জার্মানিতে ভাড়াটে উৎখাতের ঘটনা ক্রমেই বাড়ছে | জার্মানি ইউরোপ | DW | 30.12.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

জার্মানিতে ভাড়াটে উৎখাতের ঘটনা ক্রমেই বাড়ছে

জার্মানিতে বাড়ির মালিকরা অনেক সময় ভাড়া বাড়ানো ও ঝামেলা কমানোর জন্য ভাড়াটেদের উঠিয়ে দেন৷ প্রয়োজন হলে আদালতের মাধ্যমেও৷ গত কয়েক বছরে এইভাবে ভাড়াটে উচ্ছেদের সংখ্যা অনেক বেড়ে গিয়েছে৷

ভাড়াটেদের বিতারণ করতে গিয়ে আদালতের কর্মচারীরা অনেক সময় বিপাকে পড়েন৷ কয়েক মাস আগে পটসডামে এক আদালত কর্মী ভয়ানক এক দুর্ঘটনার সম্মুখীন হন৷ ৫৫ বছর বয়সি ভাড়াটে মহিলা সেলারে ঢুকে একটি কম্বলে আগুন জ্বালিয়ে দেন৷ বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হয়৷ সেই ভাড়াটেকে তখন অবশ্য পথে বসতে হয়নি৷ পাঠানো হয়েছিল হাসপাতালে৷ এর আগে কার্লসরুয়ে শহরে এক ব্যক্তি বাড়ি থেকে বের করার সময় আদালতকর্মীকে গুলি করে হত্যা করেন৷ ‘উচ্ছেদ রোধ কর' উদ্যোগের মুখপাত্র ইউলিয়া শ্মিডবাউয়ার বলেন ‘‘এইভাবে উচ্ছেদ করা মানুষের জীবনের জন্য ঝুঁকি হয়ে দাঁড়ায়৷''

Berlin Aktionstag gegen Mieterhöhung 28.09.2013

বাড়ি ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে বার্লিনে আন্দোলন (ফাইল ফটো)

জার্মানিতে ভাড়াটে উচ্ছেদের ঘটনা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে৷ ‘‘গত বছর সারা জার্মানিতে ২৫,০০০ উচ্ছেদের ঘটনা ঘটে বলে জানান ‘গৃহহীন সাহায্য সমিতির' টমাস শ্পেখট৷ এছাড়া ৪০,০০০ উৎখাতের ঘটনা ঘটে আদালতের অনুমোদন ছাড়াই৷ অভিযোগ আদালতে ওঠার আগে বা মামলা চলাকালে অনেক ভাড়াটে বাড়ি ছেড়ে দেন৷ ২০১০ সালে ২০,০০০টি উচ্ছেদের ঘটনা ঘটে৷ রাজধানী বার্লিনে ২০০৯ সালে ৫০০০-এর কিছু ওপর, ২০১১ সালে প্রায় ৭,০০০ ভাড়াটে বিতারণের ঘটনা ঘটে৷

বাড়ির মালিকরা কেন ভাড়াটেদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেন, তার ব্যাখ্যা দেন ইউলিয়া শ্মিডবাউয়ার৷ ‘‘একদিকে মানুষের পকেটে অর্থ কমে আসছে৷ অন্যদিকে ভাড়াও দ্রুতগতিতে বাড়ছে৷ তাই ভাড়াটে বের করার জন্য অনেক সময় আইনি ব্যবস্থা নেন বাড়িওয়ালারা৷''

বৃদ্ধ বয়সের জন্য আর্থিক নিরাপত্তা

আইনজীবী আলেক্সান্ডার ব্রডেরেকে আরেকটি কারণের কথাও জানান, মালিকরা বৃদ্ধ বয়সের আর্থিক নিরাপত্তার কথা ভেবেও ভাড়া বাড়াতে চান৷ অনেকে বাড়িটা নিজেই ব্যবহার করতে চান বলে ভাড়াটে উঠিয়ে দেন৷

এছাড়া অনেক বাড়িওয়ালা দয়ামায়াহীনও বটে৷ ভাড়ার ঊর্ধ্বগতি দেখা দিলে কেউ কেউ লোভ সামলাতে পারেন না৷ ভাড়ার ব্যাপারে ভাড়াটেদের সঙ্গে সমঝোতা করতেও রাজি হন না৷

বার্লিনে ভাড়াটেদের অবস্থা আরো সঙ্গিন৷ বর্তমান ভাড়াটেকে বিদায় করতে পারলে দ্বিগুণ ভাড়া দিয়ে পরের ভাড়াটে আনতে পারেন বাড়ির মালিকরা৷ এই সুযোগটা অনেকে হাত ছাড়া করতে চান না৷

প্রায়ই সামাজিক ভাতাভোগীরা উচ্ছেদের শিকার হন৷ এক্ষেত্রে অনেক সময় সোশাল সার্ভিস তাদের সাহায্য করে থাকে৷ বাড়িওয়ালা হিসাবে রিয়েল এস্টেট কোম্পানিগুলি কিছুটা নমনীয়৷ কিছুটা মাশুল দিলে তাদের ভাড়াটেরা উৎখাতের হাত থেকে রক্ষা পান৷ কিন্তু সমস্যা হলো জার্মানিতে ব্যক্তিগত মালিকানার বাড়িই ৮০ শতাংশ৷ তাদের অনেকেই ভাড়ার ব্যাপারে নমনীয় হতে রাজি হন না৷

মালিক পক্ষেরও যুক্তি রয়েছে

আলাপ আলোচনায় অনীহার ব্যাপারে বাড়ির মালিকদের পক্ষেও যুক্তি রয়েছে৷ বাড়ি মালিক সমিতির কাই ভার্নেকে ডয়চে ভেলের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘‘জার্মানির বাড়িভাড়া সংক্রান্ত আইনকানুনে ভাড়াটেকেই অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে৷''

আদালতের রায় প্রায়ই ভাড়াটের পক্ষে যায়৷ অনেক ক্ষেত্রে ভাড়াটেকে নোটিশ দেওয়ার পর তাঁর বিদ্যুৎ ও পানির বিল বাড়িওয়ালাকে দিতে বলা হয়৷ তাই বাড়ির মালিকরাও ‘অপ্রিয়' ভাড়াটেকে উঠিয়ে দিতে চান৷ অবশ্য কিছু কিছু বাড়ির মালিক শুধু লাভের জন্যও ‘সস্তার' ভাড়াটেকে উঠিয়ে দেন৷

কারণটা যাই হোক না কেন জার্মানিতে উচ্ছেদের ঘটনা বাড়ছে৷ সেই সাথে বাড়ছে গৃহহীনদের সংখ্যাও৷ অদূর ভবিষ্যতে এ ক্ষেত্রে পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন