জার্মান প্রেমিকা, তুমি কোথায়? | বিশ্ব | DW | 12.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ব্লগ

জার্মান প্রেমিকা, তুমি কোথায়?

জার্মানিতে আসার পর একটা কথা প্রায়ই শোনা যায়৷ ছেলে হলে বলবে, ‘‘একজন জার্মান গার্লফ্রেন্ড জুটিয়ে নাও ভাই৷'' আর মেয়ে হলে উল্টোটা৷ মজা করে কেউ কেউ বললেও সিরিয়াসলিও বলেন অনেকে৷ কারণ কী?

‘‘বহুদিন পরে আজ, বন্দরে বৃষ্টি এলো.. আমি কাহারে খুঁজে ফিরি?'' এক বছর হয়েছে জার্মানি এসেছি৷ এর মধ্যে বহুবার বহুজনের কাছ থেকে এমন পরামর্শ পেয়েছি৷ তাঁদের কথা মতো চললে হয়তো ওপরের গানের কথার মতোই আমার অবস্থা হতে পারত৷ কিন্তু হয়নি৷

কিন্তু এসব পরামর্শ এমনিই কেউ দেয় না৷ এর কারণ আছে৷ মূলত যে কারণে অনেকেই সিরিয়াসলি এই পরামর্শ দিয়ে থাকেন, তা হলো, ভাষা শেখা সহজ হয় তাতে৷ আরো অনেক কিছু সহজ হয়, তবে আজ ভাষা নিয়েই লিখব৷

জার্মানিতে আমি কাজ করি ডয়চে ভেলের বাংলা বিভাগে৷ মাঝে মধ্যে এশিয়া ইংরেজি বিভাগের জন্যও লিখি৷ তাই কার্যত আমার জার্মান ভাষা না জানলেও চলে৷ কিন্তু আসলেই কি তাই?

এখানে যে কেউ এলে প্রথমেই যে কাজটি করতে হয় তা হলো শহরের একটি প্রশাসনিক অফিসে গিয়ে নিজের নাম, ঠিকানা নিবন্ধন করা৷ এর আগে যে বাড়িতে থাকবেন, তার বাড়িওয়ালার সঙ্গে চুক্তি করা৷ তারপর পানি ও বিদ্যুতের বিল দেবার চুক্তি করা (ক্ষেত্র বিশেষে বাড়িওয়ালাই তা করেন)৷ এরপর চাকুরিজীবী হলে, যে প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করবেন তার সঙ্গে চুক্তি করা, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট করাসহ আরো অনেক কিছু৷

এর কয়েকদিন পর দেখবেন আপনার কাছে চিঠি এসেছে যে, মাসে প্রায় ১৮ ইউরো দিতে হবে টিভি দেখা বাবদ৷ হয়তো আপনার বাড়িতে টিভিই নেই৷ তাতেও কিছু যায় আসে না৷ টিভি দেখেন বা না দেখেন, পয়সা দিতে হবে৷ মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন? চুক্তি করুন মোবাইল অপারেটরের সঙ্গে৷

এগুলো নিত্যপ্রয়োজনীয়৷ এর বাইরেও আছে অনেক কিছু৷ সবমিলিয়ে নানান রকমের চিঠি আসবে আপনার কাছে৷

ভাববেন না, ওপরের যা কিছু বললাম তার কোথাও একটিও ইংরেজি অক্ষর লেখা তাকবে৷ চুক্তি করা থেকে যে কোনো রকমের চিঠি - সবই জার্মান ভাষায়৷ তাই এখানে বাঁচতে হলে জানতে হবে ভাষা৷

এখানেই শেষ নয়৷ সাইনবোর্ড বা কোনো বার্তাবাহক বোর্ড সবখানেই ডয়েচ ভাষা৷ ট্রাম বা বাসের ভেতর কোনো নির্দেশনা? তাও শুনতে হবে এবং বুঝতে হবে জার্মান ভাষাতেই৷ শুধু বিমানবন্দর কিংবা আন্তর্জাতিক রুটে চলা ট্রেনগুলোতে জার্মানের পাশাপাশি ইংরেজিতেও নির্দেশনা পড়া হয়৷

আরো আছে৷ রাস্তায় কারো সঙ্গে দেখা হলো৷ কিংবা কোনো দোকানে গিয়ে কিছু বলবেন৷ তারা ধরেই নেবে, আপনি জার্মান ভাষা জানেন৷ আপনার সঙ্গে অনেকক্ষণ কথা বলেও ফেলবে৷

এরপর আপনি ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে থাকবেন৷ অল্পবিস্তর ভাষা জানা থাকলে হয়তো জিজ্ঞেস করবেন, ‘‘স্প্রেশেন জি ইংলিশ?'' (আপনি ইংরেজি বলতে পারেন?)৷ যদি তিনি জানেন, তাহলে তো ভালোই৷

যুবায়ের আহমেদ

যুবায়ের আহমেদ, ডয়চে ভেলে

যদি না জানেন এবং বিষয়টিতে একেবারেই বিরক্ত না হন, তাহলেও ভালো৷ কিন্তু আপনার এমনও অভিজ্ঞতা হতে পারে যে, আপনার প্রশ্ন শুনে একেবারে উল্টো দিকেই হাঁটা দিতে শুরু করলেন সেই ব্যক্তি৷

বন শহরটিতে ডয়চে ভেলে, জাতিসংঘ, ডিএইচএল, ডয়চে টেলিকমের মতো কয়েকটি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান থাকায়, এখানে ভিন্ন ভিন্ন দেশের অনেক নাগরিক থাকেন৷ তারপরও ভাষা মোটামুটি না জানলে চলাফেরাই মুশকিল৷

সবচেয়ে বড় সমস্যা এখানকার কাগজপত্রের বালাই৷ ডিজিটাল এই যুগে হার্ডকপি দিয়ে চলে জার্মানি৷ তাই আপনি গুগল ট্রান্সলেটে কপি পেস্ট করে দেখে নেবেন কাগজে কী লেখা আছে, তা সম্ভব নয়৷

এখানে সবচেয়ে অবাক করার ব্যাপার যে সবাই ধরেই নেয় আপনি জার্মান জানেন৷ জার্মানিতে আসার আগে আমি যেসব দেশে গিয়েছি, সেখানে ইংরেজি জানা থাকলে বিদেশিদের সঙ্গে ইংরেজিতেই কথা বলেন সবাই৷ কিন্তু এখানে তা নয়৷

আসলে ইংরেজির মতো না হলেও জার্মানও একটি বহুদেশীয় ভাষা৷ জার্মানি, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, লিস্টেনস্টাইন, লুক্সেমবুর্গ, সুইজারল্যান্ড- এই ছয়টি দেশে এটি একটি রাষ্ট্রীয় ভাষা হিসেবে মর্যাদা পায়৷ এছাড়া ব্রাজিল, ডেনমার্ক, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ডসহ ১৩টি দেশে এটি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষা হিসেবে চিহ্নিত৷ অবশ্য মাত্র ১০ থেকে ১২ কোটি মানুষ এ ভাষায় কথা বলেন৷

সে যা-ই হোক, এ ভাষা এখানকার সর্বত্র বিরাজ করে৷ এদের জাতীয়তাবাদের বোধ বা অহম যা-ই বলুন না কেন, ভাষাকে সঙ্গে নিয়েই৷ তবে আমি বিশ্বাস করি না যে, ভাষা শেখার জন্য বা অন্য কোনো বৈষয়িক প্রয়োজনে প্রেমিকা খুঁজতে হবে৷ তাই আমি বরং এখানকার ভাষা শেখার স্কুলেই যাচ্ছি আপাতত৷

ভিনদেশে ভাষা নিয়ে আপনার অভিজ্ঞতা কী? লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন