জ্যামের জাদুতে সবাই পপস্টার! | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 16.03.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

জ্যামের জাদুতে সবাই পপস্টার!

আনকোরা দুই শিল্পীই মাত করে দিলেন আসর৷ বাদ্যযন্ত্রে হাতই দিলেন না, অথচ অস্ট্রেলিয়ার দুই তরুণের গান শুনে মনে হলো যেন বিখ্যাত কোনো অ্যালবাম বাজানো হয়েছে৷ এমন গান আসর মাত না করে পারে!

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস রাজ্যের অস্টিন-এ প্রতি বছরের মার্চ মাসে বসে সাউথ বাই সাউথওয়েস্ট ফেস্টিভাল৷ চলচ্চিত্র, ইন্টাব়্যাকটিভ এবং সংগীত নিয়ে আয়োজনটা এমন যে উৎসবে ভিড় বেড়েই চলেছে প্রতি বছর৷ '৮৭ থেকে শুরু হওয়া এ উৎসব গত বছর চলেছে ১০ দিন ধরে৷ সেখানেই এবার বাজিমাত করে দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার জো রাসেল আর স্যাম রাসেল৷ যেনতেন কাজ করে নয়, তাক লাগিয়ে দিয়েছেন গান গেয়ে৷

Syrien Youtube Kunst

নিজের পছন্দের কোনো একটা গান গেয়ে দিন, বাকি কাজটা মোবাইলের বিশেষ অ্যাপ-ই করে দেবে (ফাইল ফটো)

শুনে কে বলবে, দু ভাই কোনোদিন গান শেখেননি, গিটার, ড্রাম বা কি-বোর্ড বাজাতেই জানেননা! এসে খালি গলায় গাইলেন আর সেই গানে যেন অনেক রকমের বাদ্যযন্ত্রের সঙ্গত করে দিলো অদৃশ্য কোনো জাদুকর৷ জাদুকরের নাম আইফোন৷ আট সপ্তাহ আগে অ্যাপল আইফোনের এমন এক সংস্করণ বাজারে ছেড়েছে, যা সামনে নিয়ে গুনগুন করে কোনো গান গেয়ে পছন্দমতো বাজনা যোগ করে দেয়া যায়৷ ফলে ওই আইফোন সঙ্গে থাকলে গানের ‘গ' না জেনেও সংগীত প্রতিভার জন্য অন্যের প্রশংসা পাওয়া সম্ভব৷ নিজের পছন্দের কোনো একটা গান গেয়ে দিন, বাকি কাজটা মোবাইলের বিশেষ অ্যাপ-ই করে দেবে৷ জো আর রাসেলের জন্য সে কাজটিই করে দিয়েছে আইফোনের নতুন সংস্করণ ‘জ্যাম'৷

ফোন বাজিয়ে কোনোরকমে গেয়ে দিয়েই কারো কারো এমন পপস্টারের মতো প্রচার পাওয়া দেখে সত্যিকারের শিল্পীদের নাকি দুশ্চিন্তা বাড়ছে৷ কেউ কেউ ভাবছেন, কেউ যদি কিছু না শিখেই আসর মাত করে দিতে পারে, তাহলে এত সাধনার কী মূল্য রইলো!

এসিবি/এসবি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন