টাইম ম্যাগাজিনের পার্সন অফ দ্য ইয়ার’এর জন্য মনোনীত মেসি | খেলাধুলা | DW | 22.11.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

টাইম ম্যাগাজিনের পার্সন অফ দ্য ইয়ার’এর জন্য মনোনীত মেসি

৩২ জনের নাম রয়েছে এবার টাইম’এর মনোনয়নের তালিকায়: যেমন স্টিভ জবস, আঙ্গেলা ম্যার্কেল, বারাক ওবামা অথবা সিলভিও ব্যার্লুস্কোনি৷ এবং তাদের পাশাপাশি ২৪ বছর বয়সের এক ফুটবল খেলোয়াড়৷

ARCHIV: FC Barcelona's Lionel Messi from Argentina, left, waves to the crowd during a Joan Gamper Trophy soccer match against Napoli at the Camp Nou stadium in Barcelona, Spain (Foto vom 22.08.11). Der argentinische Nationalspieler Lionel Messi ist Europas Fussballer des Jahres 2010/11. Dies ergab die zweite Abstimmungsrunde am Donnerstagabend im Rahmen der Champions-League-Auslosung in Monaco. Nach der ersten Abstimmungsrunde standen neben Messi Cristiano Ronaldo von Real Madrid sowie Xavi, wie Messi beim Champions-League-Sieger FC Barcelona aktiv, zur Auswahl. (zu dapd-Text) Foto: Manu Fernandez/AP/dapd

লিওনেল মেসি

বছরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অথবা চমকপ্রদ ব্যক্তিত্ব হবার সম্ভাবনা লিওনেল মেসির কতোটা, তা বলা শক্ত৷ মার্কিন টাইম পত্রিকার ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘‘সারা বিশ্বে মেসি-ভক্তদের ধারণা হল, মেসি তার প্রজন্মের খেলোয়াড়দের মধ্যে সেরা৷'' অপরদিকে মেসি ‘‘বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলাকে বাণিজ্যিক সাফল্যের এক নতুন পর্যায়ে নিয়ে গেছেন, যার প্রমাণ হল এই যে, উত্তর আমেরিকায় এ্যাতো বেশি স্কুলের কচিকাঁচারা মেসির দশ নম্বর জার্সি চড়িয়ে ইস্কুলে যায়৷''

মেসি তার ক্লাব বার্সার হয়ে জেতা যায়, এমন সব ট্রফিই জিতেছেন৷ দু'বার বিশ্বের সেরা ফুটবলার নির্বাচিত হবার পর এবার তিনবারের বারও সেই শিরোপা পেতে পারেন৷ সম্প্রতি ভিক্টোরিয়া পিলসেন'এর বিরুদ্ধে চ্যাম্পিয়নস লিগের খেলায় তিনি বার্সেলোনার হয়ে তার ২০০তম গোলটি করেন৷ বালঁ দ'র মানে সোনার বল, কিংবা গোল্ডেন বুট অর্থাৎ সোনার ফুটবল বুট, মেসিকে ও'সব শিরোপা দিয়ে লাভ নেই৷ ভক্তরা বলে, ওর পা'টাই সোনা-বাঁধানো৷

অথচ এই লিওনেল আন্দ্রেস ‘‘লিও'' মেসির জন্ম ১৯৮৭ সালের ২৪শে জুন, আর্জেন্টিনার সান্টা ফে'র রোজারিও শহরে৷ বাবা হর্হে হোরাসিও মেসি ছিলেন এক ইস্পাত কারখানার শ্রমিক, মা সেলিয়া মারিয়া কুচ্চিত্তিনি ঠিকে-ঝি'র কাজ করতেন৷ মেসিরা আদতে ইটালির, পূর্বপুরুষ আঞ্জেলো মেসি ইটালির আঙ্কোনা থেকে আর্জেন্টিনা চলে আসেন ১৮৮৩ সালে৷ লিওনেল মেসি হল তিন ভাই'এর ছোট, তাদের একটি বোনও আছে৷

পাঁচ বছর বয়সে খুদে মেসি স্থানীয় গ্রান্দোলি ক্লাবে খেলতে শুরু করে, যেখানে কোচ ছিলেন তার বাবা৷ আট বছর বয়সে মেসি'কে নেয় রোজারিও'র নেওয়েল'স ওল্ড বয়েজ ক্লাব৷ এগারো বছর বয়সে মেসির গ্রোথ হর্মোন ডেফিসিয়েন্সি অর্থাৎ বাড়ের কমতি ধরা পড়ে৷ ঐতিহ্য-সম্পন্ন রিভার প্লেট ক্লাবেরও ততোদিনে মেসির দিকে নজর পড়েছে, কিন্তু মাসে ৯০০ ডলার খরচ করে মেসির হর্মোন ঘটতির চিকিৎসা করানোর সামর্থ্য তাদের নেই৷

ওদিকে স্পেনের ক্যাটালোনিয়ায় থাকতেন মেসির কিছু আত্মীয়, তারা বার্সেলোনার স্পোর্টিং ডাইরেক্টর কার্লেস রেক্সাক'কে শোনান মেসির কাহিনি৷ রেক্সাক মেসি'র খেলা দেখতেও রাজি হন৷ তার বেশি প্রয়োজন পড়েনি৷ রেক্সাক সেখানেই মেসি'কে কনট্র্যাক্ট দিতে রাজি৷ এমনকি চুক্তি লেখার কি সই করার কাগজ নেই৷ তা'তে কি এসে যায়, মেক্সাক পেপার ন্যাপকিন টেনে নিয়ে তা'তেই হাতে লিখলেন শর্তাবলি: বার্সেলোনা মেসি'র সব চিকিৎসার খরচ দেবে, তবে মেসি পরিবারকে বার্সেলোনায় এসে থাকতে হবে৷

ফুটবলের ইতিহাসে সেরা চুক্তি৷

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী
সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন