জেরুসালেমের ওয়েস্টার্ন ওয়ালের কাছে ‘ট্রাম্প স্টেশন′? | বিশ্ব | DW | 28.12.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মধ্যপ্রাচ্য

জেরুসালেমের ওয়েস্টার্ন ওয়ালের কাছে ‘ট্রাম্প স্টেশন'?

জেরুসালেমের প্রাচীন অংশে অবস্থিত ইহুদিদের ‘ওয়েলিং ওয়াল' বা মুসলিমদের আল-বুরাক প্রাকারের কাছে একটি পরিকল্পিত মেট্রো স্টেশনের নাম নাকি রাখা হবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নামে৷

ইসরায়েলের পরিবহণ মন্ত্রী ইস্রায়েল কাটৎস বলেছেন, তিনি এই পন্থায় ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানাতে চান, কেননা ট্রাম্প জেরুসালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন৷

জেরুসালেমের পুরনো শহরে নীচে একটি পাতাল রেলের পরিকল্পনা কাটৎসের মস্তিষ্কপ্রসূত৷ এই পাতাল রেল পূর্ব জেরুসালেমের তলা দিয়ে ওয়েস্টার্ন ওয়াল অবধি যাবে ও তার টার্মিনাস হবে ঐ ‘ট্রাম্প স্টেশন' – বুধবার কাট্জ তাঁর এই প্রস্তাব ঘোষণা করেন৷

কাটৎস একটি বিবৃতিতে বলেন: ‘‘আমি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নামে ওয়েস্টার্ন ওয়াল স্টেশনটির নামকরণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি, (এর কারণ তাঁর) জেরুসালেমকে ইহুদি জনগণ ও ইসরায়েল রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেবার সাহসী ও ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত৷''

ট্রাম্প ইসরায়েল-ফিলিস্তিনি বিরোধে বহু বছরের মার্কিন নীতি পালটে দিয়ে এ মাসের সূচনায় জেরুসালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন – ফলে বিশ্বব্যাপী প্রতিবাদ ও সমালোচনার অবতারণা ঘটে৷ এ যাবৎ যুক্তরাষ্ট্র তথা বিশ্বের অধিকাংশ দেশের অবস্থান ছিল এই যে, ভবিষ্যৎ শান্তি আলাপ-আলোচনার অঙ্গ হিসেবে জেরুসালেমের ভবিষ্যৎ নির্ধারিত হবে৷ ট্রাম্প সেই অবস্থানকে বিপন্ন করছেন, বলে প্রায় সব বিশ্বশক্তির তরফ থেকে অভিযোগ ওঠে৷

বিরোধ শুধু পূর্বজেরুসালেমকে নিয়েই নয়৷ টেম্পল মাউন্টে ইহুদিদের প্রবেশ নিয়ন্ত্রিত হওয়ায়, ‘ওয়েস্টার্ন ওয়াল' বা ‘ওয়েলিং ওয়াল' হলো ইহুদিদের প্রার্থনা করার পবিত্রতম স্থান৷ অপরদিকে টেম্পল মাউন্ট বা মুসলিমদের হরম-এশ-শরিফ ও তার আল-আকসা মসজিদ মুসলিমদের কাছে অনুরূপ পবিত্র৷

পরিকল্পনা অনুযায়ী কাটৎসের পাতাল রেল চার্চ অফ দ্য হোলি সেপালচার, যেখানে যিশুখ্রিষ্টকে সমাধিস্থ করা হয়েছিল বলে কথিত আছে, সেই গির্জার কাছ দিয়েও যাবে৷

বিভাজন ও নিন্দা

নামকরণের কথা পরে, কিন্তু জেরুসালেমের পাতাল রেল যদি তৈরি হয়, তবে তা ট্রাম্পের স্বীকৃতির মতোই নতুন করে নিন্দা ও বিভাজনের সৃষ্টি করবে৷ ফিলিস্তিন মুক্তি সংগঠন পিএলও-র কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ওয়াসেল আবু ইউসুফ ‘‘ইসরায়েলের চরমপন্থি সরকারের'' বিরুদ্ধে ‘‘জেরুসালেম শহরে নতুন পরিস্থিতি সৃষ্টির আপ্রাণ প্রচেষ্টার'' অভিযোগ করেছেন৷

পাতাল রেল প্রকল্পের জন্য জেরুসালেমের পুরনো শহরের নীচে সুড়ঙ্গ খোঁড়ার প্রয়োজন পড়বে, অতীতে ফিলিস্তিনি ও ইসরায়েলি, উভয় তরফের কর্মকর্তারাই যার সোচ্চার বিরোধিতা করেছেন৷ গতবছর ওয়েস্টার্ন ওয়ালের ইতিমধ্যেই খুঁড়ে বার করা একটি অংশকে ইহুদি মহিলা ও পুরুষদের একত্রে প্রার্থনার এলাকায় পরিণত করার পরিকল্পনা স্থগিত রাখতে হয়, কেননা ইসরায়েলি প্রত্নতত্ত্ববিদরা সুপ্রাচীন শহরটির অপূরণীয় ক্ষতি হওয়ার বিপদ সম্পর্কে সাবধান করে দেন৷

পরিবহণ মন্ত্রীর সমর্থন সত্ত্বেও, ‘ট্রাম্প স্টেশন' সুদ্ধ কোনো চূড়ান্ত পাতাল রেলকে বিভিন্ন সরকারি যোজনা পরিষদের অনুমোদন পেতে হবে – সেই সঙ্গে প্রায় ৭০ কোটি ডলার অতিরিক্ত অর্থের প্রয়োজন পড়বে৷ কবে এই প্রকল্প সবুজ সংকেত পাবে, ইসরায়েলি পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র তার কোনো নির্ধিষ্ট তারিখ দিতে অস্বীকার করেন৷

এসি/ডিজি (এপি, এএফপি, রয়টার্স)

প্রতিবেদনটি নিয়ে কিছু বলার থাকলে লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন