জার্মানির সমর্থন পেতে বার্লিনে মাক্রোঁ | বিশ্ব | DW | 19.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইইউ

জার্মানির সমর্থন পেতে বার্লিনে মাক্রোঁ

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সংস্কারের উদ্যোক্তা হিসেবে জার্মানির সমর্থন পেতে তৎপর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ৷ কিন্তু তাঁর বেশ কিছু প্রস্তাব বিরোধিতার মুখে পড়েছে৷ ইইউ শীর্ষ সম্মেলনের আগে ঐকমত্য চান তিনি৷

ব্রেক্সিট-সহ একাধিক চ্যালেঞ্জ সামলাতে ব্যস্ত ইউরোপীয় ইউনিয়ন৷ অনেকের মতে, প্রাতিষ্ঠানিক দুর্বলতা কাটিয়ে ইইউ-কে বর্তমান যুগের উপযোগী করে তোলার এটাই সঠিক সময়৷ এই মতবাদের কাণ্ডারী হিসেবে আসরে নেমেছেন ফ্রান্সের তরুণ প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ৷ তিনি মঙ্গলবার ইউরোপীয় পার্লামেন্টে সেই সংস্কারের প্রস্তাবের এক রূপরেখা তুলে ধরেছেন৷

তবে ইউরোপের অপর চালিকা শক্তি জার্মানিকে সঙ্গে না পেলে সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা কার্যত অসম্ভব৷ অথচ মাক্রোঁর কিছু প্রস্তাব জার্মানিতে বিরোধিতার মুখে পড়েছে৷ এমনই প্রেক্ষাপটে বার্লিনে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল-এর সঙ্গে আলোচনায় বসছেন মাক্রোঁ৷ আগামী জুন মাসে ইউরোপীয় ইউনিয়ন শীর্ষ সম্মেলনের আগে সংস্কারের পরিকল্পনাকে যতটা সম্ভব এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই তাঁর লক্ষ্য৷

অভিজ্ঞ নেতা হিসেবে ম্যার্কেল নিজেও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সংস্কারের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে সচেতন৷ কিন্তু চ্যান্সেলর হিসেবে চতুর্থ কার্যকালে তিনি আর আগের মতো শক্তিশালী নেই৷ একদিকে সংসদে আসন কমে গেছে৷ জোটসঙ্গী এসপিডি দল ইউরোপপন্থি হলেও নিজের ইউনিয়ন শিবিরেই ইউরোপ-সহ নানা বিষয়ে বাধার মুখে পড়ছেন তিনি৷ মাক্রোঁ-র প্রস্তাবিত সংস্কার সম্পর্কেও সিডিইউ ও সিএসইউ দলে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে৷ বিশেষ করে ইউরো এলাকার নিজস্ব বাজেট ও ইইউ স্তরে বেলআউটের জন্য নির্দিষ্ট তহবিল গড়ার বিরোধিতা করছে এই শিবিরের একটা বড় অংশ৷ বার্লিনে গিয়ে মাক্রোঁ সেই সব সংশয় দূর করতে পারবেন, এমন প্রত্যাশা কেউ করছে না৷

ইউরোপে আর্থিক ও অর্থনৈতিক সংকটের সময় থেকেই জার্মানিতে সংকটগ্রস্ত দেশগুলির জন্য ‘বেলআউট' নিয়ে বিরোধিতা দেখা গেছে৷ লাগামহীন ব্যয়, চরম বাজেট ঘাটতি অথবা অস্বাভাবিক ঋণভারের কারণে এই সব দেশে সংকট কাটাতে বাড়তি অর্থের প্রয়োজন হয়েছে৷ কিন্তু জার্মান করদাতাদের অর্থ ব্যয় করে তাদের প্রতি সংহতি দেখাতে চায়নি জার্মান রাজনীতি জগত৷ বরং গ্রিস-সহ বাকি দেশগুলিকে নিজস্ব সংস্কার চালিয়ে আবার ‘স্বাভাবিক' অবস্থায় ফিরে আসার উৎসাহ দিয়েছে জার্মানি৷ সে কারণে ইউরোপীয় অর্থ তহবিলের মতো উদ্যোগের বিষয়ে সংশয় কাজ করছে৷ ইউরোপের উত্তরের দেশগুলিও মাক্রোঁর প্রস্তাব সম্পর্কে সংশয় প্রকাশ করছে৷

মাক্রোঁ সংহতির ভিত্তিতে ইইউ-র সংস্কারের যে প্রস্তাব দিচ্ছেন, তার পালটা মডেল হিসেবে জার্মানি রাষ্ট্রজোট হিসেবে প্রতিযোগিতার বাজারে ইইউ-কে আরও মজবুত করে তোলার পক্ষে৷ জার্মানি চায়, দুর্বল দেশগুলিকে ধারাবাহিকভাবে শুধু বাইরে থেকে সাহায্যের উপর নির্ভরশীল না রেখে প্রয়োজনীয় সংস্কারের মাধ্যমে তাদের অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী হয়ে উঠতে হবে৷ ম্যার্কেল সেইসঙ্গে অভিন্ন শরণার্থী নীতির পক্ষেও সওয়াল করছেন৷ পররাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা ও গবেষণার ক্ষেত্রেও অভিন্ন ইউরোপীয় নীতি চান তিনি৷

এসবি/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়