জার্মান সীমান্তে সেনা মোতায়েন করেছে ডেনমার্ক | বিশ্ব | DW | 30.09.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

জার্মান সীমান্তে সেনা মোতায়েন করেছে ডেনমার্ক

জার্মানি থেকে ডেনমার্কে যাওয়ারা এখন সীমান্তে সশস্ত্র সেনা সদস্যদের দেখা পেতে পারেন৷ এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) এক নতুন প্রস্তাব দেয়া হয়েছে, যাতে ইইউভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের মেয়াদ বাড়াতে বলা হয়েছে৷

জার্মানির সঙ্গে সীমান্তে শুক্রবার সেনা মোতায়েন করেছে ডেনমার্ক৷ জানা গেছে, সেনারা মূলত সীমান্তে থাকা পুলিশ চেকপোস্টগুলোর কর্মকাণ্ড চাঙ্গা করতে সহায়তা করবে৷ এর আগে ইউরোপমুখী শরণার্থীর স্রোত বাড়তে থাকলে ২০১৬ সালের জানুয়ারী মাসে সীমান্ত চেকপোস্ট আবারো সচল করেছিল দেশটি৷

ডেনিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সীমান্তে মোতায়েন করা নতুন সেনারা সরাসরি গাড়ি পরীক্ষার মতো কাজ করবেন না৷ তবে সন্দেহভাজন দেখলে তাদের অন্যত্র সরিয়ে নিতে এবং সীমান্তরক্ষী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন তাঁরা৷ আপাতত, তিনমাসের জন্য তাঁদের মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ডেনিশ কর্তৃপক্ষ৷ তবে তাঁদের রডবি এবং গডসার ফেরি টার্মিনালে দেখা যাবে না বলেও জানিয়েছে তারা৷

সীমান্তে মোতায়েন করার আগে ১৬০ জন সেনা সদস্যকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়৷ এঁদের মধ্যে অর্ধেকর মতো সদস্যকে ইহুদিদের বিভিন্ন স্থাপনা এবং কোপেনহেগেনে ইসরায়েল দূতাবাস পাহারা দিতে নিয়োগ দেয়া হয়েছে৷ শুক্রবার ছিল কিপুর হলিডে৷ আগামী দুই সপ্তাহে ইহুদিদের আরো কয়েকটি হলিডে রয়েছে৷

এদিকে, সীমান্ত এবং অন্যত্র সেনা মোতায়েন করায় কিছু পুলিশ সদস্যকে অন্যত্র সরাতে সক্ষম হয়েছে ডেনিশ কর্তৃপক্ষ৷ দেশটির বিভিন্ন শহরে অপরাধের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় পুলিশ সদস্যদের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন হচ্ছিল বলে জানা গেছে৷

ডেনিশ সীমান্ত সংলগ্ন জার্মানির স্লেগভিগ-হল্সটাইন রাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডানিয়েল গ্যুটনার ইতোমধ্যে সেনা মোতায়েনের প্রতিবাদ জানিয়েছেন৷ স্থায়ীভাবে সীমান্তে এমন কোনো উদ্যোগ দেখতে চান না বলেও ডেনমার্ককে জানিয়েছেন তিনি৷

উল্লেখ্য, নিরাপত্তার কারণে ইইউভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে সাময়িক সীমান্ত নিয়ন্ত্রণকে বাড়ানোর এক প্রস্তাব ইউরোপীয় কমিশনে উত্থাপন করা হয়েছে৷ সেনজেনভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে জার্মানি, অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক এবং নরওয়ের সীমান্ত দুই বছরের জন্য যে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছিল তা নভেম্বরে শেষ হতে চলেছে৷ এরকম নিয়ন্ত্রণ জারি রাখতে তাই ইইউ'র অনুমতি প্রয়োজন৷ কমিশন যদি নতুন প্রস্তাব অনুমোদন করে, তাহলে দেশগুলো আরো একবছর এমন এমন নিয়ন্ত্রণ অব্যাহত রাখতে পারবে৷

এআই/ডিজি (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন