তিমি মাছেরা চটুল গান ভালোবাসে | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 15.04.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

তিমি মাছেরা চটুল গান ভালোবাসে

‘হাম্পব্যাক হোয়েল’ বা কুঁজওয়ালা তিমি মাছেরাও হিট গান পছন্দ করে৷ প্রতিবছর নাকি এই ধরণের একটি হিট গান অথবা সুর কুঁজওয়ালা পুরুষ তিমিদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে৷ তারা সেটা গোটা দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগর জুড়ে গেয়ে বেড়ায়৷

default

তিমি মাছেরা গান ভালোবাসে

কুঁজওয়ালা তিমিদের মধ্যে একমাত্র পুরুষরাই গেয়ে থাকে, মহিলা তিমিদের মন জয় করার আশায়৷ কিন্তু মজা হল এই যে, বংশাবলীর বিচারে যে সব তিমি গোষ্ঠীরা সম্পূর্ণ অনাত্মীয়, তাদের পুরুষদেরও ঐ একই হিট সুর গাইতে শোনা যায় একেবারে অস্ট্রেলিয়া থেকে ফরাসি পলিনেশিয়া অবধি৷ স্বভাবতই, সকলেরই গান গাওয়াটা চলে সাথী খোঁজার মরশুমে৷

জীববিদ্যা সংক্রান্ত মার্কিন পত্রিকা ‘কারেন্ট বায়োলজি'-তে এক অস্ট্রেলীয় গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে৷ তা'তে বলা হয়েছে যে, তিমি মাছদের মধ্যে কিং অফ পপ বলে যদি কেউ থাকে, তবে তার বাস সম্ভবত অস্ট্রেলিয়ার পূর্ব উপকূলে৷ কেননা গত দশ বছর ধরে তিমিদের সব হিট সুর ঠিক ঐ এলাকা থেকেই বেরিয়েছে৷

Walfang Flash-Galerie

কুঁজওয়ালা তিমিদের মধ্যে একমাত্র পুরুষরাই গেয়ে থাকে, মহিলা তিমিদের মন জয় করার আশায়

মনুষ্যজগতের হিট গানের মতোই, তিমিদের হিট সুরও হয় সহজ সরল৷ তা'তে বিশেষ কোনো প্যাঁচ কি কারিকুরি থাকে না৷ আবার দেখা যায়, হঠাৎ হয়তো কোনো তিমি চলতি হিট সুরটা ছেড়ে সম্পূর্ণ নতুন ধরণের একটা সুর গাইছে৷ যার একটা অর্থ হতে পারে যে, সেই তিমি তরুণীদের বলছে, দ্যাখো, আমি অন্যদের মতো নই, আমি আলাদা৷

তিমিদের গোলমাল তো এক নয়, অনেক৷ টন টন ওজন, ধরিত্রীর বৃহত্তম জীব৷ বলা হয় মাছ, অথচ স্তন্যপায়ী৷ তার ওপর আবার এই গান, যেন পাখি৷ এবং বিরাট একটা ভৌগোলিক এলাকা জুড়ে এই যে গতিশীল সাংস্কৃতিক পরিবর্তনের নিদর্শন, তিমি শ্রবণেন্দ্রিয়ের পক্ষে সুখদায়ক এই হিট সুর: এর থেকে প্রমাণ হয় যে মানব সংস্কৃতি থেকেও তিমিরা বড় বেশি দূরে নয়৷

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: আরাফাতুল ইসলাম

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন