ট্রাম্পের মেয়ের জামাইয়ের ক্ষমতা কমানো হয়েছে: গণমাধ্যম | বিশ্ব | DW | 28.02.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

যুক্তরাষ্ট্র

ট্রাম্পের মেয়ের জামাইয়ের ক্ষমতা কমানো হয়েছে: গণমাধ্যম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ের জামাই জারেড কুশনার হোয়াইট হাউসের সিনিয়র উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেন৷ সম্প্রতি তাঁর অতিগোপন তথ্য দেখার ক্ষমতা কমানো হয়েছে বলে জানা গেছে৷

সোমবার মার্কিন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর বলছে, এতদিন অন্তর্বর্তীকালীন ক্লিয়ারেন্স নিয়ে হোয়াইট হাউসের কাছে গোয়েন্দাদের পেশ করা অতিগোপন তথ্য দেখার সুযোগ পেতেন কুশনার৷ কিন্তু এখন থেকে তিনি আর সেই সুযোগ পাবেন না৷ তবে গোপন তথ্য দেখতে পারবেন৷ অতিগোপন তথ্য দেখার সুযোগ পেতে তাঁকে গোয়েন্দাদের কাছ থেকে স্থায়ী ক্লিয়ারেন্স পেতে হবে৷

উল্লেখ্য, মার্কিন গোয়েন্দারা প্রতিদিন মার্কিন প্রেসিডেন্টকে গোয়েন্দা তথ্য দিয়ে থাকেন৷ এটি ‘প্রেসিডেন্ট'স ডেইলি ব্রিফ' নামে পরিচিত৷ এর মধ্যে থাকে বিভিন্ন ইস্যুতে মার্কিন গোয়েন্দাদের বিশ্লেষণ, সিআইএর গোপন অভিযান সম্পর্কে তথ্য এবং যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্পর্শকাতর সূত্র ও মিত্র দেশগুলোর গোয়েন্দাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য৷

Donald Trump und Jared Kushner (Getty Images/D. Angerer)

মার্কিন প্রেসিডেন্ডট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর মেয়ের জামাই জারেড কুশনার

জারেড কুশনার ছাড়াও হোয়াইট হাউসের আরও কয়েকজন কর্মকর্তার ক্ষমতা কমানো হয়েছে বলে জানা গেছে৷ হোয়াইট হাউসের চিফ অফ স্টাফ জন কেলির এক উদ্যোগের কারণে এসব সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়৷ সম্প্রতি তিনি বলেছিলেন, হোয়াইট হাউসের যেসব কর্মকর্তা অন্তর্বর্তীকালীন ক্লিয়ারেন্স নিয়ে কাজ করছেন, তাঁদের গত শুক্রবারের মধ্যে স্থায়ী ক্লিয়ারেন্স নিতে হবে, নয়ত ঐ কর্মকর্তাদের ক্ষমতা কমানো হবে৷

এদিকে, মার্কিন গণমাধ্যম জানাচ্ছে, ট্রাম্পের উপদেষ্টাদের ক্লিয়ারেন্স দেয়ার প্রক্রিয়া শেষ করতে এফবিআই-এর আরও একমাস সময় লাগতে পারে৷ এরপর কুশনার আবার তাঁর ক্ষমতা ফিরে পাবেন কিনা, তা স্পষ্ট নয়৷

ভিডিও দেখুন 00:26
এখন লাইভ
00:26 মিনিট

Kushner: 'I did not collude with Russia'

কুশনারকে নিয়ে সন্দেহ

সোমবার ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, অন্তত চারটি দেশের কর্মকর্তারা কুশনারকে নিয়ন্ত্রণ করার উপায় নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেছেন৷ তাঁরা কুশনারের অনভিজ্ঞতা আর তাঁর ব্যবসায়িক স্বার্থ লাভের ইচ্ছাকে কাজে লাগিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রনীতিকে প্রভাবিত করার পরিকল্পনা করেছেন বলে প্রতিবেদনে দাবি করা হয়৷ অবশ্য কোনো দেশ এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কাজ করেছে কিনা তা স্পষ্ট নয়৷ তবে অন্য দেশের সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে কুশনারের যোগাযোগের বিষয়টি হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তাদের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি করেছিল এবং কুশনার যে এখনও স্থায়ী ক্লিয়ারেন্স পাননি তার কয়েকটি কারণের মধ্যে এটিও একটি বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট৷ সাবেক ও বর্তমান মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে দৈনিকটি৷ পত্রিকাটি ঐ চার দেশের নামও প্রকাশ করেছে৷ এগুলো হচ্ছে, আরব আমিরাত, চীন, ইসরায়েল ও মেক্সিকো৷

জেডএইচ/ডিজি (এপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

বিজ্ঞাপন