ডলফিন পিটিয়ে মারা হয় যেখানে | বিশ্ব | DW | 15.09.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জ

ডলফিন পিটিয়ে মারা হয় যেখানে

চারশ বছর ধরে চলে আসা উৎসব পালন করতে গিয়ে অসংখ্য ডলফিন হত্যা করা হলো ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জে।

ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জে অসংখ্য ডলফিন মারা হলো।

ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জে অসংখ্য ডলফিন মারা হলো।

ফ্যারো হলো উত্তর অতলান্ত মহাসাগরের দ্বীপপুঞ্জ। ডেনমার্কের অধীনে স্বশাসিত অঞ্চল। সেখানেই রোববার প্রায় এক হাজার চারশরও বেশি ডলফিনকে হত্যা করা হলো। এই শিকার উৎসবের নাম গ্রিন্ডাড্র্যাপ। কিন্তু রোববার এত ডলফিন মারা হয়েছে যে, এই দ্বীপের ভাবমূর্তিতে প্রবল আঘাত লাগতে বাধ্য। পরিবেশ বিজ্ঞানী, সমুদ্র ও তার জীবনচক্র নিয়ে কাজ করা বিশেষজ্ঞরা এই নির্বিচারে প্রাণীহত্যার নিন্দা করেছেন। তারা অবিলম্বে এই প্রথা বন্ধের দাবি তুলেছেন।

পরিবেশ নিয়ে কাজ করা সংস্থা সি শেফার্ড ফেসবুকে একটা লম্বা ভিডিও পোস্ট করে জানিয়েছে, এক হাজার ৪২৮টি ডলফিন মারা হয়েছে। এই ডলফিনগুলির একপাশ সাদা। এই দ্বীপপুঞ্জে এর আগে কখনো এত ডলফিন হত্যা করা হয়নি।

সুইৎজারল্যান্ড ভিত্তিক সংস্থা ওশন কেয়ার জানিয়েছে, যেভাবে প্রাণী হত্যা করা হয়েছে তা মানা যায় না। সব সীমারেখা তারা পার করে গেছে।

এত ডলফিন হত্যা কেন

এই দ্বীপপুঞ্জের মানুষ প্রতিবছর এক হাজারের মতো সামুদ্রিক প্রাণী মারেন। গতবার তারা ৩৫টি ডলফিন মেরেছিলেন।

Färöer | Delphintötung

ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জের সমুদ্রতীরে রাখা হয়েছে মেরে ফেলা ডলফিনগুলি।

এই শিকারে বহু মানুষ অংশ নেন। বিভিন্ন গোষ্ঠী নৌকায় করে ডলফিন ও পাইলট তিমিকে তাড়িয়ে তীরের দিকে নিয়ে আসে। এরকমই একটি সংস্থার সাবেক চেয়ারম্যান বলেছেন, এই বছর অত্যন্ত বেশি প্রাণীহত্যা হয়েছে। তাই তিনি নিজেকে এর থেকে সরিয়ে নিয়েছেন।

পাইলট তিমি বা একদিকে সাদা রঙের ডলফিন বিলুপ্তপ্রায় প্রাণী নয়। তা সত্ত্বেও এত প্রাণী কেন মারা হবে, সেই প্রশ্ন উঠছে। তবে অন্যবার শিকারে পাইলট তিমিই বেশি মারা হতো।

ডলফিন ও পাইলট তিমিগুলিকে তাড়িয়ে তীরের দিকে নিয়ে আসা হয়। তারপর তা ছুরি দিয়ে মারা হয়। এ নিয়ে স্থানীয় আইনও আছে। প্রাণীর মাংস ও ব্লাডার স্থানীয় মানুষদের মধ্যে বিলি করে দেয়া হয়।

জিএইছ/এসজি(এপি, ডিপিএ)