তালেবান বন্দিদের মুক্তি দিচ্ছে আফগানিস্তান | মিডিয়া সেন্টার | DW | 25.05.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তান

তালেবান বন্দিদের মুক্তি দিচ্ছে আফগানিস্তান

ঈদ উপলক্ষ্যে তিন দিনের যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করায় খুশি হয়ে দুই হাজার তালেবান কারাবন্দিকে মুক্তির দিচ্ছে আফগানিস্তান সরকার৷

প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির এ ঘোষণা ইন্ট্রা-আফগান আলোচনার পথ খুলবে বলে আশা করা হচ্ছে৷

মুসলমানদের বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উপলক্ষে্য আফগান তালেবান গত শনিবার থেকে তিন দিনের যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে৷ তার পরদিন ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে দুই হাজার তালেবান বন্দিকে মুক্তির পরিকল্পনা দ্রুত কার্যকরের ঘোষণা দেন ঘানি

তালেবানরা যুদ্ধবিরতির প্রথমদিন তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছে৷  সেদিন দেশটির কোথাও তালেবান ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে যুদ্ধ হয়নি৷ ঈদের দিনের শুভেচ্ছা ভাষণে তালেবান বন্দিদের মুক্তির ঘোষণা দিয়ে ঘানি বলেন, ‘‘সরকার সফলভাবে দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রক্রিয়া নিশ্চিত করতে পদক্ষেপ গ্রহণ অব্যাহত রাখবে৷'‘

তিনি তালেবানের হাতে বন্দি আফগান নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যদের দ্রুত মুক্তি দেওয়ার আহ্বানও জানান৷

গনির এ ঘোষণাকে ‘ভালো পদক্ষেপ‘ বলে উল্লেখ করলেও তালেবান মুখপাত্র কিছুটা অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, দোহায় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যে চুক্তি হয়েছে তাতে ‘পাঁচ হাজার বন্দিকে মুক্তি দেওয়ার' কথা বলা হয়েছিল৷

‘‘ইন্ট্রা-আফগান আলোচনার পথে অগ্রসর হওয়ার এবং ভবিষ্যতের চলার পথ নির্ধারণ করতে যেসব বাধা আছে সেগুলি সরিয়ে ফেলতে দোহা চুক্তির সব শর্ত পূরণ হওয়া জরুরি৷''

গত ২৯ ফেব্রুয়ারি কাতারের মধ্যস্থতায় দোহায় যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যে যে চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে তাতে পাঁচ হাজার তালেবান যোদ্ধাকে মুক্তির বিনিময়ে দলটি তাদের হাতে বন্দি আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর  এক হাজার সদস্যকে মুক্তি দিতে রাজি হয়েছে৷

চুক্তির পর আফগান সরকার প্রাথমিকভাবে এক হাজার তালেবান যোদ্ধাকে মুক্তি দিয়েছিল৷ কিন্তু দেশজুড়ে তালেবান হামলা বেড়ে যাওয়ায় বন্দি মুক্তি কার্যক্রম স্থগিত করা হয়৷

বিশেষজ্ঞদের আশা, ঈদ উপলক্ষে যুদ্ধবিরতি আফগান সরকার ও তালেবানদের মধ্যে শান্তি আলোচনা শুরুর মঞ্চ তৈরি করে দিয়েছে৷

প্রেসিডেন্ট গনিও বলেছেন, সরকারি প্রতিনিধিরা তালেবানের সঙ্গে ‘যেকোনো সময় শান্তি আলোচনা শুরু করতে প্রস্তুত' আছে৷ যুক্তরাষ্ট্রও এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে

দেখতে পারেন গত বছরের এ ছবিঘরটি

এসএনএল (ডিপিএ, এএফপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়