টুইটার কর্মী দিয়ে সৌদি আরবের গোয়েন্দাগিরি | বিশ্ব | DW | 07.11.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

টুইটার কর্মী দিয়ে সৌদি আরবের গোয়েন্দাগিরি

রাজপরিবারের সমালোচকদের উপর নজর রাখতে সৌদি সরকার টুইটারের দুজন কর্মী নিয়োগ দিয়েছিল বলে অভিযোগ করেছেন মার্কিন আইনজীবীরা৷ ওয়াশিংটনের সৌদি দূতাবাস এ বিষয়ে এখনও মন্তব্য করেনি৷

আইনজীবীরা বলছেন, সমালোচকদের তথ্য দেয়ার বিনিময়ে ঐ দুই ব্যক্তিকে কয়েক হাজার ডলার ছাড়াও ডিজাইনার ঘড়িসহ অন্যান্য অভিজাত উপহার দেয়া হয়েছে৷

টুইটারে কাজ করা কর্মী দুজনের একজন সৌদি নাগরিক৷ তার নাম আলী আলজাবারাহ৷ অন্যজন মার্কিন নাগরিক৷ তার নাম আহমেদ আবুআমু৷ সৌদি রাজ পরিবারের সাবেক কর্মী আহমেদ আলমুতাইরির মাধ্যমে তারা সৌদি সরকারকে তথ্য দিয়েছেন বলে অভিযোগ৷

আলজাবারাহ ও আবুআমুর বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে নিবন্ধন ছাড়া সৌদি আরবের এজেন্ট হিসেবে কাজ করার অভিযোগ আনা হয়েছে৷

আবুআমুকে যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷

আলজাবারাহ ও আলমুতাইরি সৌদি আরবে আছেন৷

টুইটারের সাবেক ঐ দুই কর্মী রাজপরিবারের সমালোচকদের টুইটার অ্যাকাউন্টের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ইমেল ঠিকানা ও আইপি ঠিকানার তথ্য সৌদি সরকারকে দিয়েছেন বলে অভিযোগ৷ আইপি ঠিকানার মাধ্যমে ব্যবহারকারীর স্থান সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়৷

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক গবেষক অ্যাডাম কুগল জানিয়েছেন, সৌদি আরবের মোট জনসংখ্যার প্রায় এক-তৃতীয়াংশ সক্রিয় টুইটার ব্যবহারকারী৷ ফলে এটিই সে দেশের প্রধান সামাজিক মাধ্যম৷

যে টুইটার ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য দেয়া হয়েছে তাদের মধ্যে একজনের অনুসারীর সংখ্যা ১০ লাখের বেশি৷ তিনি সৌদি সরকারের সমালোলচক হিসেবে পরিচিত৷ এছাড়া একজন গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বও আছেন এই তালিকায়৷

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করায় এফবিআই ও বিচার বিভাগকে ধন্যবাদ জানিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ৷

জেডএইচ/কেএম (এপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন