জার্মানিতে ফুটবল ম্যাচে এবার কম পুলিশ | খেলাধুলা | DW | 09.08.2014
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

জার্মানিতে ফুটবল ম্যাচে এবার কম পুলিশ

ফুটবল মাঠে হিংসাত্মক ঘটনার দৃষ্টান্তের অভাব নেই৷ ফ্যানের বেশে দুষ্কৃতিরা প্রায়ই এমন অঘটন ঘটিয়ে থাকে৷ কিন্তু সব ম্যাচে ঝুঁকির মাত্রা এক নয়৷ তাই জার্মানিতে অনেক ম্যাচে পুলিশের সংখ্যা কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে৷

জার্মানির ফেডারেল কাঠামোয় আইন-শৃঙ্খলা রাজ্যের বিষয়৷ প্রথমে নর্থরাইন ওয়েস্টফালিয়া রাজ্য ‘ঝুঁকিহীন' ফুটবল ম্যাচে পুলিশের সংখ্যা কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ তারপর দক্ষিণের বাডেন ভ্যুর্টেমব্যার্গ রাজ্যও একই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে৷ তবে স্থির হয়েছে, যে ম্যাচে সত্যি হিংসার ঝুঁকি রয়েছে, সেখানে স্টেডিয়ামে আরও বেশি পুলিশ মোতায়েন করা হবে৷

তবে কাগজে-কলমে ঝুঁকি থাকা বা না-থাকার বিষয়টির সঙ্গে বাস্তবের মিল থাকবে তো? বিষয়টি সম্পর্কে পুরোপুরি নিশ্চিত হতে নর্থরাইন ওয়েস্টফালিয়া রাজ্য আপাতত বুন্ডেসলিগার চলতি মরসুমে ৪টি ম্যাচে ‘পাইলট প্রকল্প' হিসেবে কম পুলিশ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ তারপর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷

এমন সিদ্ধান্তের পেছনে আরেকটি বড় কারণ হলো পুলিশ বাহিনীর উপর মাত্রাতিরিক্ত চাপ৷ ২০১২-২০১৩ সালের ফুটবল মরসুমে শুধু ট্রেনে ফ্যানদের উপর নজর রাখতেই সব মিলিয়ে ১১০,৯৫৪ জন ফেডারেল পুলিশ অফিসার সক্রিয় ছিলেন৷ তার আগের মরসুমে সংখ্যাটি ছিল ৯৭,৬৮৮৷ এর বিপুল ব্যয়ভার, ব্যবস্থাপনার সমস্যা ইত্যাদি নিয়ে হিমশিম খেতে হয়েছে কর্তৃপক্ষকে৷ তাছাড়া একই সময় অন্য জরুরি প্রয়োজনে সেই পুলিশকর্মীদের পাওয়া যায় না৷

DFB-Urteil gegen Dynamo Dresden

স্টেডিয়ামে পুলিশের সংখ্যা কমানোর উদ্যোগের নানা রকম প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে৷ ফুটবল ফ্যানরা বেশ খুশি৷ এমনকি কিছু বিশেষজ্ঞের মতে, আশেপাশে বেশি পুলিশ না থাকলে ফ্যানদের মধ্যে দায়িত্ববোধ বাড়বে, তারা নিজেরাই বাকিদের সংযত করার চেষ্টা করবে৷ অন্যদিকে ফুটবল ক্লাব সহ কিছু মহল দুশ্চিন্তায় পড়েছে৷ তাদের মতে, পুলিশ থাকবে না – এটা আগেভাগে জানতে পারলে দুষ্কৃতিরা গোলমাল বাঁধিয়ে দেবার বাড়তি সুযোগ পাবে৷ তাছাড়া স্টেডিয়ামে যাতায়াতের পথে হিংসার যে সব ঘটনা ঘটে, পুলিশ না থাকলে তাও বেড়ে যেতে পারে৷ ফুটবল ক্লাবগুলি নিরাপত্তার জন্য যে বিনিয়োগ করে, তা দিয়ে আংশিকভাবে কিছু ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব৷ তবে বেসরকারি কর্মীরা কোনো অবস্থাতেই পুলিশের ভূমিকা পালন করতে পারে না বলে মনে করে অনেক ক্লাব৷

এসবি/ডিজি (ডিপিএ, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন