জার্মানি: ম্যুনস্টারের আত্মঘাতী চালক জার্মান নাগরিক | বিশ্ব | DW | 08.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

জার্মানি: ম্যুনস্টারের আত্মঘাতী চালক জার্মান নাগরিক

শনিবার জার্মানির উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের ম্যুনস্টার শহরের সিটি সেন্টারে মানুষের ওপর গাড়ি তুলে দেওয়ার ঘটনায় গাড়ি চালকসহ তিনজন নিহত হয়েছেন৷ আহত ২০ জনের মধ্যে ছ'জনের অবস্থা আশংকাজনক৷ আত্মঘাতী চালক একজন জার্মান নাগরিক৷

নর্থ রাইন ভেস্টফালেন রাজ্যের ম্যুনস্টার শহরের কেন্দ্রে শনিবার ছুটির দিনে স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে তিনটে নাগাদ শহরের কেন্দ্র বা সিটি সেন্টারের কিপেনকার্ল পাবের বাইরে এই ঘটনা ঘটে৷ ৪৮ বছর বয়সি একজন জার্মান নাগরিক ধূসর রঙের ফলক্সভাগেন কোম্পানির একটি ক্যাম্পিং গাড়ি নিয়ে রেস্তোরাঁর বাইরে বসে থাকা মানুষের উপর দ্রুত গতিতে চালিয়ে দেন৷ ঘটনার পরপরই গাড়িচালক পিস্তল দিয়ে গাড়ির ভেতরে বসেই আত্মহত্যা করেন৷ পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনায় গাড়ি চালক ছাড়া দু'জন পথচারীর মৃত্যু হয়েছে৷ আহত হয়েছে ২০ জন৷ যাদের মধ্যে ছ'জনের অবস্থা আশংকাজনক৷



রবিবার সকালে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ম্যুনস্টার পুলিশ ও রাষ্ট্রীয় কৌঁসুলিরা নিশ্চিত করেছেন ৪৮ বছরের ঐ ব্যক্তি ম্যুনস্টারের বাসিন্দা ছিলেন৷ এর আগে অবশ্য নর্থ রাইন ভেস্টফালেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হ্যারবার্ট রয়েল জানিয়েছিলেন গাড়িচালক একজন জার্মান নাগরিক৷ পূর্ণ তদন্তের পর ঘটনার কারণ জানা সম্ভব বলে জানিয়েছেন তিনি৷

মানুষের অভাবনীয় সাড়া
ঘটনার সাথে সাথে স্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে আহতদের জন্য রক্ত দিতে জড়ো হন অনেক মানুষ৷ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন, মানুষের এমন স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ আগে কখনো দেখা যায়নি৷


এদিকে, ম্যুনস্টার পুলিশ ঘটনার পরপরই সবাইকে গুজব না ছড়ানোর আহ্বান জানান৷ তারা টুইটারে লেখেন, ‘ফেসবুক ও টুইটারে কেউ যেনো গুজব না ছড়ায়৷ আমরা ঘটনাস্থলে আছি৷ সিটি সেন্টার খালি করে দিন৷ বাড়ি ফিরে যান৷'


এছাড়া ঘটনার সময় যারা প্রত্যক্ষদর্শী ছিলেন, তাদের ডেকে পাঠিয়েছে পুলিশ৷ ঘটনার কোনো ছবি প্রকাশ করতে নিষেধ করা হয়েছে৷


জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল ম্যুনস্টার শহরের এই হামলায় নিহত ও আহত ব্যক্তিদের জন্য গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন৷ দুঃখ প্রকাশ করেছেন জার্মানি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও৷
ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাঁক্রো টুইটারে হতাহতদের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন৷


এপিবি/ডিজি (এপি, এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন