তালিবানের চেয়ে সাধারণ মানুষই বেশি মারছে সরকারি বাহিনী, ন্যাটো | বিশ্ব | DW | 24.04.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তান

তালিবানের চেয়ে সাধারণ মানুষই বেশি মারছে সরকারি বাহিনী, ন্যাটো

আফগানিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী ও ন্যাটোর অভিযানে তালিবানসহ অন্যান্য জঙ্গিগোষ্ঠীর সদস্যদের চেয়ে সাধারণ মানুষই বেশি মারা যাচ্ছে৷ জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে৷

এতে বলা হয়, চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে আফগান বাহিনী ও সেখানে দায়িত্বরত ন্যাটো সেনাদের হামলায় জঙ্গিগোষ্ঠীর সদস্যদের চেয়ে সাধারণ মানুষের নিহত হওয়ার সংখ্যা বেশি৷

তবে এ ধরনের ঘটনা এবছরই প্রথম ঘটেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ৷

প্রতিবেদন বলছে, চলতি বছরের প্রথম তিনমাসে দেশটিতে নিয়োজিত নিরাপত্তারক্ষীদের হাতে মোট ৩০৫ জন সাধারণ মানুষ নিহত হয়েছে৷ এই সময়ে নিহত  তালিবানের সংখ্যা ছিল ২২৭ জন৷

জাতিসংঘের প্রতিবেদনে নিরাপত্তা বাহিনীর বিমান হামলাকে সাধারণ মানুষের নিহত হওয়ার অন্যতম কারণ বলে দায়ী করা হয়েছে৷ নিহতদের অর্ধেকই নারী ও শিশু বলে জানিয়েছে সংস্থাটি৷

তবে দেশটিতে নিরাপত্তা বাহিনীর হামলায় হতাহতের সংখ্যা অনেক কমে এসেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ৷ প্রতিবেদন বলছে, চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে নিরাপত্তার বাহিনীর হামলায় নিহত হয়েছেন মোট পাঁচশ ৮১ জন, আর আহত হয়েছেন এক হাজার ১৯২ জন৷ এ সংখ্যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ২৩ ভাগ কম বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ৷

তবে দেশটিতে আত্মঘাতী হামলার সংখ্যা কমে আসায় গত বছরের তুলনায় এ বছর হতাহতের সংখ্যা কমেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ আত্মঘাতী হামলার সংখ্যা গত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ছিল ২০১৮ সালে৷ গত বছরের জানুয়ারি মাসে শুধুমাত্র একটি আত্মঘাতী হামলায় অন্তত ১০০ জন নিহত হয়েছিল৷ তবে কী কারণে এ বছর হামলার সংখ্যা কমেছে, সে বিষয়ে নিশ্চিত নয় জাতিসংঘ৷

সংস্থাটি বলছে দেশটিতে বিরাজমান বিরূপ আবহাওয়ার কারণে কিংবা  যুক্তরাষ্ট্রের সাথে তালিবানের শান্তি আলোচনা চলছে বলে সাধারণ মানুষের উপর হামলা থেকে কিছুটা বিরত রয়েছে তারা৷

তদন্ত দাবি

নিরাপত্তা বাহিনীর হামলায় সাধারণ মানুষের নিহত হওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের আফগানিস্তান সহযোগিতা বিষয়ক মিশন৷ তারা এসব ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তেরও দাবি জানিয়েছে৷ এক বিবৃতিতে মিশনটি আফগানিস্তানে নিয়োজিত ন্যাটো ও দেশটির নিজস্ব নিরাপত্তা বাহিনীকে এ বিষয়ে পূর্ণ তদন্ত করে যথাযথ প্রতিবেদন প্রকাশের আহ্বান জানায়৷ হতাহতদের ক্ষতিপূরণ দেয়ার দাবিও জানিয়েছে তারা৷

রিচার্ড কনর/আরআর

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন