জার্মানিতে হিজাব পরা প্রার্থী নিয়ে বিতর্ক | বিশ্ব | DW | 30.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

জার্মানিতে হিজাব পরা প্রার্থী নিয়ে বিতর্ক

জার্মানির ব্যবসাবান্ধব রাজনৈতিক দল মুক্ত গণতন্ত্রী বা এফডিপি স্থানীয় নির্বাচনে হিজাব পরা এক প্রার্থীকে মনোনয়ন দিয়েছে৷ আয়গ্যুল কিলিচ নামের ঐ প্রার্থী অনলাইনে বিরূপ মন্তব্যের শিকার হয়েছেন৷

উত্তর জার্মানির নয়ম্যুনস্টারের স্থানীয় নির্বাচনে দাঁড়িয়েছেন কিলিচ৷ ২৫ মার্চ নিজের ফেসবুকে এ সংক্রান্ত একটি পোস্টার প্রকাশ করেন তিনি৷ পরে দ্রুতই ফেসবুক আর টুইটারে সেটি সম্পর্কে সমালোচনামূলক মন্তব্য ছড়িয়ে পড়ে৷ অনেকে প্রশ্ন করেন, এফডিপি কীভাবে এমন পোশাক পরা একজনকে প্রার্থী করলো?

অনলাইনে এমন বিতর্কের পর এফডিপির নয়ম্যুনস্টার শাখা একটি বিবৃতি দিয়েছে৷ কিলিচকে নিয়ে যে ধরনের মন্তব্য করা হচ্ছে সেগুলোকে ‘ঘৃণাপূর্ণ’ ও ‘ডানপন্থি’ বলে আখ্যায়িত করেছে দলটি৷ এছাড়া বিবৃতিতে এফডিপি বলেছে, ‘‘প্রগতিশীল ও উদার মানুষ হচ্ছেন তাঁরা, যাঁরা অন্য সংস্কৃতি, ধর্ম ও দেশের মানুষ কী পরবে সে ব্যাপারে নাক গলায় না৷’’

জাতীয় পর্যায়ের সাংসদরাও এই বিতর্কে অংশ নিয়েছেন৷ অভিবাসন ও ইসলামবিরোধী দল এএফডির বেয়াট্রিক্স ফন স্টর্স বিষয়টি নিয়ে টুইটারে একটি শ্লেষপূর্ণ পোস্ট দিয়েছেন৷ তিনি কিলিচের কাছে জানতে চেয়েছেন, ‘‘খ্রিস্টান ও ইহুদিদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে বিবেচনা করা’’ ইসলামি আইন তিনি (কিলিচ) প্রত্যাখ্যান করেন কিনা৷

এদিকে, জার্মানির সংসদে এফডিপির সংসদ সদস্য কন্সটানটিন কুলে কিলিচের ঘটনায় নিজেকে গর্বিত মনে করছেন৷ ‘‘এমন এক দলের অংশ হয়ে আমি গর্বিত, যারা কিলিচের মতো নারীকে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় অংশ নেয়ার সুযোগ দিয়েছে,’’ টুইটে লেখেন তিনি৷

তবে এই ঘটনায় কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এফডিপির ভাইস চেয়ারম্যান ভল্ফগাঙ কুবিচকি৷ জার্মান দৈনিক ‘ডি ভেল্ট’কে তিনি বলেন, ‘‘হেডস্কার্ফ পরা বা না পরা একজন মুসলিম প্রার্থীর যারা সমালোচনা করছে, তাদের নরকে যাওয়া উচিত৷’’

ডি ভেল্ট-এর এফডিপিপন্থি সম্পাদক উল্ফ পোশার্ড্ট কিলিচের সমর্থকদের ভয় না পাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন৷ কারণ, উদারপন্থিরা জানেন ‘‘হেডস্কার্ফের নীচে যা ঘটে, সেটিই গুরুত্বপূর্ণ,’’ বলেন তিনি৷

উল্লেখ্য, নয়ম্যুনস্টার শহরে ৬ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে৷

আলেকজান্ডার পেয়ারসন/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন