ডাইনোসরের উকুন | বিশ্ব | DW | 12.12.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ডাইনোসর

ডাইনোসরের উকুন

মিয়ানমারে ডানাওয়ালা ডাইনোসরের পালকে উকুনের সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা। এই প্রথম ১০ কোটি বছর আগে উকুন জাতীয় কোনও পোকার সন্ধান পাওয়া গেল। তবে বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, যে উকুনের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে, তার চরিত্র এখনকার মতো নয়।

ডাইনোসরের উকুন বাছতো কে? প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে বিজ্ঞানী মহলে। কারণ সম্প্রতি মিয়ানমারে প্রাচীন কিছু ডাইনোসরের ফসিলে উকুনের সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তাঁরা দেখেছেন, ডানাওয়ালা ডাইনোসরের পালকের মধ্যে বাসা বেঁধে রয়েছে উকুনের মতো দেখতে কিছু অতি সূক্ষ্ণ পোকা।

গল্পটা আসলে জুরাসিক পার্কের। স্টিফেন স্পিলবার্গের সেই ছবিতে ডায়নোসরের জিন পাওয়া গিয়েছিল গাছের রেজিনের মধ্যে জমে থাকা জীবাশ্মের মধ্যে। মিয়ানমারে ডাইনোসর বিশেষজ্ঞরা গবেষণা করতে গিয়ে এমনই কিছু রেজিনে জমে যাওয়া ডানাওয়ালা ডাইনোসরের জীবাশ্মের সন্ধান পান। বেজিংয়ের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা এরপর সেই জীবাশ্ম পরীক্ষা করে ডাইনোসরের পালকের মধ্যে ১০ রকমের পোকার সন্ধান পান। এরই মধ্যে উকুন জাতীয় কিছু রয়েছে বলেও তাঁদের সন্দেহ। যদিও এখন যে ধরনের উকুন দেখতে পাওয়া যায়, ১০ কোটি বছর আগের সেই পোকা ঠিক তেমন দেখতে নয়। তাদের আকার একটি চুলের দ্বিগুণ। মুখের আদলও অন্যরকম। বিজ্ঞানীদের ধারণা, এরা কেবলমাত্র ডাইনোসরের পালকেই বাসা বাঁধতো। চামড়া পর্যন্ত পৌঁছতো না। তবে এর ফলে পালকের ষথেষ্ট ক্ষতি হতো বলেই তাঁদের ধারণা।

সম্প্রতি বিজ্ঞান বিষয়ক জার্নাল নেচারে এই সংক্রান্ত একটি নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, মেসোজোয়িক যুগে এমন পোকার সন্ধান পাওয়া এক আশ্চর্য ঘটনা। এর ফলে ওই সময়ের বিজ্ঞানচর্চার এক নতুন অধ্যায় খুলে যাবে।

রিচার্ড কন্নার/এসজি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন