জার্মানির শরণার্থী সমর্থক রাজনীতিকদের হত্যার হুমকি | বিশ্ব | DW | 20.06.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

জার্মানির শরণার্থী সমর্থক রাজনীতিকদের হত্যার হুমকি

জার্মানির রাজনীতিক ভাল্টার ল্যুবকে হত্যার তদন্ত চলার মধ্যে কোলন শহরের মেয়রসহ কয়েকজন শরণার্থী সমর্থক রাজনীতিককে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে৷

কাসেলের শরণার্থী সমর্থক প্রেসিডেন্ট ল্যুবকে-কে হত্যার সঙ্গে উগ্র-ডানপন্থীরা জড়িত বলে সন্দেহ তদন্তকারীদের৷ এর মধ্যে বুধবার পুলিশ জানিয়েছে, কোলনের মেয়র হেনরিয়েটে রেকারকে হত্যার হুমকি পেয়েছেন৷

পুলিশের বরাত দিয়ে কোলনের বহুল প্রচারিত পত্রিকা ‘বিল্ড' জানিয়েছে, মেয়রকে হুমকি দেওয়ার পেছনেও উগ্র-ডানপন্থীদের কেউ জড়িত থাকতে পারে৷ তবে, দুইটি ঘটনা একইসূত্রে গাঁথা কি-না, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷

জুনের শুরুতে গুপ্তহত্যার শিকার হন কাসেলের আঞ্চলিক প্রেসিডেন্ট ল্যুবকে৷ শরণার্থী ইস্যুতে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের নীতির পক্ষে ছিলেন তিনি৷ হত্যার পর থেকে উগ্র-ডানপন্থী এএফডি দলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙ্গুল তুলছে অন্য রাজনৈতিক দলগুলো৷

এর আগে ২০১৫ সালে ভোটের প্রচারের সময় এক হামলার গুরুতর আহত হয়েছিলেন মেয়র হেনরিয়েটে রেকার৷ ডানপন্থী এক উগ্রবাদী তাঁর উপর ছুরি নিয়ে হামলা চালিয়েছিল৷ শরণার্থীদের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় তাঁকে টার্গেট করার কথা জানিয়েছিল হামলাকারী৷

হুমকি পাওয়া অন্য রাজনীতিকরা

হেনরিয়েটে ছাড়া আরো কয়েকজন শরণার্থী সমর্থক রাজনীতিক হত্যার হুমকি পেয়েছেন বলে জানিয়েছে জার্মানির বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম৷

স্থানীয় পাবলিক ব্রডকাস্টার ভেডেএয়া জানিয়েছে, হত্যার হুমকি পাওয়া রাজনীতিকদের মধ্যে পশ্চিমের শহর আল্টেনার মেয়র আন্ড্রিয়াস হলস্টেইন রয়েছেন৷ রেকারের মতো হলস্টেইনও ২০১৭ সালে একটি দোকানে অভিবাসন-বিরোধী এক ব্যক্তির হামলায় আহত হয়েছিলেন৷

সব ঘটনার তদন্ত তদারক করছে করছে রাজধানী বার্লিনের তদন্তকারীরা৷ ল্যুবকে হত্যার ঘটনায় আটক আছেন এক ব্যক্তি, যাকে উগ্র-ডানপন্থী সমর্থক হিসাবে মনে করা হচ্ছে৷

রেবেকা স্টাউডেনমাইয়ার/এমবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন