জার্মানির মানুষ আবার চুল কাটাতে যেতে পারেন | বিশ্ব | DW | 04.05.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইউরোপ

জার্মানির মানুষ আবার চুল কাটাতে যেতে পারেন

সোমবার থেকে জার্মানিসহ ইউরোপের কিছু দেশের মানুষ সীমিত হলেও কিছু ‘স্বাধীনতা’ ভোগ করার সুযোগ পাচ্ছেন৷ করোনা সংকট থেকে ধীরে ধীরে বেরিয়ে আসতে এই সব পদক্ষেপের পরিণাম নিয়ে অবশ্য সংশয় রয়েছে৷

মানুষের উপর এমন পরীক্ষা সম্ভবত এর আগে হয় নি৷ করোনা সংকটের জের ধরে লকডাউন বা অন্যান্য কড়াকড়ির মাধ্যমে বিশ্বের অনেক দেশে জনজীবন কার্যত স্তব্ধ হয়ে গেছে৷ সোমবার থেকে ইউরোপের একাধিক দেশে আরও কিছু বিধিনিয়ম শিথিল করা হচ্ছে৷ কিন্তু অন্যদিকে আরও বেশি মানুষ প্রকাশ্যে এলে সংক্রমণ কতটা ছড়িয়ে পড়তে পারে, সে বিষয়ে কোনও নিশ্চয়তা নেই৷ সঙ্গত কারণেই এমন ‘সাহসি’ পদক্ষেপের ফলাফল জানতে কমপক্ষে দশ দিন সময় লেগে যাবে৷ প্রশ্ন হলো, আক্রান্তের সংখ্যা মারাত্মক হারে বেড়ে গেলে সরকার ও প্রশাসনের পক্ষে পরিস্থিতি সামলানো সম্ভব হবে কি?

সোমবার থেকে জার্মানিতে কিছু ক্ষেত্রে পরিবেশ স্বাভাবিক হচ্ছে৷ কড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে সে দেশের মানুষ আবার চুল কাটার সেলুনে যেতে পারছেন৷ আরও শিক্ষার্থী স্কুলে ফিরছে৷ রাজ্য অনুযায়ী আরও কিছু ‘স্বাধীনতা’ উপভোগ করতে পারছেন মানুষ৷ করোনা সংক্রমণের হার অপেক্ষাকৃত কম থাকার ফলে পূবের স্যাক্সনি-আনহাল্ট রাজ্য প্রকাশ্যে পাঁচ জন পর্যন্ত মানুষের সমাবেশের অনুমতি দিচ্ছে৷

তবে ইউরোপের যে দেশের উপর সবার নজর, সেই ইটালির মানুষও প্রায় নয় সপ্তাহ ধরে কার্যত গৃহবন্দি থাকার পর সোমবার থেকে আবার প্রকাশ্যে বেরিয়ে কিছু কাজ করতে পারছেন৷ নির্মাণ ও উৎপাদনের কাজ ধীরে ধীরে শুরু হচ্ছে৷ প্রায় ৪০ লাখ শ্রমিক কাজে ফিরছেন৷ বার ও রেস্তোরাঁয় প্রবেশ করতে না পারলেও সেখান থেকে খাবার কেনার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে৷ আইসক্রিমের দোকান অবশ্য এখনই খোলা যাবে না৷ খোলা আকাশের নীচে বের হবার ও আত্নীয়স্বজনের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পাচ্ছেন মানুষ, যদিও কারা এই নিয়মের আওতায় পড়েন, তা নিয়ে কিছু বিভ্রান্তি রয়েছে৷ কম মানুষের সমাগম হলে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়াও আবার সম্ভব হচ্ছে৷ গণপরিবহণ ব্যবস্থা আবার চালু বলেও মানুষের ভিড় এড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে৷ ফেডারেল কাঠামোর কারণে ইটালির বিভিন্ন অঞ্চলে আলাদা কিছু নিয়ম চালু করা হচ্ছে৷

অস্ট্রিয়ায় প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও অন্যান্য স্কুলের চূড়ান্ত বছরের প্রায় এক লাখ শিক্ষার্থী সোমবার থেকে স্কুলে ফিরছে৷ তাদের অবশ্য সামাজিক ব্যবধানের নিয়ম ও অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে৷ সে দেশে বৃদ্ধাশ্রমের বাসিন্দাদের আত্মীয়স্বজনও আবার দেখা করতে আসতে পারবেন৷ অবশ্যই কড়া নিয়ম মেনে সেই কাজ করতে হবে৷

বেলজিয়ামে করোনা ভাইরাসের কারণে মৃত্যুর হার মারাত্মক আকার ধারণ করেছিল৷ সে দেশে এখনো বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বাসা থেকেই দপ্তরের কাজ চালিয়ে যাওয়া হলেও সোমবার থেকে কিছু কারখানা ও শিল্প প্রতিষ্ঠানে কাজ শুরু হচ্ছে৷ গণপরিবহণ ব্যবস্থাও কিছুটা স্বাভাবিক করা হচ্ছে৷ সীমিত আকারে খেলাধুলার অনুমতিও দিচ্ছে সরকার৷

ক্রোয়েশিয়া, সাইপ্রাস, গ্রিস, হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, লিথুয়েনিয়া, লুক্সেমবুর্গ ও পোল্যান্ডের মতো দেশও সোমবার থেকে কিছু বিধিনিয়ম শিথিল করছে৷

এসবি/কেএম (ডিপিএ, এএফপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন