জার্মানি-পোল সীমান্তে আটক শরণার্থী-বিরোধী গোষ্ঠী | বিশ্ব | DW | 25.10.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

জার্মানি-পোল সীমান্তে আটক শরণার্থী-বিরোধী গোষ্ঠী

পোল্যান্ড থেকে শরণার্থীরা জার্মানিতে ঢুকছে, এই অভিযোগে পোল সীমান্তে পাহারার ব্যবস্থা করেছিল একটি জার্মান অতি-দক্ষিণপন্থি সংগঠন।

সম্প্রতি পোল্যান্ড এবং বেলারুশের মধ্যে শরণার্থী নিয়ে তীব্র বিতর্ক হয়েছে। পোল্যান্ড শরণার্থীদের বেলারুশে পাঠিয়ে দিচ্ছে বলে অভিযোগ। তারই মধ্যে রোববার জার্মান-পোল সীমান্তেও উত্তেজনা দেখা গেল। একটি অতি-দক্ষিণপন্থি জার্মান গোষ্ঠীর অভিযোগ, পোল্যান্ড জার্মানিতেও শরণার্থীদের পাঠানোর চেষ্টা করছে। সীমান্ত পেরিয়ে ওই শরণার্থীরা জার্মানির বিভিন্ন শহরে ছড়িয়ে পড়ছে। শরণার্থীদের ঠেকাতে তাই অস্ত্র নিয়ে নিজেরাই নেমে পড়েছিল ওই গোষ্ঠীর সদস্যরা। রোববার পুলিশ তাদের আটক করে।

দ্য থার্ড ওয়ে নামে ওই গোষ্ঠীর সদস্যদের কাছ থেকে পেপার স্প্রে বা গোলমরিচের স্প্রে, লাঠি, বেয়োনেট এবং কাঁটা লাগানো অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে। শরণার্থীরা সীমান্ত পেরনোর চেষ্টা করলেই ওই অস্ত্র নিয়ে তাদের রুখে দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল ওই গোষ্ঠীর। জার্মানির সীমান্ত শহর গুবেন থেকে পুলিশ তাদের আটক করে। সবমিলিয়ে প্রায় পঞ্চাশজন ওই কাজ করছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। তাদের কাছ থেকে সমস্ত অস্ত্র বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

শুধু গুবেন নয়, জার্মান সীমান্তের বহু জায়গায় এমন গোষ্ঠী তৈরি হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। নিজেদের হাতে আইন তুলে নিয়ে তারা পাহারার ব্যবস্থা করেছে বলে জানা গেছে। মিউনিখ-বার্লিনের মতো বড় শহরেও এমন গোষ্ঠী তৈরি হয়েছে বলে জানা গেছে।

তালেবান আফগানিস্তান দখল করার পর থেকে ইউরোপে শরণার্থী ঢেউ বেশ খানিকটা বেড়েছে। তার সিরিয়া, ইরাক এবং আফ্রিকা থেকে শরণার্থীরা নিয়মিত ইউরোপে ঢুকছিলেন। বেলারুশ হয়ে পোল্যান্ড দিয়ে ইউরোপের বিভিন্ন শহরে ছড়িয়ে পড়ার একটি নতুন রাস্তা আবিষ্কার করেছিলেন শরণার্থীরা। কিন্তু পোল্যান্ড কার্যত বর্ডার সিল করে দিয়েছে। সীমান্তের শরণার্থীদের তারা ফের বেলারুশে ঠেলে দিচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে পোল্যান্ড থেকে বহু শরণার্থী জার্মানিতে ঢুকে পড়ার চেষ্টা করছে বলে জার্মান সীমান্তে বসবাসকারীদের একাংশের অভিযোগ। ফলে অতি-দক্ষিণপন্থিরা তাদের আটকাতে ছোট ছোট গোষ্ঠী তৈরি করছে।

পাল্টা গোষ্ঠীও তৈরি হয়েছে। অতি-দক্ষিণপন্থিদের আটকাতে সীমান্ত অঞ্চলে পাল্টা গোষ্ঠীো তৈরি হয়েছে। তারা অতি-দক্ষিণপন্থিদের কার্যকলাপে নজর রাখছে। প্রতিবাদ মিছিলও করছে।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, ডিপিএ)

সংশ্লিষ্ট বিষয়