তুরস্কে আরো দু′জন জার্মান গ্রেপ্তার | বিশ্ব | DW | 01.09.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি-তুরস্ক

তুরস্কে আরো দু'জন জার্মান গ্রেপ্তার

দৃশ্যত ‘রাজনৈতিক অভিযোগে' ঐ দু'জন জার্মান নাগরিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, বলে বার্লিনের পররাষ্ট্র দপ্তরের এক মুখপাত্রী জানিয়েছেন৷ ধৃতদের সঙ্গে যোগাযোগ করা এ পর্যন্ত সম্ভব হয়নি৷

সংশ্লিষ্ট দু'জন জার্মানকে বৃহস্পতিবারেই আন্টালিয়া বিমানবন্দরে গ্রেপ্তার করা হয়, বলে জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রী মারিয়া আডেবার বার্লিনে জানিয়েছেন৷ দৃশ্যত বেসরকারি সূত্র থেকে ইজমির-এর জার্মান কনস্যুলেটকে ঐ দু'জন জার্মানের গ্রেপ্তারের খবর জানানো হয়৷ পরে কনস্যুলেট থেকে বিমানবন্দরে ফোন করা হলে এয়ারপোর্ট পুলিশ গ্রেপ্তারির কথা স্বীকার করে৷

গ্রেপ্তারকৃতদের যে শুধুমাত্র জার্মান নাগরিকত্ব আছে, তাও দৃশ্যত নিশ্চিত করা সম্ভব হয়েছে৷ তবে তাদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলা প্রাথমিকভাবে সম্ভব হয়নি, বলে জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রী জানান৷ জার্মান সরকার গ্রেপ্তারকৃতদের সঙ্গে যোগাযোগ ও কনস্যুলেটের মাধ্যমে তাদের দেখাশুনার উদ্যোগ নিচ্ছেন, বলে আডেবার যোগ করেন৷

তুরস্কে ৫৫ জন জার্মান কারারুদ্ধ

‘‘গ্রেপ্তারির কারণ কোনো রাজনৈতিক অভিযোগ বলে আমাদের ধরে নিতে হবে'', আডেবার মন্তব্য করেন৷ ২০১৬ সালের জুলাই মাসে একটি সামরিক অভ্যুত্থানের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়া যাবৎ তুরস্কে হাজার হাজার মানুষকে একটি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনকে মদত দেওয়ার দায়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷

জার্মান পররাষ্ট্র দপ্তরের বিবৃতি অনুযায়ী, বর্তমানে তুরস্কে ৫৫ জন জার্মান নাগরিক কারারুদ্ধ অবস্থায় রয়েছেন; বৃহস্পতিবারের দু'জনকে ধরলে, তাদের মধ্যে ১২ জনকে রাজনৈতিক কারণে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ সংশ্লিষ্ট ১২ জনের মধ্যে অন্তত চারজনের দ্বিবিধ নাগরিকত্ব – অর্থাৎ জার্মান ও তুর্কি, উভয় নাগরিকত্ব আছে, বলে আডেবার জানান৷

ডেনিজ ইউচেল গত ২০০ দিন ধরে আটক

জার্মান-তুর্কি সাংবাদিক ডেনিজ ইউচেলের তুর্কি কারাগারে ২০০ দিন উপলক্ষ্যে জার্মান সরকারের মুখপাত্র স্টেফেন সাইব্যার্ট তুর্কি নেতৃত্বের প্রতি নীতি পরিবর্তনের আহ্বান জানিয়েছেন৷ ‘‘তুরস্কের প্রতি আমাদের দাবি স্পষ্ট: জার্মান নাগরিকদের ছেড়ে দেওয়া হবে, বলে আমরা তুরস্কের কাছ থেকে প্রত্যাশা করি'', বলেন সাইব্যার্ট৷ এছাড়া সাইব্যার্ট তুরস্কের তরফে ভিয়েনা চুক্তি লঙ্ঘনের সমালোচনা করেন, কেননা জার্মান সরকার বহু সপ্তাহ ধরে অভিযোগ করে আসছেন যে, জার্মান সরকারের প্রতিনিধিদের গ্রেপ্তারকৃত জার্মান নাগরিকদের সঙ্গে বিনা বাধায় সাক্ষাৎ করার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না৷

এসি/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন