ডয়চে ভেলে, বিবিসির সম্প্রচার বন্ধ করলো তালেবান | বিশ্ব | DW | 28.03.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তান

ডয়চে ভেলে, বিবিসির সম্প্রচার বন্ধ করলো তালেবান

আফগানিস্তানে ডয়চে ভেলেসহ বিভিন্ন বিদেশি গণমাধ্যমের সম্প্রচার বন্ধ করে দিচ্ছে তালেবান৷ ডয়চে ভেলের দারি ও পাশতু ভাষার সম্প্রচার সহযোগীদের অনুষ্ঠান প্রচার বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে৷

আফগানিস্তানে বিবিসির তিনটি ভাষায় সম্প্রচার বন্ধ।

আফগানিস্তানে বিবিসির তিনটি ভাষায় সম্প্রচার বন্ধ।

সোমবার ডয়চে ভেলের আফগান সার্ভিস জানিয়েছে, ডয়চে ভেলের বেশ কিছু অনুষ্ঠান আফগানিস্তানে সম্প্রচার করা হবে না বলে জানিয়েছে সহযোগীরা৷ এর মধ্যে রয়েছে টোলোনিউজের সম্প্রচার করা রাজনৈতিক টক শো ‘আশতি’৷ এছাড়াও আরিয়ানা টিভি ও শামশাদ প্রচারিত বিজ্ঞানভিত্তিক সাময়িকীর সম্প্রচারেও বাধা দেয়া হচ্ছে৷

ডয়চে ভেলের মহাপরিচালক পিটার লিমবুর্গ বলেন, ‘‘আফগানিস্তানে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতার উপর ক্রমাগত বাধা দেয়া খুবই উদ্বেগজনক৷’’ তিনি আরো বলেন, ‘‘তালেবানরা এখন আমাদের গণমাধ্যম অংশীদারদের মাধ্যমে ডিডব্লিউ প্রোগ্রাম সম্প্রচারকেও অপরাধের আওতায় ফেলছে, যা আফগানিস্তানের ইতিবাচক উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করছে৷ এর জন্য মুক্ত গণমাধ্যম অপরিহার্য এবং আমরা ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আফগানিস্তানের জনগণকে স্বাধীন তথ্য সরবরাহ অব্যাহত রাখতে যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাব৷’’

এদিকে তিনটি ভাষায় তাদের বুলেটিন বন্ধ করে দিয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি৷ একই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে ভয়েস অফ অ্যামেরিকার বিরুদ্ধেও।

বিবিসি জানিয়েছে, তাদের উজবেক, পারসি এবং পাস্তো ভাষার বুলেটিন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তালেবান সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

রোববার এই ঘোষণা দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, আফগানিস্তানের মানুষ যখন অনিশ্চয়তা ও সংকটের মধ্যে আছেন, তখন এই সিদ্ধান্ত খুবই উদ্বেগজনক।

বিবিসি-র বক্তব্য

বিবিসি জানিয়েছে, আফগানদের স্বাধীন সাংবাদিকতা থেকে বঞ্চিত করা উচিত নয়। বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিসের তরফে তারিক কাফালা জানিয়েছেন, ৬০ লাখেরও বেশি আফগান বিবিসি-র স্বাধীন ও পক্ষপাতহীন সাংবাদিকতার গুণগ্রাহী ছিলেন। তারা এখন সেই সাংবাদিকতা থেকে বঞ্চিত হবেন।

বিবিসি-র অ্যাংকর ও সাংবাদিক ইয়ালডা হাকিম কাফালার একটি বিবৃতি টুইট করেছেন। সেখানে বলা হয়েছে, ''আমরা তালেবানকে এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার জন্য বলছি। তারা যেন অবিলম্বে আমাদের টিভি পার্টনারদের বিবিসি-র নিউজ বুলেটিন দেখানোর সুযোগ করে দেয়।''

ভয়েস অফ অ্যামেরিকাও বন্ধ

জার্মান সংবাদসংস্থা ডিপিএ আফগান মিডিয়া কোম্পানি মবি গ্রুপকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, তালেবান গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট পাওয়ার পর ভয়েস অফ অ্যামেরিকার সম্প্রচারও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল হামিদ হাম্মাদও তা স্বীকার করেছেন।

২০২১ সালের অগাস্টে তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর বহু সাংবাদিক দেশ ছেড়ে চলে যান। কিন্তু তারপরেও সম্প্রচার বন্ধ করা হয়নি। সম্প্রতি তালেবান মেয়েদের জন্য সেকেন্ডারি স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে যায়। তারপরই এই সম্প্রচার বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হলো।

জিএইচ/এসজি (এএফপি, ডিপিএ)