1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
ডোকলাম
ছবি: Thomas L Kelly/robertharding/picture alliance

ডোকলামে চীনের গ্রাম, চিন্তায় ভারত

২০ জুলাই ২০২২

ভারত-চীন সীমান্তে ভুটানের ডোকলামের কাছে চীনের সামরিক কাঠামোর উপগ্রহ চিত্র সামনে এসেছে। এর ফলে চীন সামরিক সুবিধা পেতে পারে।

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%A1%E0%A7%8B%E0%A6%95%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%AE%E0%A7%87-%E0%A6%9A%E0%A7%80%E0%A6%A8%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%AE-%E0%A6%9A%E0%A6%BF%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%AD%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A6%A4/a-62535630

নতুন উপগ্রহ চিত্র হাতে এসেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের হাতে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ভারত-চীন সীমান্তে ভুটানের ডোকলাম পাসের কাছে আস্ত একটি গ্রাম তৈরি করে ফেলেছে চীন। তার পাশ দিয়ে একটি বাইপাস রাস্তাও তৈরি করছে তারা। ওই রাস্তা দিয়ে আমো চু নদীর ধার দিয়ে চীন একটি পাহাড়চূড়া পর্যন্ত পৌঁছে যেতে পারে। যেখান থেকে ভারতের শিলিগুড়ি করিডরের উপর নজর রাখতে পারবে চীন।

২০১৭ সালে ডোকলামে চীন এবং ভারতীয় সেনাবাহিনীর দীর্ঘ স্ট্যান্ডঅফ হয়েছিল। দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতিও হয়েছিল। দুই দেশের দীর্ঘ আলোচনার পর সেই সমস্যার সমাধান হয়েছিল। নতুন উপগ্রহচিত্রে দেখা যাচ্ছে, ডোকলামের নয় কিলোমিটার দূরে পাংদা বলে একটি আস্ত গ্রাম তৈরি করে ফেলেছে চীন। উপগ্রহ চিত্রে কেবল গ্রামের বাড়ি নয়, পার্কিংয়ে গাড়ি রাখার ছবিও উঠে এসেছে। অর্থাৎ, ওই গ্রামে মানুষ বসবাস করতে শুরু করেছে। ভারতের দাবি, যেখানে ওই গ্রাম তৈরি হয়েছে, তার প্রায় ১০ কিলোমিটার অঞ্চল ভুটানের ভূখণ্ড। অর্থাৎ, ভুটানের ঢুকে চীন ওই গ্রাম তৈরি করেছে।

‘ভারতের জমিতে কাঠামো তৈরি করেছে চীন’

এখানেই শেষ নয়, ওই গ্রামের পাশ দিয়ে আমো চু নদীর ধার দিয়ে একটি রাস্তা তৈরি করে ফেলেছে চীন। সারা বছর ওই রাস্তা ব্যবহার করা যাবে। ওই রাস্তার একটি অংশও ভুটানের ভূখণ্ডে বলে ভারতের দাবি। ওই রাস্তা দিয়ে ডোকলাম মালভূমির কৌশলগত এলাকায় চীন পৌঁছে যেতে পারে। ভারতীয় সামরিক কাঠামোকে বাইপাস করে ওই রাস্তা যদি ডোকলামের স্ট্র্যাটেজিক পয়েন্টে পৌঁছে যায়, তাহলে সেখান থেকে ভারতের উত্তরবঙ্গের গুরুত্বপূর্ণ শিলিগুড়ি করিডোরের উপর নজরদারি চালাতে পারবে চীন।

শিলিগুড়ি করিডোর ভারতের গুরুত্বপূর্ণ সামরিক এলাকা। ২২ কিলোমিটারের ওই করিডোর গোটা উত্তর পূর্ব ভারতের সঙ্গে মূল ভারতীয় ভূখণ্ডের একমাত্র সংযোগরক্ষাকারী রাস্তা। ফলে চীন ওই রাস্তার উপর নজরদারি চালালে ভারতের সামরিক কৌশলে সমস্যা হতে পারে।

ভারতের অবসরপ্রাপ্ত লেফটন্যান্ট জেনারেল প্রবীণ বক্সি একসময় পূর্ব সীমান্তের কম্যান্ডার ছিলেন। ডোকলাম সংকটের সময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল তার। সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, ''চীনের পাংদা গ্রাম নির্মাণ এবং তার উত্তর এবং দক্ষিণে কাঠামো নির্মাণ স্পষ্ট করে দেয়, কীভাবে তারা ঝাম্পেরি রিজ এবং ডোকলামে নিজেদের আধিপত্য তৈরি করতে চাইছে।'' এইভাবে ওই অঞ্চলে চীন নিজেদের আগ্রাসন বজায় রাখছে বলে স্পষ্ট জানিয়েছেন সাবেক সেনা অফিসার।

ভারতীয় সেনার এক সূত্র এনডিটিভিকে জানিয়েছেন, ''চীনের সমস্ত কার্যকলাপের দিকে ভারত নজর রেখেছে। ভারতীয় সার্বভৌমত্ব বজায় রাখার জন্য ভারতীয় সেনাও যথাযথ পদক্ষেপ নিচ্ছে।'' তবে ভারত ওই অঞ্চলে কী ব্যবস্থা নিচ্ছে, তা স্পষ্ট করেননি তিনি।

নতুন উপগ্রহ চিত্রে স্পষ্ট আমো চু নদীর ধারে আরো একটি গ্রাম তৈরির কাজ চীন প্রায় শেষ করে ফেলেছে। আরো দক্ষিণে নতুন একটি গ্রাম তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। আমো চু নদীর উপর একটি সেতুও তৈরি করে ফেলেছে তারা।

এবিষয়ে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তারা কোনো কথা বলতে চায়নি। তবে বিষয়টি যে ভারত গুরুত্ব দিয়ে দেখছে, জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের এক অফিসার।

এসজি/জিএইচ (এনডিটিভি)

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

EU-Kommissionspräsidentin von der Leyen in Kiew

সহায়তা পেলেও পশ্চিমা জোটে ইউক্রেনের স্থান এখনো দূর অস্ত

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান