জার্মানিতে বিদেশিদের উপর হামলার বিচার শুরু | বিশ্ব | DW | 30.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

জার্মানিতে বিদেশিদের উপর হামলার বিচার শুরু

জার্মানির পূর্বাঞ্চলের সাক্সোনি রাজ্যের কেমনিৎস শহরে গড়ে ওঠা এক নব্য নাৎসি গোষ্ঠীর আট সদস্যের বিচার সোমবার শুরু হয়েছে৷ এদের মধ্যে পাঁচজনের বিরুদ্ধে বিদেশিদের উপর হামলার অভিযোগ রয়েছে৷

২১ থেকে ৩২ বছর বয়সি ঐ আটজন কট্টর ডানপন্থি ‘রেভুলিউশন কেমনিৎস' গোষ্ঠীর সদস্য৷

গতবছর সেপ্টেম্বরে একটি ‘ডানপন্থি সন্ত্রাসী সংগঠন গড়ে তোলার' অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে৷ আগামী বছরের এপ্রিল পর্যন্ত বিচার প্রক্রিয়া চলতে পারে৷

গতবছর আগস্টে আলা এস. নামে এক সিরীয় আশ্রয়প্রার্থীর ছুরিকাঘাতে ডানিয়েল এইচ. নামের এক জার্মান প্রাণ হারান৷ ঐ ঘটনার প্রতিবাদে কেমনিৎসে অভিবাসনবিরোধী দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়েছিল৷ সম্প্রতি সিরীয় ঐ নাগরিককে সাড়ে নয় বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে৷ 

কৌঁসুলিদের অভিযোগ, সোমবার বিচার শুরু হওয়া আটজনের মধ্যে পাঁচজন গতবছর সেপ্টেম্বরে কেমনিৎসে বসবাসরত বিদেশিদের উপর ‘কাচের বোতল, ওয়েটেড নাকল গ্লাভস (একধরনের অস্ত্র) ও ইলেক্ট্রোশক অ্যাপ্লায়েন্স' নিয়ে হামলা করেছিলেন৷ ঐ ঘটনা অক্টোবরের ৩ তারিখ বার্লিনে বড় হামলার পরিকল্পনার ‘পরীক্ষামূলক ব্যবস্থা' ছিল বলেও মন্তব্য করেন তারা৷

অক্টোবরের ১ তারিখ ঐ আটজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের নীতির কারণে ২০১৫ সালে প্রায় এক মিলিয়ন শরণার্থী জার্মানিতে প্রবেশ করেছিল৷ সাক্সোনি রাজ্যের অনেক মানুষ ম্যার্কেলের ঐ নীতির কঠোর সমালোচনা করেছিলেন৷ সে কারণে ঐ রাজ্যে কট্টর ডানপন্থি রাজনৈতিক দল ‘অল্টারনেটিভ ফর জার্মানি' বা এএফডি ও ইসলামবিরোধী সংগঠন পেগিডা বেশ জনপ্রিয়৷ সম্প্রতি অনুষ্ঠিত রাজ্য নির্বাচনে সাড়ে ২৭ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হয়েছে এএফডি৷

এদিকে, জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হর্স্ট সেহোফার সম্প্রতি বলেছেন, ডানপন্থি জঙ্গিরা এখন ‘ইসলামী মৌলবাদের মতোই বড় হুমকি' হয়ে উঠছে৷

গত সপ্তাহান্তে সেহোফার জানান, ডানপন্থিদের নিয়ে তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ ২০১৮ সালে এক হাজার ৯১টি অস্ত্র উদ্ধার করেছিল৷ ২০১৭ সালে সংখ্যাটি ছিল মাত্র ৬৭৬টি৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন