ডোপ কেলেঙ্কারিতে বিশ্ব ক্রীড়ায় ৪ বছরের জন্য নিষিদ্ধ রাশিয়া | বিশ্ব | DW | 09.12.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

রাশিয়া

ডোপ কেলেঙ্কারিতে বিশ্ব ক্রীড়ায় ৪ বছরের জন্য নিষিদ্ধ রাশিয়া

রাশিয়াকে আগামী চার বছরের জন্য বিশ্বের সব ধরনের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা থেকে নিষিদ্ধ করেছে ওয়ার্ল্ড অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সি (ডব্লিউএডিএ)৷

এই নিষেধাজ্ঞার অর্থ, দেশটি আগামী বছরের টোকিও অলিম্পিক, ২০২২ সালে বেইজিং শীতকালীন অলিম্পিক এবং কাতার ফুটবল বিশ্বকাপে অংশ নিতে পারবে না৷ সুইজারল্যান্ডে ডব্লিউএডিএ’র কার্যনির্বাহী সভায় সোমবার এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়৷ 

ডব্লিউএডিএ’র কমপ্লায়েন্স রিভিউ কমিটির সুপারিশক্রমে কার্যনির্বাহী কমিটি রাশিয়ার উপর এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে৷ নির্বাহী কমিটির এক মুখপাত্র বলেন, ‘‘পুরো সুপারিশনামা সর্বোসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়েছে৷’’ 

রিভিউ কমিটি মস্কোর বিরুদ্ধে মিথ্যা উপাত্ত দিয়ে গবেষণাগারের তথ্যে গড়মিল করার প্রমাণ পেয়েছে৷ তারা রুশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ডোপ টেস্টে পজিটিভ হওয়া খেলোয়াড়দের তথ্য মুছে দেওয়ার প্রমাণও পেয়েছে৷ 

এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় শুধু রাশিয়ার খেলোয়াড়রাই নন বরং দেশটির সরকারি কর্মকর্তারাও আন্তর্জাতিক কোনো ক্রীড়া প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারবেন না৷ তবে দেশটির কোনো অ্যাথলেট যদি নিজের ডোপ কেলেঙ্কারিতে জড়িত না থাকার প্রমাণ দেখাতে পারেন, তবে তিনি রাশিয়ার হয়ে নন, বরং নিরপেক্ষ পতাকাতলে অংশ নিতে পারবেন৷

আগামী ২১ দিনের মধ্যে এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবে রাশিয়া৷ রাশিয়া আপিল করলে মামলাটি কোর্ট অব অরবিট্রেশন ফর স্পোর্ট (সিএএস) এ পাঠানো হবে৷

রাশিয়ার জন্য অবশ্য এই নিষেধাজ্ঞা নতুন নয়৷ ২০১৫ সাল থেকেই দেশ হিসেবে অ্যাথলেটিকসে রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে৷ যে কারণে ২০১৮ সালে দেশটির ১৬৮ জন অ্যাথলেট নিরপেক্ষ পতাকাতলে দক্ষিণ কোরিয়ার শীলকালীন অলিম্পিকে অংশ নেন৷ তাছাড়া ২০১৬ সালে রিও অলিম্পিকের আগে মস্কোর পরীক্ষাগারেই রুশ অ্যাথলেটদের ডোপিংয়ের প্রমাণ পাওয়া যায়৷  

চাক পেনফোল্ড/এসএনএল 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন