1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
জার্মানিতে দ্রব্যমূল্য বাড়ায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর উপর চাপ বাড়তে পারে ছবি: Jens Büttner/dpa-Zentralbild/dpa /picture alliance

জার্মানিতে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, বিপদে দরিদ্র জনগোষ্ঠী

২৩ জানুয়ারি ২০২২

জার্মানিতে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ায় দুশ্চিন্তা বাড়ছে ভোক্তাদের৷ ৩০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ মূল্যবৃদ্ধি এটি৷ এর ফলে দরিদ্র শ্রেণির মানুষ সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়বে৷

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%AE%E0%A7%82%E0%A6%B2%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%8A%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%A7%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A6%97%E0%A6%A4%E0%A6%BF-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%AA%E0%A6%A6%E0%A7%87-%E0%A6%A6%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%B0-%E0%A6%9C%E0%A6%A8%E0%A6%97%E0%A7%8B%E0%A6%B7%E0%A7%8D%E0%A6%A0%E0%A7%80/a-60528767

একদিকে জাঁকিয়ে শীত, অন্যদিকে বৃষ্টি, তার মধ্যেই পশ্চিম জার্মানির বন শহরের একটা খাবারের দোকানের (টাফেল) সামনে তাঁবু খাটিয়ে অপেক্ষা করছিলেন স্বেচ্ছাসেবকরা৷ টাটকা সবজি, ফল ও অন্য জরুরি জিনিস পাশের সুপারমার্কেট থেকে নিয়ে এসেছেন তারা৷ অবসরকালীন সামান্য ভাতা পান এমন ব্যক্তি, বেকার এবং স্থানীয় গরিব মানুষদের মধ্যে বিতরণ করা হবে বেঁচে যাওয়া বেশ কিছু খাবার, যদিও এগুলো বাজারে বিক্রির মতো টাটকা নয়৷

টাফেলের এক স্বেচ্ছাসেবী গুন্টার গিজা ডয়চে ভেলেকে বলেন, মাসের শেষে নিঃস্ব মানুষজন এসে জিজ্ঞাসা করছেন, আরও একটু বেশি খাবার পাওয়া সম্ভব কি না৷ বোঝাই যাচ্ছে, এই মূল্যবৃদ্ধি উদ্বেগজনক, যা কোনওভাবেই পূরণ করা সম্ভব নয়৷ 

কয়েক দশকের মধ্যে এমন ঘটনা ঘটেনি

বুধবারের পরিসংখ্যান বলছে, ২০২১ সালে জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে ৩.১ শতাংশ৷ এই মূল্যবৃদ্ধি ৩০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ৷ তুলনা করলে দেখা যাচ্ছে, ২০২০ সালের ডিসেম্বরের তুলনায় ২০২১ সালের ডিসেম্বরে প্রায় ৫ শতাংশ মূল্যবৃদ্ধি হয়েছে৷

বিশ্বজুড়ে জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে৷ জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি এর একটা বড় কারণ৷ মহামারির নিয়ন্ত্রণবিধি উঠে যাওয়ায় জ্বালানির চাহিদা বেড়েছে৷ পাশাপাশি, ওপেক গোষ্ঠী ধীরে ধীরে মহামারির আবহের ক্ষতির দিকগুলো পুনরুদ্ধার করা শুরু করেছে৷

জ্বালানি ব্যবহারের বাড়তি খরচ, সামগ্রিক উত্পাদন ব্যয়কে বাড়িয়ে তুলছে৷ নির্মাতারা বলছেন, এটি প্রতিযোগিতামূলক মূল্য নির্দিষ্ট করা কঠিন করে তুলেছে৷ মূল্যবৃদ্ধির জেরে গ্রাহকদের নাভিশ্বাস উঠেছে, এদিকে ব্যবসায়ীরাও কূল পাচ্ছেন না৷

করাতের ব্লেড নির্মাতা সংস্থার এক কর্মকর্তা হেইনো বুডেনবার্গ বলেন, ‘‘১৯৫০ সাল পর্যন্ত বস্ত্রশিল্প জার্মানি বেশ উন্নত ছিল, ধীরে ধীরে সম্পূর্ণ ব্যবসা এশিয়ায় চলে যায়৷ আমাদের শিল্পের ক্ষেত্রেও এমনটা হোক তা আমি চাই না৷'' 

অতীতের ক্ষত

প্রথম বিশ্বযুদ্ধে হেরে যাওয়া এবং তারপর ১৯২৩ সালে দ্রব্যমূল্যের চরম ঊর্ধ্বগতির ফলে দৈনিক হারে অর্থ দেওয়া হত কর্মীদের৷ অর্থের মূল্য কমে যাওয়ার আগে গিয়ে জিনিসপত্র কিনে ফেলতে ছুটোছুটি করতে হত সেইসময়৷ এরপর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ এবং পরবর্তীতে ১৯৭০ সাল পর্যন্ত সংকটে ভুগেছে জার্মানি৷

মার্কিন অর্থনীতিবিদ এবং নোবেলজয়ী রবার্ট শিলারের মতে, তাত্ত্বিক মূল্যবৃদ্ধির ভীতিও অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে৷ বর্তমান মূল্যবৃদ্ধি যথেষ্ট উদ্বেগজনক৷ বিপদে পড়তে পারেন অনেকে৷

টাফেলের স্বেচ্ছাসেবী  গিজা ডয়চে ভেলেকে জানান,  ৮০ ইউরোর বদলে ১০০ ইউরো দিতে হচ্ছে গ্যাস স্টেশনে৷ দরিদ্র মানুষজন ভাবছেন, পাউরুটি কেনা লাভজনক হবে নাকি সেই টাকায় দুধ কিনবেন৷ সব জিনিসের দাম বেড়ে গিয়েছে৷

ইউরোপিয়ান সেন্ট্রাল ব্যাংক (ইসিবি) উচ্চ সুদের হার দিয়ে মূল্যবৃদ্ধিকে সামলানোর ধারণায় বিশ্বাসী নয়৷ ইসিবির মতে, মহামারির ফলে সরবরাহের সমস্যাগুলির সঙ্গে মূল্যবৃদ্ধির যোগ রয়েছে, তবে এটি অস্থায়ী৷

প্রতিবেদন: ক্রিস্টি প্লাডসন/আরকেসি

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ইউক্রেন

হাজার হাজার রাশিয়ান ঢুকছে ইউরোপে

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান