তুর্কি সন্ত্রাসীকে হস্তান্তর না করায় জার্মানির সমালোচনা | বিশ্ব | DW | 08.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সন্ত্রাসবাদ

তুর্কি সন্ত্রাসীকে হস্তান্তর না করায় জার্মানির সমালোচনা

সাজাপ্রাপ্ত এক সন্ত্রাসীকে দেশে ফেরানোর বিষয়ে জার্মান সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র৷ আদেম ইলমাস নামের তুরস্কের এক নাগরিককে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার দায়ে সাজাভোগের পর তুরস্কে ফেরত পাঠায় জার্মানি৷

অনুরোধ করা সত্ত্বেও ইলমাসকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তর না করায় জার্মান সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷

বিষয়টিকে ‘হতাশাজনক’ উল্লেখ করে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল ম্যাথু হুইটেকার এক বিবৃতিতে বলেন, জার্মান সরকার ইচ্ছাপূর্বক ইলমাসকে বিচারের মুখোমুখি হতে দেয়নি৷ ইলমাসকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে না দেয়ার বিষয়টিকে তিনি আইনের শাসনের ব্যত্যয় বলে মনে করেন৷

২০০৭ সালে জার্মানিতে মার্কিন নাগরিকদের উপর ও দেশটির অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় হামলা চালানোর অভিযোগ প্রমাণিত হলে ইলমাসকে ১১ বছরের সাজা প্রদান করে আদালত৷ সাজার মেয়াদ শেষ হলে গত মঙ্গলবার তাঁকে তুরস্কে ফেরত পাঠানো হয়৷

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালতে ইলমাসের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালে পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা সদস্যদের উপর হামলা চালিয়ে দু’জন সেনা হত্যার অভিযোগ আনা হয়৷ এ অভিযোগে নিউইয়র্কের এক আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলে যুক্তরাষ্ট্র সরকার জার্মান সরকারের কাছে ইলমাসকে হস্তান্তর করার অনুরোধ জানায়৷ ইসলামিক জিহাদ ইউনিয়ন নামের একটি ইসলামী উগ্রপস্থি সংগঠনের সদস্য ইলমাসের বিরুদ্ধে ২০০৬ সালে পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা সদস্যদের উপর হামলার অভিযোগও রয়েছে৷

যুক্তরাষ্ট্রের এ প্রতিক্রিয়ায় জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, সব ধরনের আইনি প্রক্রিয়া মেনেই ইলমাসকে তুরস্কে ফেরত পাঠানো হয়েছে৷

এদিকে বিমানবন্দরে নামার পরই ইলমাসকে আটক করেছে তুরস্কের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা৷ ইলমাসের বিরুদ্ধে তুরস্ক কর্তৃপক্ষ নতুন করে কোনো অভিযোগ আনবে কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷

আরআর/এসিবি (এএফপি, এপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন