জার্মান সিরিয়াল কিলারের আবার আজীবন কারাদণ্ড | বিশ্ব | DW | 06.06.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

জার্মান সিরিয়াল কিলারের আবার আজীবন কারাদণ্ড

দুজনকে হত্যার দায়ে আজীবন কারাদণ্ড ভোগ করছেন নিলস হ্যোগেল৷ বৃহস্পতিবার আরও ৮৫ জনকে হত্যার দায়ে একই শাস্তি পেলেন তিনি৷

সাবেক নার্স হ্যোগেল ২০০০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ২০০৫ সালের জুন পর্যন্ত জার্মানির অল্ডেনবুর্গ ও ডেলমেনহোর্স্ট শহরের দুটি হাসপাতালে কর্মরত ছিলেন৷

কৌঁসুলিরা বলছেন, ঊর্ধ্বতনদের কাছে নিজের দক্ষতা প্রমাণ করতে কিংবা একঘেয়েমি থেকে মুক্তি পেতে হ্যোগেল রোগীদের শরীরে ওষুধ দিতেন৷ এক্ষেত্রে তিনি এলোমেলোভাবে রোগী বাছাই করতেন এবং তারপর তাঁদের শরীরে এমন ওষুধ দিতেন, যার প্রভাবে সেই রোগী হার্ট অ্যাটাকসহ অন্যান্য জটিলতায় ভোগা শুরু করতেন৷ এরপর হ্যোগেল ঐ  রোগীদের সারিয়ে তুলে সহকর্মী কিংবা ঊর্ধ্বতনদের সামনে নিজের দক্ষতা দেখাতে চাইতেন৷

২০০৫ সালে ডেলমেনহোর্স্ট শহরের হাসপাতালে এক রোগীর সঙ্গে এমন কাজ করার সময় অপর এক নার্সের কাছে ধরা পড়েন হ্যোগেল৷ এরপর তদন্তকারীরা সন্দেহজনক প্রায় ২০০টি মামলার তদন্ত করেছেন৷ তদন্তের প্রয়োজনে ১৩০টি লাশ কবর থেকে তোলা হয়েছে৷

২০১৫ সালে দুজন রোগীকে হত্যার দায়ে হ্যোগেলকে আজীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়৷

তবে পরবর্তীতে তদন্তকারীরা জানতে পারেন যে, হ্যোগেলের অপরাধের শিকার মাত্র দুজন নন, আরো অনেক বেশি৷

গত অক্টোবরে হ্যোগেল আদালতে আরও রোগী হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন৷

বৃহস্পতিবার হ্যোগেলের বিরুদ্ধে আজীবন কারাদণ্ডের রায় হয়েছে৷ এক্ষেত্রে শাস্তির সর্বোচ্চ মাত্রা বেছে নিয়েছেন আদালত৷ ফলে ১৫ বছর কারাভাগের পর শাস্তি কমানোর আবেদনের যে সুযোগ পেয়ে থাকেন আসামিরা, হ্যোগেলের ক্ষেত্রে সেটি প্রযোজ্য হবে না৷

এদিকে, আদালতে যুক্তিতর্ক চলার সময় বুধবার হ্যোগেল তাঁর হাতে প্রাণ যাওয়া রোগীদের পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়স্বজনের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন৷

উল্লেখ্য, যুদ্ধপরবর্তী জার্মানির ইতিহাসে অন্যতম ভয়ংকর খুনি পুরুষ নার্স হিসাবে বিবেচিত হচ্ছেন হ্যোগেল৷

জেডএইচ/কেএম (এপি, এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন