জার্মান বুক প্রাইজের জন্য ছয়টি বই মনোনীত | জার্মানি ইউরোপ | DW | 13.09.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

জার্মান বুক প্রাইজের জন্য ছয়টি বই মনোনীত

অক্টোবরে দেয়া হবে জার্মান বুক প্রাইজ৷ বেছে নেয়া ছয়টি বইয়ের মধ্যে থেকে একটি পাবে এ পুরস্কার৷ এবারের বিষয়গুলো প্রায় একইরকম৷ অর্থাৎ বইগুলির মধ্যে ভিন্নতা খুবই কম৷

প্রতি বছরই ফ্রাংকফুর্ট বইমেলার আগের সন্ধ্যায় প্রথা অনুযায়ী জার্মান বুক প্রাইজ বিজয়ীকে পুরস্কার দেয়া হয়৷ ২০০৫ সাল থেকে বিজয়ী এবং দ্বিতীয় স্থান অধিকারীকে পুরস্কার হিসেবে মোট ৩৭ হাজার ৫০০ ইউরো হাতে তুলে দেয়া হতো৷ ব্রিটিশ বুকার প্রাইজ এবং ফ্রান্সের প্রিক্স গঁকুর-এর মতো বিশ্বে জার্মান ভাষার সাহিত্যকে জনপ্রিয় করে তুলতেই এই উদ্যোগ৷

মনোনীত ছয়টি উপন্যাসের মধ্যে থেকে একটিকে বেছে নিতে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছেন সাতজন জুরি৷ তবে পরিবার এবং সম্পর্কভিত্তিক বিষয় বিবেচনা করেই এই ছয়টি উপন্যাসকে মনোনীত করা হয়েছে৷

নেভার এগেইন নাইট

সাহিত্য অনুরাগীদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় এই লেখক মির্কো বনে৷ হামবুর্গের অধিবাসী এই লেখক সাংবাদিক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার পর অনুবাদকের কাজ শুরু করেন৷ এরপর শুরু করেন কাব্য রচনা, যা তাঁকে ভূষিত করেছেন নানা পুরস্কারে৷ ‘নেভার এগেইন নাইট' তাঁর পঞ্চম উপন্যাস৷ ১৯৪৪ সালে ফ্রান্সের অ্যাটলান্টিক উপকূলে এক ব্যক্তি তাঁর ভাগ্নেকে নিয়ে ভ্রমণে যান৷ সেখানে গিয়ে মৃত বোনের স্মৃতিচারণ, তাঁদের সম্পর্ক এবং সেই সময়ের ইতিহাসকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন এই লেখক৷

Bildbeschreibung: Titel: Monika Zeiner Schlagworte: Monika Zeiner, Literatur Wer hat das Bild gemacht?: Milena Schlösser Wann wurde das Bild gemacht?: Wo wurde das Bild aufgenommen?: Bildbeschreibung: Porträt Monika Zeiner In welchem Zusammenhang soll das Bild/sollen die Bilder verwendet werden?: Onlineartikel

লেখিকা মনিকা সাইনার

নাথিং অফ ইউ অন আর্থ

জার্মানির অন্যতম জনপ্রিয় লেখক রাইনহার্ড ইয়ের্গল, যিনি এর আগে দেশের সম্মানজনক গিয়র্গ ব্যুশনার সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন৷ বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী নির্ভর উপন্যাস ‘নাথিং অফ ইউ অন আর্থ' লেখা হয়েছে একদল মানুষকে নিয়ে৷ জীনগত সমস্যাজনিত একটি মানবগোষ্ঠী মঙ্গলে গিয়ে মানুষের উপযোগী করে গড়ে তুলতে চায় গ্রহটি৷ উপন্যাসের শেষে লেখক কয়েকটি প্রশ্ন রেখেছেন, যার উত্তর পাঠকদের হাতেই ছেড়ে দিয়েছেন তিনি৷

ইন স্টোন

লাইপসিশ শহরের অধিবাসী ক্লেমেন্স মেয়ারের লেখা যে কোনো মানুষের মনে দাগ কাটতে বাধ্য – এমনটাই মত সমালোচকদের৷ তাঁর লেখার মধ্যে মানবিক আবেদন ফুটে ওঠে সব সময়৷ এবারের উপন্যাসে তিনি যৌনব্যবসার সার্বিক চিত্র যেমন তুলে ধরেছেন, তেমনি যৌনকর্মীদের মানবিক এবং তাঁদের মধ্যে যে ভালোবাসা বা মমতাবোধ থাকতে পারে সেটার চিত্রও তুলে ধরেছেন তিনি৷

দ্য মনস্টার

এ বছরের জনপ্রিয়তার তালিকায় অন্যতম লেখক হাঙ্গেরীয় বংশোদ্ভূত তেরেৎসিয়া মোরা৷ তাঁর সবশেষ উপন্যাসটি যেখানে সমাপ্ত হয়েছে নতুন উপন্যাসটির শুরু সেখান থেকে৷ আইটি বিশেষজ্ঞ দারিয়ুস কপকে নিয়েই এগিয়ে গেছে এবারের কাহিনি৷ চাকরি হারানো এবং স্ত্রীর আত্মহত্যার পর কিভাবে নিজেকে খাপ খাইয়ে নেন, সেটাই নিয়ে এবারের কাহিনি৷ মানবতাবোধ, একাকিত্ব মানবজীবনের বেশ কয়েকটি দিক উঠে এসেছে এবারের উপন্যাসে৷ স্ত্রীর মৃত্যুর পর কপ হাঙ্গেরি যান, যেখানে তাঁর স্ত্রী শৈশব কাটিয়েছিলেন, সেখানে স্মৃতি হাতরে বেড়ান এবং কিছু প্রশ্নের উত্তর খোঁজেন৷

দ্য পজিশন অফ দ্য সান

৪৩ বছর বয়সি লেখিকা মারিঅন পশমান আসলে একজন কবি৷ আর তাঁর নতুন উপন্যাস ‘দ্য পজিশন অফ দ্য সান'-এ নিজ কাব্যিক ভাবের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে৷ তাঁর ভাষার গাঁথুনি উপন্যাসটিকে প্রাণ দিয়েছে৷ তৎকালীন পূর্ব এবং পশ্চিম জার্মানির ইতিহাস একজন মানুষের জীবনকে কিভাবে প্রভাবিত করে, উপন্যাসে উঠে এসেছে সেই চিত্র৷

দ্য অর্ডার অফ দ্য স্টার্স অ্যাবাভ কোমো

এ বছরের সবচেয়ে চমক লেখিকা মনিকা সাইনার৷ প্রথম লেখাতেই যিনি মাত করে দিয়েছেন পাঠক ও সমালোচকদের৷ ৬০০ পৃষ্ঠার ‘দ্য অর্ডার অফ দ্য স্টার্স অ্যাবাভ কোমো' উপন্যাসটি ৯০-এর দশকের বার্লিনের একটি পরিবারের কাহিনি নিয়ে৷ মনিকা ইটালির একটি ব্যান্ডের গায়িকা, যিনি রোমান্টিক পোয়েট্রিতে পিএইচডি করেছেন৷ তাঁর গল্প বলার ধরণে সংগীতের ছোঁয়া রয়েছে, যা তরুণ হৃদয়কে সহজেই আকৃষ্ট করবে বলে মনে করেন সমালোচকরা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন