টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এক গ্রুপে ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ | বিশ্ব | DW | 21.01.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এক গ্রুপে ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ

২০২২ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে একই গ্রুপে ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ। ভারতের খেলা শুরু পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এক গ্রুপে ভারত ও বাংলাদেশ।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এক গ্রুপে ভারত ও বাংলাদেশ।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সূচি ঘোষণা করলো আইসিসি। বাংলাদেশ এবার ভারত ও পাকিস্তানের সঙ্গে দুই নম্বর গ্রুপে থাকবে। এছাড়া থাকবে দক্ষিণ আফ্রিকা ও যোগ্যতাঅর্জনকারী দুইটি দল। ফলে বাংলদেশকে পরবর্তী পর্বে উঠতে গেলে ভারত, পকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলগুলির বিরুদ্ধে জিততে হবে।

এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর বসছে অস্ট্রেলিয়ায়। বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের খেলা শুরু হবে ২২ অক্টোবর, সিডনিতে স্বাগতিক দল ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া ও গেলবারের ফাইনালিস্ট নিউজিল্যান্ড ছাড়াও এক নম্বর গ্রুপে থাকছে ইংল্যান্ড, আফগানিস্তান এবং যোগ্যতা অর্জনকারী দুইটি দল। একই দিন পার্থে দ্বিতীয় ম্যাচ হবে ইংল্যান্ড ও আফগানিস্তানের মধ্যে৷ 

১৬ অক্টোবর থেকে প্রথম রাউন্ডের ম্যাচ হবে। এখানে খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা, নামিবিয়া, স্কটল্যান্ড এবং অন্য দলগুলি।

ভারত ও পাকিস্তানের ম্যাচ হবে ২৩ অক্টোবর মেলবোর্নে। তারপর ২৭ তারিখ সিডনিতে একটি যোগ্যতাঅর্জনকারী দেশের বিরুদ্ধে খেলবে ভারত। ৩০ তারিখ তাদের খেলতে হবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে পার্থে। ২ নভেম্বর ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ হবে। ৬ নভেম্বর আরেকটি যোগ্যতা অর্জনকারী দেশের বিরুদ্ধে খেলবে ভারত।

বাংলাদশের খেলা শুরু হবে ২৪ অক্টোবর, একটি যোগ্যতাঅর্জনকারী দেশের বিরুদ্ধে। হোবার্টে এই ম্যাচ হবে। ২৭ অক্টোবর সিডনিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। ৩০ তারিখ ব্রিসবেনে তাদের খেলতে হবে আরেকটি যোগ্যতাঅর্জনকারী দলের বিরুদ্ধে। ৬ নভেম্বর অ্যাডিলেডে বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচ হবে।

৯ ও ১০ নভেম্বর দুইটি সেমিফাইনাল ম্যাচ হবে সিডনি ও অ্যাডিলেডে এবং ফাইনাল হবে ১৩ তারিখ, মেলবোর্নে।

জিএইচ/এসজি (আইসিসি ওয়েবসাইট)