জিহাদের মৃত্যু: চার আসামি খালাস | বিশ্ব | DW | 12.02.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

জিহাদের মৃত্যু: চার আসামি খালাস

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে ঢাকার শাহজাহানপুরে রেলের পরিত্যক্ত নলকূপে পড়ে চার বছরের শিশু জিহাদের মৃত্যু হয়েছিল৷ ঐ ঘটনায় নিম্ন আদালতে দশ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত চার আসামিকে বুধবার খালাস করে দিয়েছেন হাইকোর্ট৷

বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি এএসএম আবদুল মবিনের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রায় দিয়েছেন৷

খালাস পাওয়া ব্যক্তিরা হচ্ছেন: শাহজাহানপুর রেলওয়ে কলোনিতে পানির পাম্প বসানোর প্রকল্প পরিচালক রেলওয়ের জ্যেষ্ঠ উপ সহকারী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলম, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জেএসআর এর মালিক প্রকৌশলী আব্দুস সালাম, কমলাপুর রেলওয়ের সহকারী প্রকৌশলী মো. নাসির উদ্দিন ও ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ার আবু জাফর আহমেদ শাকির৷

২৩ ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে জিহাদকে উদ্ধারে ব্যর্থ হয়েছিল ফায়ার সার্ভিস৷ এরপর তারা অভিযান স্থগিতের ঘোষণা দেন৷ এর কয়েক মিনিট পর স্থানীয় তিন বাসিন্দা জিহাদকে উদ্ধার করেন৷ এরপর তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে মৃত ঘোষণা করা হয়৷

জিহাদের বাবা অবহেলাজনিত কারণে মৃত্যুর অভিযোগ এনে শাহজাহানপুর থানায় মামলা করেছিলেন৷

দুই বছর আগে ঢাকার জজ আদালত অবহেলার দায়ে চার আসামির প্রত্যেককে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও জরিমানা করেছিলেন৷

তবে বুধবার তাঁদের খালাস করে দেয়া রায়ে হাইকোর্ট বলেছে, যে ধারায় নিম্ন আদালত চারজনকে শাস্তি দিয়েছেন, ওই ধারায় দশ বছর সাজার সুযোগ নেই৷ তাছাড়া নলকূপের পাইপের মুখ ঢাকা না থাকার বিষয়টি ওই আসামিদের অবহেলা বলে চিহ্নিত করা যায় না৷

আসামিদের পক্ষে হাইকোর্টে শুনানি করেন মনসুরুল হক চৌধুরী, এসএম শাহজাহান, এম সারোয়ার আহমেদ, আনোয়ারুল ইসলাম শাহীন ও এম আলী মর্তুজা৷ রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. আমিনুল ইসলাম৷ তিনি জানান, এই রায়ের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আদালতে আপিল করা হবে৷

জিহাদের মৃত্যুর কারণে বিশ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন তার মা-বাবা৷ ফায়ার সার্ভিস ও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ১০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিয়েছে৷

জেডএইচ/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন