তিনি নিরপরাধ, মুখ খুললেন উহানের ভাইরোলজিস্ট | বিশ্ব | DW | 16.06.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

করোনা ভাইরাস

তিনি নিরপরাধ, মুখ খুললেন উহানের ভাইরোলজিস্ট

উহানের ল্যাব থেকে করোনা ছড়ায়নি। দাবি গবেষণাগারের ভাইরোলজিস্টের। টিকাকরণে জোর ভারতের। জাপান টিকা পাঠাচ্ছে ভিয়েতনামকে।

গোটা পৃথিবী তার দিকে আঙুল তুলে রেখেছে। এবার মুখ খুললেন তিনি। উহানের গবেষণাগারের বিজ্ঞানী জানালেন, তার ল্যাবরেটরি থেকে করোনা ভাইরাস ছড়ায়নি। এ কথা প্রমাণ হওয়া সত্ত্বেও সকলে তার দিকে আঙুল তুলছেন। একটি পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ভাইরোলজিস্ট বলেছেন, তিনি নিরপরাধ।

করোনা ভাইরাস প্রথম ছড়িয়ে পড়েছিল চীনের উহানে। কয়েকমাসের মধ্যে তা ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। প্রথম থেকেই কোনো কোনো বিশেষজ্ঞ বলছিলেন, উহানের একটি ল্যাব থেকে ভাইরাস ছড়িয়েছে। কারণ সেখানে সার্স জাতীয় ভাইরাস নিয়ে গবেষণা চলছিল। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পও একাধিকবার এ বিষয়ে অভিযোগ করেছিলেন।

যে ভাইরোলজিস্টের গবেষণা নিয়ে এত অভিযোগ, তার নাম শি জেংলি। সম্প্রতি নিউ ইয়র্ক টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ''প্রমাণ হয়ে গেছে, উহানের ল্যাবরেটরি থেকে করোনা ছড়ায়নি। তারপরেও সকলে আমার দিকে আঙুল তুলছেন। এটা ঠিক নয়। আমি নিরপরাধ।''

ভাইরোলজিস্ট বললেও, গবেষণাগার থেকে করোনা ছড়ানোর তত্ত্বটি এখনো সম্পূর্ণ ভাবে ভুল প্রমাণিত হয়নি। বহু গবেষক এখনো ওই মতের পক্ষে প্রমাণ দিচ্ছেন। বাইডেন প্রশাসনও বিষয়টি নিয়ে নতুন করে তদন্ত শুরু করেছে। চীন অবশ্য প্রথম থেকেই এ বিষয়ে দ্বিমত পোষণ করছিল। কিছুদিন আগেও তত্ত্বটিকে অবাস্তব বলে দাবি করেছে তারা। তবে ভাইরোলজিস্ট বহুদিন মুখ খোলেননি। সম্প্রতি তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে শুরু করেছেন।

ভিয়েতনাম এবং জাপান

এ দিকে ভিয়েতনামে নতুন করে করোনার প্রকোপ শুরু হয়েছে। জাপান ভিয়েতনামকে ১০ লাখ ভ্যাকসিন পাঠাচ্ছে বলে জানিয়েছে। জাপানেও দ্রুত ভ্যাকসিনেশনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। অলিম্পিকের সঙ্গে যুক্ত ৪০ হাজার কর্মীকে এর মধ্যেই টিকা দেওয়া হয়েছে। আর ৩০ হাজার কর্মীকে কয়েকদিনের মধ্যেই টিকা দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। যদিও এখনো দেশের ভিতর অলিম্পিকের বিরোধিতা করছেন বহু মানুষ।

ভারতের পরিস্থিতি

ভারতে করোনা পরিস্থিতি সামান্য আশার আলো জ্বালিয়েছে। দৈনিক সংক্রমণ ৬০ হাজারে নেমে এসেছে। তবে ভ্যাকসিন যে ভাবে দেওয়া হচ্ছে, তাতে সকলের টিকা পেতে কয়েক বছর লেগে যাবে। বিষয়টি বুঝতে পেরেছে সরকারও। আগামী কিছুদিন টিকাকরণের বিশেষ ড্রাইভ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। টিকাকরণে গতি আনতে চাইছে প্রশাসন।

এরই মধ্যে খুলে দেওয়া হয়েছে তাজমহল, লালকেল্লা, অজন্তার গুহা। তবে দর্শনার্থীদের নিয়ম মেনে প্রবেশ করতে হবে। দৈনিক দর্শকের সংখ্যাও বেঁধে দেওয়া হয়েছে।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, পিটিআই)

সংশ্লিষ্ট বিষয়