ট্রাফিক লাইটের উজ্জ্বল আলোর বিপরীতে ম্লান ম্যার্কেলের শিবির | বিশ্ব | DW | 08.10.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

ট্রাফিক লাইটের উজ্জ্বল আলোর বিপরীতে ম্লান ম্যার্কেলের শিবির

জার্মানিতে তিন দলের তথাকথিত ‘ট্রাফিক লাইট কোয়ালিশন' সরকার গঠনের সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়ে উঠছে৷ অন্যদিকে ম্যার্কেলের শিবিরের কোণঠাসা নেতা আরমিন লাশেট নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন৷

২৬শে সেপ্টেম্বর জার্মানির সংসদ নির্বাচনের পর চারটি দল জোট সরকার গঠনের নানা সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছে৷ বৃহস্পতিবার নির্বাচনে জয়ী সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি দল, পরিবেশবাদী সবুজ দল ও উদারপন্থি এফডিপি দল ত্রিপাক্ষিক আলোচনা চালিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে৷ আগামী সপ্তাহে তিন পক্ষ আরো বিস্তারিত আলোচনায় বসবে৷ প্রাথমিক এই সংলাপে প্রক্রিয়ায় ইতিবাচক সাড়া পেলে আনুষ্ঠানিকভাবে জোট সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হবার কথা৷ তিন দলের লাল, হলুদ ও সবুজ রংয়ের প্রতীকের পরিপ্রেক্ষিতে এমন জোটকে ‘ট্রাফিক লাইট কোয়ালিশন' হিসেবে বর্ণনা করা হয়৷

এদিকে নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর সরকার গড়ার দাবি জানিয়েও ধীরে ধীরে পিছু হটছিলেন ম্যার্কেলের শিবিরের চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী আরমিন লাশেট৷ নিজের সিডিইউ দল ও ইউনিয়ন শিবিরের মধ্যে প্রবল সমালোচনা ও বিরোধিতার মুখে শুক্রবার তিনি নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর ইচ্ছা প্রকাশ করলেন৷ তবে আচমকা পদত্যাগ না করে তিনি ধাপে ধাপে নেতৃত্ব বদলের প্রক্রিয়ায় ‘সমন্বয়' করতে চান৷ সেইসঙ্গে ইউনিয়ন শিবিরের নেতৃত্বে আগামী সরকার গঠনের ইচ্ছাও ত্যাগ করতে প্রস্তুত নন তিনি৷ অর্থাৎ লাশেটের মতে, তিনি  নিজে সরে দাঁড়ালেও ইউনিয়ন শিবির ‘জামাইকা কোয়ালিশন' সরকারের নেতৃত্ব দিতে এখনো প্রস্তুত৷

আরমিন লাশেট নিজের প্রস্থানের গতিপথ স্থির করতে চাইলেও দল ও শিবিরের মধ্যে বিভ্রান্তি ও অরাজকতার পরিপ্রেক্ষিতে সেই প্রক্রিয়ার উপর তাঁর নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সংশয় রয়েছে৷ শূন্যস্থান পূরণ করতে অনেক নেতাই তৎপরতার ইঙ্গিত দিয়েছেন৷ ঐকমত্যের ভিত্তিতে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতার হস্তান্তর সম্ভব না হলে রক্ষণশীল শিবির আরও সংকটের মধ্যে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে৷

এমন ভঙ্গুর অবস্থায় কোনো জোট সরকারের নেতৃত্ব দেবার ক্ষমতা তাই বড় প্রশ্নের মুখে পড়ছে৷ অর্থাৎ কোনো কারণে ‘ট্রাফিক লাইট কোয়ালিশন' গড়ার উদ্যোগ বিফল হলে ‘জামাইকা কোয়ালিশন' সরকার গঠন করা আদৌ সম্ভব হবে কিনা, তা স্পষ্ট নয়৷

এদিকে বিদায়ী চ্যান্সেলর হিসেবে আঙ্গেলা ম্যার্কেল রোম সফরে গিয়ে বলেছেন, তার মতে জার্মানিতে যথেষ্ট দ্রুত আগামী সরকার গঠিত হবে৷ চার বছর আগের মতো দীর্ঘ অপেক্ষার প্রয়োজন হবে না৷ এসপিডি, এফডিপি ও সবুজ দলও দেশের স্বার্থে জোট সরকার গড়ার লক্ষ্যে দ্রুত পদক্ষেপের আশা প্রকাশ করছে৷ তবে এফডিপি দলের নেতা ক্রিস্টিয়ান লিন্ডনার স্পষ্ট জানিয়েছেন যে, তার দল সমান্তরালভাবে দুটি জোট নিয়ে আলোচনা করবে না৷ ইউনিয়ন শিবিরে নেতৃত্ব বদল সত্ত্বেও তিনি বিচলিত নন৷ লিন্ডনার বলেন, জোট সরকার গঠনের ক্ষেত্রে ব্যক্তি নয়, কর্মসূচির ক্ষেত্রে যথেষ্ট মিল থাকা জরুরি৷ উল্লেখ্য, এফডিপি এবং সবুজ দল এখনো ইউনিয়ন শিবিরের সঙ্গে জোটের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয় নি৷

এসবি/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স)

সংশ্লিষ্ট বিষয়