টিগ্রেতে শত শত নারী যৌন নির্যাতনের শিকার | বিশ্ব | DW | 11.08.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইথিওপিয়া

টিগ্রেতে শত শত নারী যৌন নির্যাতনের শিকার

ইথিওপিয়ার টিগ্রে অঞ্চলে চলমান যুদ্ধে কয়েকশ নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন৷ এমন তথ্য দিয়ে মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল সেখানে নারীদের উপর চলমান নিষ্ঠুরতাকে যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে তুলনীয় হিসেবে অভিহিত করেছে৷

বুধবার প্রকাশিত অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের প্রতিবেদনে বলা হয়,  ইথিওপিয়া ও ইরিত্রিয়ার সৈন্যরা কয়েকশ নারীকে ধর্ষণ করেছে৷ সংস্থাটির মহাসচিব আগনেস ক্যালামার্ড বলেন, ‘‘ এটা পরিস্কার যে টিগ্রের নারী ও মেয়েদের  দীর্ঘস্থায়ী শারীরিক ও মানসিক ক্ষতিসাধনে  ধর্ষণ ও যৌন সহিংসতাকে যুদ্ধাস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে ৷ যৌন অপরাধের এই ভয়াবহতা ও মাত্রা বেদনাদায়ক, এটা যুদ্ধাপরাধ ও সম্ভাব্য মানবতাবিরোধী অপরাধের মধ্যে পড়ে৷''

প্রতিবেদন তৈরিতে মার্চ ও জুনের মধ্যে অ্যামনেস্টি যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়া ৬৩ জনের সাক্ষাৎকার নিয়েছে৷ কয়েকজন জানিয়েছেন, কয়েক সপ্তাহ বন্দি রেখে তাদেরকে একাধিক পুরুষ যৌন নির্যাতন করেছেন৷ কেউ কেউ বলেছেন তাদেরকে পরিবারের সামনে ধর্ষণ করা হয়৷ ২১ বছর বয়সি একজন বলেন, ‘‘তারা আমাদেরকে ধর্ষণ করেছে, অনাহারী রেখেছে৷ অনেকে একের পর এক আমাদেরকে ধর্ষণ করেছে৷''

প্রতিবেদন অনুযায়ী টিগ্রের হাসপাতালগুলোতে ২০২১-এর ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিলের মধ্যেই ১২৮৮ জন যৌন নির্যাতনের শিকার নারী চিকিৎসা নিতে এসেছেন৷ তবে অ্যামনেস্টি বলছে, পরিসংখ্যানের বাইরে থাকা নারীদের সংখ্যা আরো বেশি৷

এদিকে ইথিওপিয়ার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহনী সম্প্রতি তিন সৈন্যকে সহিংসতার জন্য সাজা ও আরো ২৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে৷ এ নিয়ে আরো তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেলের দপ্তর৷ 

ভিডিও দেখুন 04:03

হারিয়ে যাওয়া বীজ ফিরে পেল ইথিওপিয়া

উল্লেখ্য, গত বছরের নভেম্বরে ইথিওপিয়ার সরকার টিগ্রে অঞ্চল নিয়ন্ত্রণে নেয়া টিগ্রে পিপলস লিবারেশন ফ্রন্টের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান শুরু করে৷ সরকারকে সহযোগিতা দিতে এই সংঘাতে জড়িয়ে পড়ে ইরিত্রিয়াও৷

জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, গত কয়েক মাসে সেখানে এক লাখ ৭০ হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন৷

এফএস/এসিবি (অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল)

সংশ্লিষ্ট বিষয়