জার্মানি করোনা সংকটের অবনতির জন্য প্রস্তুত | বিশ্ব | DW | 26.03.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

করোনা-সংকট

জার্মানি করোনা সংকটের অবনতির জন্য প্রস্তুত

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের গতি আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন জার্মান স্বাস্থ্যমন্ত্রী৷ বৃহস্পতিবার তিনি এ প্রসঙ্গে সরকারের সার্বিক নীতি তুলে ধরেন৷ রবার্ট কখ ইনস্টিটিউটও করোনার গতি সম্পর্কে নিশ্চিত নয়৷

Pressekonferenz zum Thema Coronavirus (Reuters/F. Bensch)

ইয়েন্স স্পান

জার্মান স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন্স স্পান করোনা সংকটের মোকাবিলার ক্ষেত্রে ভারসাম্য রাখার উপর জোর দিচ্ছেন৷ সংক্রমণ বেড়ে চললেও মৃত্যুর হার কম থাকার কারণে আন্তর্জাতিক মঞ্চে জার্মানির পদক্ষেপের প্রশংসা করা হচ্ছে৷ তবে স্পান জার্মানিতে করোনা ভাইরাসের বিস্তার সম্পর্কে সতর্ক থাকার পক্ষে৷ তাঁর মতে, ঝড়ের আগে প্রকৃতি যেমন শান্ত থাকে, সম্ভবত করোনার ক্ষেত্রেও সেটাই ঘটছে৷ অর্থাৎ, জার্মানিতে অদূর ভবিষ্যতে সংক্রমণ ও সেইসঙ্গে মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে তিনি মনে করেন৷

এই অবস্থায় চলাফেরার ক্ষেত্রে বর্তমান বিধিনিষেধের পাশাপাশি আক্রান্ত মানুষকে দ্রুত শনাক্ত করা এবং তাদের চিকিৎসার যাবতীয় ব্যবস্থা করা অত্যন্ত জরুরি বলে মনে করেন জার্মান স্বাস্থ্যমন্ত্রী৷ হাসপাতালে পর্যাপ্ত সরঞ্জাম, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী নিশ্চিত করতে চান তিনি৷ স্পানের মতে, সেইসঙ্গে সবাই নিয়ম মেনে চললে তবেই কড়াকড়ি শিথিল করা যেতে পারে৷ তিনি বলেন, গত ৭৫ বছরে জার্মানির স্বাস্থ্য পরিষেবা অবকাঠামো সম্ভবত এত বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়নি৷ রাজনৈতিক নেতারা সংকট সামলাতে ব্যস্ত এবং সাধারণ মানুষের উপর অভূতপূর্ব নিষেধাজ্ঞা চাপানো হয়েছে৷

জার্মান স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ইস্টারের ছুটির পর জার্মানিতে ফেডারেল ও রাজ্য স্তরের মধ্যে পারস্পরিক সমন্বয়ের মাধ্যমে জীবনযাত্রা কিছুটা অন্তত স্বাভাবিক করে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হবে৷ তবে স্পান এই লক্ষ্যে প্রথা ভেঙে স্মার্টফোনের লোকেশন বা অবস্থান সংক্রান্ত তথ্য কাজে লাগানোর পক্ষে যুক্তি দেখালেও সরকার ও মন্ত্রিসভার মধ্যে এমন প্রস্তাবের অনেক বিরোধী রয়েছে৷

জার্মানির রবার্ট কখ ইনস্টিটিউটের প্রধান লোটার ভিলার মনে করেন, জার্মানিতে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের গতিপ্রকৃতি সম্পর্কে এখনো নিশ্চিতভাবে কিছু বলা সম্ভব নয়৷ বেশ কিছু বৃদ্ধাশ্রমে করোনার সংক্রমণ বেড়ে চলায় তিনি দুশ্চিন্তা প্রকাশ করেন৷ তাঁর মতে, বয়স্ক মানুষের সুরক্ষায় সাবধানতা আরো বাড়াতে হবে৷ উল্লেখ্য, এই প্রতিষ্ঠানের সর্বশেষ হিসেব অনুযায়ী বৃহস্পতিবার জার্মানিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ৩৬,০০০ পেরিয়ে গেছে৷ মৃতের সংখ্যা প্রায় ২০০ ছুঁতে চলেছে৷

এদিকে জার্মান প্রেসিডেন্ট ফ্রাংক-ভাল্টার স্টাইনমায়ার করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় ইউরোপীয় স্তরে আরো ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছেন৷ এ প্রসঙ্গে তিনি মনে করিয়ে দেন যে, করোনা ভাইরাসের কোনো নাগরিকত্ব নেই৷

এসবি/এসিবি (ডিপিএ/রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন