জার্মানির এলিট ফোর্সের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে | বিশ্ব | DW | 10.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

জার্মানির এলিট ফোর্সের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে

জার্মানির সামরিক বাহিনীর এলিট ইউনিট ‘কমান্ডো স্পেৎসিয়ালক্র্যাফ্টে' বা কেএসকে-র বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে৷ এই ইউনিটের অনেক সদস্যের বিরুদ্ধে উগ্র ডানপন্থি মতাদর্শের প্রতি সমর্থন থাকার অভিযোগ উঠেছে৷

জার্মানির সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা ‘মিলিটারি কাউন্টারইন্টেলিজেন্স সার্ভিস' বা এমএডি এই তদন্ত করছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে৷

এর আগে জার্মানির সামরিক বাহিনীর মধ্যে থাকা উগ্র ডানপন্থি মতাদর্শের সমর্থনকারী সৈন্যদের বিরুদ্ধে তদন্ত হয়েছে৷ তবে এই প্রথম এলিট ইউনিট কেএসকে-র কমান্ডোদের বিরুদ্ধে তদন্ত হচ্ছে৷

কেএসকে-র সদস্য সংখ্যা প্রায় ১,১০০৷ বলকান ও মধ্যপ্রাচ্যে বিভিন্ন অভিযান পরিচালনায় প্রায়ই এই ইউনিটের সহায়তা নিয়ে থাকে ন্যাটো ও যুক্তরাষ্ট্র৷

বিভিন্ন নিরাপত্তা সূত্র স্পিগেল ম্যাগাজিনকে জানিয়েছেন, কেএসকে-তে উগ্র-ডানপন্থি মতবাদের সমর্থনকারী সৈন্যের সংখ্যা ‘অনেক বেশি'৷

জার্মানির উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী গেয়ার্ড হুফে সংসদীয় এক কমিটিকে বলেছেন, কেএসকে ইউনিটে চরমপন্থার সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে৷

বাভারিয়া রাজ্যে অবস্থিত কেএসকে ইউনিটের ফ্রানৎস-ইওসেফ-স্ট্রাউস ক্যাম্পে সমস্যা বেশি বলে জানিয়েছে ‘রিডাকসিউনসনেৎসভ্যার্ক ডয়েচলান্ড'৷ নব্বই দশকের একটি ঘটনার জন্য ক্যাম্পটি বেশ পরিচিত৷ সেই সময় ক্যাম্পের সৈন্যরা হিটলারের জন্মদিন পালন ও নাৎসি পার্টির সংগীত গাইতে গিয়ে এমএডির গোয়েন্দাদের হাতে ধরা পড়েছিলেন৷

কেএসকে ইউনিটের যে সদস্যদের সঙ্গে জার্মান সেনাবাহিনীর সদস্য ফ্রাঙ্কো এ.-র সম্পর্ক রয়েছে তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে৷ ফ্রাঙ্কো এ. ২০১৭ সালে ভিয়েনা বিমানবন্দরে নিজের লুকিয়ে রাখা অস্ত্র বের করতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছিলেন৷ পরে তাঁর বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ রাজনীতিবিদ ও ব্যক্তিদের মধ্যে যাঁরা ‘শরণার্থীবান্ধব' তাঁদের উপর হামলা পরিকল্পনার অভিযোগ আনা হয়েছিল৷

এলিজাবেথ শুমাখার/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন