন বাংলাদেশ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন