ট্রাফিক লাইট কোয়ালিশনের দিকে এগোচ্ছে জার্মানি | বিশ্ব | DW | 15.10.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

ট্রাফিক লাইট কোয়ালিশনের দিকে এগোচ্ছে জার্মানি

ওলাফ শলৎসের নেতৃত্বে জার্মানির আগামী সরকার গঠনের সম্ভাবনা আরও উজ্জ্বল হয়ে উঠলো৷ এসপিডি, এফডিপি ও সবুজ দল আনুষ্ঠানিকভাবে জোট গঠনের লক্ষ্যে আলোচনা শুরু করতে চলেছে৷

শুক্রবার দুপুরে এসিপিডি, এফডিপি ও সবুজ দলের শীর্ষ নেতারা সাংবাদিকদের কাছে সুখবর জানান

শুক্রবার দুপুরে এসিপিডি, এফডিপি ও সবুজ দলের শীর্ষ নেতারা সাংবাদিকদের কাছে সুখবর জানান

অনেক জল্পনা কল্পনার পর শুক্রবার দুপুরে এসপিডি, এফডিপি ও সবুজ দলের শীর্ষ নেতারা স্বয়ং সাংবাদিকদের কাছে সুখবর জানালেন৷ এতকাল কম পদমর্যাদার দলীয় নেতারাই আলোচনার অগ্রগতি সম্পর্কে মন্তব্য করে আসছিলেন৷ গত কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রাথমিক আলোচনার পর এই তিন দল যাবতীয় মতপার্থক্য দূরে রেখে ঐকমত্যে পৌঁছেছে৷ আগামী কয়েকদিনে দলীয় পর্যায়ে ত্রিপাক্ষিক খসড়ার আনুষ্ঠানিক ছাড়পত্রের পর এই তিন দল আগামী সপ্তাহ থেকেই জোট সরকার গড়ার লক্ষ্যে আলোচনা শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ উল্লেখ্য, এর আগে শলৎস ওয়াশিংটন সফরের সময়ে বড়দিনের মধ্যে সরকার গঠনের সম্ভাবনা সম্পর্কে আস্থা প্রকাশ করেছিলেন৷

এমন সদিচ্ছা ও প্রাথমিক ঐকমত্য সত্ত্বেও শেষ পর্যন্ত সত্যি তিন দলের ‘ট্রাফিক লাইট কোয়ালিশন' গড়া সম্ভব হবে কিনা, তা এখনো স্পষ্ট নয়৷ নীতি ও মন্ত্রণালয় বণ্টনের প্রশ্নে দরকষাকষির পরই আগামী সরকারের ভিত্তি প্রস্তুত হতে পারে৷ কোনো একটি দল আপোশ করতে প্রস্তুত না হলে সেই সম্ভবনা বড় ধাক্কা পেতে পারে৷ তবে প্রকৃত বিকল্পের অভাবে তিন দলের পক্ষে এমন ব্যর্থতা হজম করা সহজ হবে না বলে ঐকমত্যের জন্য যথেষ্ট চাপ রয়েছে৷

এসপিডি নেতা ওলাফ শলৎস, সবুজ দলের নেতা আনালেনা বেয়ারবক ও এফডিপি নেতা ক্রিস্টিয়ান লিন্ডনার একযোগে জার্মানির অগ্রগতির স্বার্থে সাহসি পদক্ষেপের পক্ষে সওয়াল করেন৷ ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যাপক প্রয়োগ, সামাজিক বৈষম্য দূর করার প্রয়াস, উদ্ভাবনী শক্তির বিকাশের মতো সুদূরপ্রসারী নীতির পক্ষে সওয়াল করেন তাঁরা৷ নিজেদের নীতির মধ্যে আদর্শগত অবস্থানের বিষয়টি ধামাচাপা না দিয়েই তাঁরা জোটের সাধারণ নীতি স্থির করতে চান তাঁরা৷

ব্যক্তিগত পর্যায়েও নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধার উল্লেখ করেন তিন দলের নেতারা৷ নিশ্ছিদ্র গোপনীয়তার বেড়াজাল ভেদ করে কোনো বিষয় ফাঁস না হওয়ায়ও তাঁরা সন্তোষ প্রকাশ করেন৷

এসবি/এসিবি

সংশ্লিষ্ট বিষয়